সামবেদ ০১।১১

সামবেদ
পুর্বার্চিকঃ ছন্দ আর্চিকঃ

প্রথম অধ্যায়ঃ
আগ্নেয় কাণ্ডঃ অগ্নিস্তুতি

একাদশ খণ্ড : মন্ত্র সংখ্যা ১০॥
দেবতা অগ্নি; ৫ পবমান সোম; ৬ অদিতি॥
ছন্দ ঊষ্ণিক্‌॥
ঋষিঃ ১ দীর্ঘতমা ঔচথা,
২।৪ গাথি বিশ্বামিত্র,
৩ গোতম রাহুগণ,
৫ ত্রিত আপ্ত্য,
৬ ইরিম্বিঠি কান্ব,
৭।৮।১০ বিশ্বমনা বৈয়শ্ব,
৮ ঋজিশ্বা ভারদ্বাজ॥

মন্ত্র: (৯৭) পুরু ত্বা দাশিবাং বোচেহরিরগ্নে তব স্বিদা। তোদস্যেব শরণ আ মহস্য॥১॥
অর্থ : (৯৭) হে অগ্নি, আমি তোমার উদ্দেশ্যে অনেক হব্য দান ক’রে তোমার কাছে অনেক কামনা করি। হে অগ্নি, মহান্‌ প্রভুর গৃহে যেমন সেবক থাকে, আমিও তোমার তেমনি সেবক॥

মন্ত্র: (৯৮) প্র হোত্রে পূর্ব্যং বচোহগ্নয়ে ভরতা বৃহৎ। বিপাং জ্যোতীংষি বিভ্রতে ব বেধসে॥২॥
অর্থ : (৯৮) হে নরগণ, মেধাসম্পন্নদের তেজ ধারণকারী জগৎনিয়ন্তা, দেবগণের আহ্বানকারী অগ্নিদেবের উদ্দেশে মহান সনাতন বাণী উচ্চারণ কর॥

মন্ত্র : (৯৯) অগ্নে বাজস্য গোমত ঈশানঃ সহসো যহো । অস্মে দেহি জাতবেদো মহি শ্রবঃ॥৩॥
অর্থ : (৯৯) হে অগ্নি, তুমি বলজাত, তুমি বাক্‌, বল ও অন্নের ঈশ্বর; হে জাতবেদা, আমাদের মহান প্রখ্যাত অন্ন বল দাও॥

মন্ত্র : (১০০) অগ্নে যজিষ্ঠো অধ্বরে দেবান্‌ দেবয়তে যজ। হোতা মন্দ্রো বি রাজস্যতি স্রিধঃ॥৪॥
অর্থ : (১০০) হে অগ্নি, তুমি যজ্ঞকারিগণের মধ্যে শ্রেষ্ঠ যাজ্ঞিক, যারা দেবকাম তাদের জন্য তুমি দেবতাদের মিলিত কর; তুমি হোতা আনন্দময়, তুমি অবিশ্বাসীকে পরাভূত ক’রে বিরাজ কর।

মন্ত্র : (১০১) জজ্ঞানঃ সপ্ত মাতৃভির্মেধামাশাসত শ্রিয়ে। অয়ং ধ্রুবো রয়ীণাং চিকেতদা॥৫॥
অর্থ : (১০১) সোম যখন জন্মালেন তখন সপ্তমাতারূপিণী সপ্তছন্দ সৌন্দর্যের জন্য সোমকে ঘিরে স্তব করতে লাগলেন, কারণ তিনি সর্বজ্ঞ, আর তিনিই নিশ্চিত ধনের সন্ধান জানেন॥

মন্ত্র : (১০২) উত স্যা নো দিবা মাতরদিতিরূত্যাগমৎ॥সা শন্তানা ময়স্করদপ স্রিধঃ॥৬॥
অর্থ : (১০২) সেই অখণ্ড মননশক্তি আমাদের নিত্য রক্ষার জন্য আগমন করুন; তিনি আমাদের শান্তিকর সুখ বিধান করুন, বিঘ্ন নাশ করুন।

মন্ত্র : (১০৩) ঈদিষ্বা হি প্রতীব্যাংত যজস্ব জাতবেদসম্‌॥চরিষ্ণু ধূমমগৃভীতশোচিষম॥৭॥
অর্থ : (১০৩) যিনি বিঘ্ননাশকারী, জাতবেদা, যাঁর ধূম সর্বত্র সঞ্চারিত, যাঁর তেজ কেহ গ্রহন করতে পারে না, সেই অগ্নিকে স্তব কর, পূজা কর॥

মন্ত্র : (১০৪) ন তস্য মায়য়া চ ন রিপুরীশীত মর্ত্যঃ॥যো অগ্নয়ে দদাশ হব্যদাতয়ে॥৮॥
অর্থ : (১০৪) যিনি কর্মফলদাতা অগ্নির উদ্দেশে দান করেন তার শত্রু কোন প্রকার মায়াদ্বারা তার কোন ক্ষতি করতে পারে না॥

মন্ত্র : (১০৫) অপ ত্যং বৃজিনং রিপুং স্তেনমগ্নে দুরাধ্যম্‌॥দবিশ্বমস্য সয়পতে কৃধী সুগম্‌॥৯॥
অর্থ : (১০৫) হে অগ্নি, সেই কুটিলপথগামীকে, শত্রুকে, চোরকে, দারিদ্র্যকে নাশ কর। হে সজ্জনপালক, এই সমস্ত দূর ক’রে আমাদের সুপথগামী কর।

মন্ত্র : (১০৬) শ্রুষ্ট্যগ্নে নবস্য মে স্তোমস্য বীর বিশ্‌পতে॥নি মায়িনস্তপসা রক্ষস্যে দহ॥১০॥
অর্থ : (১০৬) হে বীর, হে জনগণপালক, আমার এই নতুন স্ত্রোত্র শুনে মায়াসৃষ্টিকারী বিঘ্নকারক শক্তিকে তোমার তপের তাপে দহন কর॥

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *