ঋগ্বেদ ০৮।০১৮

ঋগ্বেদ ০৮।০১৮
ঋগ্বেদ সংহিতা ।। ৮ম মণ্ডল  সূক্ত ১৮
অষ্টম ঋকের অশ্বিদ্বয় দেবতা; নবম ঋকের অগ্নি, সূর্‍্য ও বায়ু দেবতা; অবশিষ্টের আদিত্য দেবতা। ইরিম্বিঠ ঋষি।

১। এই সকল আদিত্যগণের নিকট মনুষ্য অপূৰ্ব্ব সুখ যাচঞা করে।

২। এই আদিত্যগণের পথ শত্রু কর্তৃক অপ্রতিগত ও অহিংসিত, অতএব সেই পালনশীল মাৰ্গ সুখবৰ্দ্ধক।

৩। আমরা যে বিস্তীর্ণ সুখ যাচঞা করি, সবিতা, ভগ, মিত্র, বরুণ ও অর্য্যমা আমাদিগকে সেই সুখ প্রদান করুন।

৪। হে দেবী, বহুলোকের প্রিয় অদিতি! তুমি প্রতিপালন করিলে কেহ হিংসা করিতে পারে না। তুমি প্রজ্ঞাবিশিষ্ট ও সুখপ্রদ দেবগণের সহিত সুন্দরভাবে আগমন কর।

৫। অদিতির সেই পুত্রগণ দ্বেষ্টাগণকে পৃথক করিতে জানেন, বিস্তীর্ণ কৰ্ম্মকৰ্ত্তা রক্ষকগণ পাপ হইতে আমাদিগকে পৃথক করিতে জানেন।

৬। অদিতি আমাদের পশুগণকে দিবাভাগে রক্ষা করুন, অদ্বয়া অদিতি রাত্রিকালেও রক্ষা করুন, সর্বদা বৰ্দ্ধনশীল রক্ষাদ্বারা আমাদিগকে পাপ হইতে রক্ষা করুন।

৭। স্ততিযোগ্য অদিতি রক্ষায় সহিত দিবাভাগে আমাদের নিকট আগমন করুন; সেই অদিতি শান্তিকর সুখ বিধান করুন, শত্রুগণকে দূরীভূত করুন।

৮। প্রসিদ্ধ দেবচিকিৎসক অশ্বিদ্বয় আমাদের সুখ বিধান করুন, আমাদের হইতে পাপ পৃথক করুন এবং শত্রুগণকে দূরীভূত করুন।

৯। অগ্নি নানা অগ্নিদ্বারা আমাদের সুখ বিধান করুন, সূৰ্য্য সুখপ্রদ হইয়া তাপ দান করুন, বায়ু তাপশূন্য হইয়া বাহিত হউন ও শত্রুগণকে দূরীভূত করুন।

১০। হে আদিত্যগণ! রোগ দূরীভূত কর, শত্রুদিগকে দূরীভূত কর, দুর্মতি দূরীভূত কর। আদিত্যগণ আমাদিগকে পাপ হইতে পৃথক করুন।

১১। হে আদিত্যগণ! হিংসককে আমাদের নিকট হইতে দূর কর, দুৰ্ম্মতিকে আমাদের নিকট হইতে দূর কর। হে সৰ্ব্বজ্ঞগণ! শত্রুদিগকে আমাদের নিকট হইতে পৃথক কর।

১২। হে সুদানশীল আদিত্যগণ! তোমাদের যে কল্যাণ, পাপী স্তোতাকেও পাপ হইতে মুক্ত করে, আমাদিগকে সেই কল্যাণ প্রদান কর।

১৩। যে কোন মনুষ্য আমাদিগকে রাক্ষসভাবে হিংসা করে, সে আপনার কাৰ্য্যের দ্বারাই হিংসিত হউক; সে ব্যক্তি অপগত হউক।

১৪। যে দুষ্কৃতিশালী মনুষ্য আমাদিগের আঘাতকারী এবং কপটাচারী, সে নিধন প্রাপ্ত হউক।

১৫। হে বাসপ্রদ আদিত্য দেবগণ! তোমার পক্কবুদ্ধি স্তোতার নিকট থাক, অতএব কপট ও অকপট উভয় প্রকার মনুষ্যকেই অবগত হও।

১৬। আমরা মেঘসম্বন্ধীয় ও জলসম্বন্ধীয় সুখ ভজনা করিতেছি। হে দ্যাবাপৃথিবী! পাপকে আমাদের নিকট হইতে দূর দেশে প্রেরণ কর।

১৭। হে বসু আদিত্যগণ! তোমরা সুন্দর, সুখকর নৌকায় আমাদিগকে সমস্ত দুরিত হইতে পার কর।

১৮। হে আদিত্যগণ! তোমরা সুন্দর তেজোবিশিষ্ট আমাদের পুত্র ও পৌত্রগণের জন্য এবং জীবনের জন্য দীর্ঘতম আয়ুঃ প্রেরণ কর।

১৯। হে আদিত্যগণ! আমাদের অনুষ্ঠিত যজ্ঞ তোমাদের সমীপে বৰ্ত্তমান, তোমরা আমাদিগকে সুখী কর। তোমাদের বন্ধুত্ব লাভ করিয়া আমরা সর্বদা তোমাদেরই হইব।

২০। মরুৎগণের পালয়িতা ইন্দ্রদেব, অশ্বিদ্বয়, মিত্র ও বরুণদেবের নিকট বৃহৎ শীতাদি নিবারক গৃহ মঙ্গলার্থ যাচঞা করি।

২১। হে মিত্র! হে অর্য্যমা! হে বরুণ! হে মরুৎগণ! তোমরা সকলে হিংসারহিত পুত্ৰাদিবিশিষ্ট স্তুতিযোগ্য শীত, আতপ ও বর্ষা এই তিনের নিবারক গৃহ প্রদান কর।

২২। হে আদিত্যগণ! যে মনুষ্যগণ মৃত্যুর বন্ধুস্বরূপ, তাহাদের জীবনাৰ্থ আয়ুঃ উত্তমরূপে বৰ্দ্ধিত করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *