ঋগ্বেদ ১০।০০৬

ঋগ্বেদ ১০।০০৬
ঋগ্বেদ সংহিতা।। ১০ম মণ্ডল।। সূক্ত ৬
অগ্নি দেবতা। ত্রিত ঋষি।

১। এই সেই অগ্নি, যজ্ঞের সময় যাঁহাকে স্তব করিয়া তাহার আশ্রয় পাওয়া যায় এবং নিজ গৃহে অশেষ প্রকার শ্রীবৃদ্ধি প্রাপ্ত হওয়া যায়; যিনি দীপ্তিবিশিষ্ট এবং সূর্গকিরণ অপেক্ষা উজ্জলতর আলোকে পরিচ্ছন্ন হইয়া সর্বত্র বিচরণ করেন।

২। যিনি দুর্ধর্ষ এবং যজ্ঞের অধিপতি এবং দীপ্তিশীল, তিনি উজ্জ্বল কিরণমণ্ডলের দ্বারা প্রদীপ্ত হইতেছেন। যিনি নিজ মিত্রস্বরূপ যজমান দিগের প্রতি বন্ধুজনোচিত কাৰ্য্য করিবার জন্য উত্তম ঘোটকের ন্যায় অক্লিষ্ট ভাবে আসিতেছেন।

৩। তিনি সর্বপ্রকার দেবারাধনার প্রস্থ, তিনি সর্বত্র বিচরণ করেন, প্রাতঃকাল হইতেই তাহার প্রভুত্ব আরম্ভ হয়, যজ্ঞ কর্তা ব্যক্তি সেই অগ্নিতে মনোমত হোমেব দ্রব্য নিক্ষেপ করেন, তাহা হইলেই তাহার রথ বিপক্ষদিগের নিকট দুর্ধর্ষ হয়।

৪। সেই অগ্নি নিজ বলে বলী হইয়া এবং স্তবসমূহ গ্রহণ করিতে করিতে দ্রুত গমনে দেবতাদিগের উদ্দেশে যাইতেছে। তিনি স্তব করেন, হোম করেন, দেবতাদিগকে আহ্বান করে, তিনিই প্রধান যজ্ঞকর্তা; তিনি দেবতাদিগের সহিত মিলিত হইয়া তাঁহাদিগকে আনয়ন করিতেছেন।

৫। সেই যে অগ্নি, যিনি ভোগ্যবস্তু দান করেন, ইন্দ্রের ন্যায় দীপ্তি পান, তোমরা তাঁহাকে নমস্কার ও স্তবের দ্বারা সংবর্ধনা কর। তিনি ধনের কর্তা, তিনি বিপক্ষপরাভকারী দেবতাদিগকে আহ্বান করেন, তাঁহাক মেধাবী ব্যক্তিগণ স্ততি বাক্যদ্বারা আপ্যায়িত করেন।

৬। দ্রুতগামী ঘোটকেরা যেমন যুদ্ধে যায়, তদ্রূপ অশেষ ধন সেই অগ্নির সহিত যাইয়া মিলিত হয়। হে অগ্নি! তুমি ইন্দ্রের সহিত একত্র হইয়া আমাদিগের মঙ্গলের জন্য তোমার আশ্রয় প্রদান কর।

৭। হে অগ্নি! তুমি জন্মিবামাত্র মহত্ব লাভ করিলে এবং স্থান গ্রহণ করিয়াই আহুতিযোগ্য হইলে। অতএব তোমাকে দেখিয়াই দেবতারা তোমার নিকটে আসিলেন; তাঁহারা তোমার সহিত মিলিত হয়। সর্বাগ্রেই বর্ধিষ্ণু হইলেন।

One thought on “ঋগ্বেদ ১০।০০৬

  1. ঋগ্বেদ ১০।৮৬।১৩ এবং ঋগ্বেদ ১০।৮৬।১৮ এর মন্ত্র যদি দিতে পারেন তবে উপকৃত হতাম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *