029.061

যদি আপনি তাদেরকে জিজ্ঞেস করেন, কে নভোমন্ডল ও ভূ-মন্ডল সৃষ্টি করেছে, চন্দ্র ও সূর্যকে কর্মে নিয়োজিত করেছে? তবে তারা অবশ্যই বলবে আল্লাহ। তাহলে তারা কোথায় ঘুরে বেড়াচ্ছে?
If you were to ask them: ”Who has created the heavens and the earth and subjected the sun and the moon?” They will surely reply: ”Allâh.” How then are they deviating (as polytheists and disbelievers)?

وَلَئِن سَأَلْتَهُم مَّنْ خَلَقَ السَّمَاوَاتِ وَالْأَرْضَ وَسَخَّرَ الشَّمْسَ وَالْقَمَرَ لَيَقُولُنَّ اللَّهُ فَأَنَّى يُؤْفَكُونَ
Wala-in saaltahum man khalaqa alssamawati waal-arda wasakhkhara alshshamsa waalqamara layaqoolunna Allahu faanna yu/fakoona

YUSUFALI: If indeed thou ask them who has created the heavens and the earth and subjected the sun and the moon (to his Law), they will certainly reply, “Allah”. How are they then deluded away (from the truth)?
PICKTHAL: And if thou wert to ask them: Who created the heavens and the earth, and constrained the sun and the moon (to their appointed work)? they would say: Allah. How then are they turned away?
SHAKIR: And if you ask them, Who created the heavens and the earth and made the sun and the moon subservient, they will certainly say, Allah. Whence are they then turned away?
KHALIFA: If you ask them, “Who created the heavens and the earth, and put the sun and the moon in your service,” they will say, “GOD.” Why then did they deviate?

৬১। যদি তুমি তাদের জিজ্ঞাসা কর, ৩৪৯৩ ” কে আকাশমন্ডলী ও পৃথিবী সৃষ্টি করেছেন এবং সূর্য এবং চন্দ্রকে [ তাঁর আইনের ] অধীন করেছেন ?” ৩৪৯৪ তারা অবশ্যই উত্তর দেবে , ” আল্লাহ্‌ “। তাহলে কিভাবে তারা [ সত্য থেকে ] প্রতারিত হচ্ছে ?

৩৪৯৩। অনুরূপ আয়াত দেখুন [ ২৩ : ৮৪ – ৮৯ ]। এই উভয় সূরার আয়াতে ‘তাদের দ্বারা সেই সব লোককে বোঝানো হয়েছে যারা অসঙ্গত ও আত্মবিরোধী। এরা সৃষ্টির মাঝে আল্লাহ্‌ ক্ষমতা অনুভব করে সত্য , কিন্তু এদের আল্লাহ্‌র আইন অমান্য করার প্রবণতা ও আল্লাহ্‌র নিদর্শনকে অশ্রদ্ধা করার প্রবণতা থাকে, মিথ্যার প্রতি আসক্তির ফলে। মিথ্যার মত খারাপ রীপু আর নাই।

৩৪৯৪। দেখুন আয়াত [ ১৩ : ২ ] এবং [ ২৩ : ৮৫ ] আয়াত সমূহ। নভোমন্ডল ও বিশ্বভূবন আল্লাহ্‌র আইন অক্ষরে অক্ষরে পালন করে চলে। সূর্য পূর্বে ওঠে পশ্চিমে ডোবে। বছরের নির্দ্দিষ্ট সময়ে নির্দ্দিষ্ট ঋতুর পরিবর্তন ঘটে। এরূপ হাজার হাজার উদাহরণ প্রকৃতিতে আছে যা সাক্ষ্য দেয় যে আল্লাহ্‌ প্রদত্ত আইন বিশ্ব প্রকৃতি লক্ষ লক্ষ বছর ধরে অক্ষরে অক্ষরে নির্দ্দিষ্টভাবে মেনে আসছে। মানুষকেও আল্লাহ্‌ সৃষ্টি করেছেন তার বিধানকে মেনে জীবন অতিবাহিত করার জন্য। আল্লাহ্‌র ইচ্ছার কাছে আত্মসমর্পনের মাধ্যমেই মানুষ পারে বিশ্ব প্রকৃতির মাঝে শান্তি ও শৃঙ্খলার সাথে সমন্বিত হতে। তাহলেই সে আশা করতে পারে তার আত্মিক সমৃদ্ধি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *