সামবেদ ০২।০১ (দ্বিতীয় অধ্যায় । প্রথম খণ্ড : ঐন্দ্র কাণ্ডঃ ইন্দ্রস্তুতি)

সামবেদ
পুর্বার্চিকঃ ছন্দ আর্চিকঃ

দ্বিতীয় অধ্যায়ঃ
ঐন্দ্র কাণ্ডঃ ইন্দ্রস্তুতি

প্রথম খণ্ড : মন্ত্র সংখ্যা ১০॥
দেবতা ইন্দ্র (৩য় ঋকের দেবতা অগ্নি বা হবীংষি)॥
ছন্দ গায়ত্রী॥
ঋষিঃ ১ শংযুর্বার্হস্পত্য,
২ শ্রুতকক্ষ সুকক্ষ অথবা আঙ্গিরস,
৩ হর্যত প্রাগাথ,
৪।৫ শ্রুতকক্ষ বা সুকক্ষ (৫ সুকক্ষ আঙ্গিরস),
৬ দেবজামি ইন্দ্রমাতা ঋষিকা,
৭।৮ গোষুক্তি-অশ্বসুক্তি কান্বায়ন,
৯।১০ মেধাতিথি কান্ব, আঙ্গিরস প্রিয়মেধ॥

মন্ত্রঃ (১১৫) তদ্‌ বো গায় সুতে সচা পুরুহূতায় সত্বনে। শং যদ্‌ গবে ন শাকিনে॥১॥
অর্থ : (১১৫) হে স্তোতাগণ, গবাদি পশুর কাছে উদ্ভিদ্‌ যেমন সুখকর হয় সেরূপ সোমাভিষবে বহুলোকের বন্দনীয় সর্বশক্তিমান ইন্দ্রের সুখদায়ক স্তোত্র একত্র মিলিত হয়ে গান কর॥

মন্ত্রঃ (১১৬) যস্তে নূনং শতক্রতবিন্দ্র দ্যুম্নিতমো মদঃ ।তেন নূনং মদে মদে॥২॥
অর্থ : (১১৬) হে শতযজ্ঞকারী ইন্দ্র, পরমানন্দদায়ক সোমরস তোমার জন্য আমরা অভিষব করেছি, সেই রস পান ক’রে বারবার মত্ত হয়ে আমাদের আনন্দ দান কর॥

মন্ত্রঃ (১১৭) গাব উপ বটাবটে মহী যজ্ঞস্য রপ্‌সুদা। উভা কর্ণা হিরণ্যয়া॥৩॥
অর্থ : (১১৭) দ্যুলোক ও ভূলোক উভয়ে বাণীযুক্তা, উভয়ের শ্রবণসামর্থ্য দীপ্তিময়ী; হে দেবরশ্মিগণ, পৃথিবীতলে যক্ষক্ষেত্রে অবনমিত হও॥

মন্ত্রঃ (১১৮) অরমশ্বায় গায়ত শ্রুতকক্ষারং গবে। অরমিন্দ্রস্য ধাম্নে॥৪॥
অর্থ : (১১৮) শ্রুতকক্ষ ঋষি তেজ ও বলের জন্য গান করছেন, তিনি ইন্দ্রধাম প্রাপ্তির জন্য আকুল হয়ে গান করছেন॥

মন্ত্রঃ (১১৯) তমিন্দ্রং বাজয়ামসি মহে বৃত্রায় হন্তবে। স বৃষা বৃষভো ভূবৎ॥৫॥
অর্থ : (১১৯) বিপুলাকৃতি বৃত্রকে (=মেঘকে) বধের জন্য আমরা ইন্দ্রকে রহস্যময়বাক্যের দ্বারা স্তব করি॥সেই অভীষ্টবর্ষী ইন্দ্র আমাদের অভিলাষ পূরণ করুন॥

মন্ত্রঃ (১২০) ত্বমিন্দ্র বলাদধি সহসো জাত ওজসঃ।ত্বং সন্‌ বৃষন্‌ বৃষেদসি॥৬॥
অর্থ : (১২০) হে ইন্দ্র, তুমি তেজ ও বল হতে জন্মেছ; হে অভীষ্টবর্ষী তুমিই মনোবাঞ্ছা পূরণকর্তা॥

মন্ত্রঃ (১২১) যজ্ঞ ইন্দ্রমবর্ধয়দ্‌ যদ্‌ ভূমিং ব্যবর্তয়ৎ।চক্রাণ ওপশং দিবি॥৭॥
অর্থ : (১২১) যজ্ঞ ইন্দ্রকে বর্ধিত করেছে কারণ তিনি অন্তরিক্ষ শায়িত মেঘ থেকে বৃষ্টি প্রদান ক’রে পৃথিবীর আগর্তন রক্ষা করেছেন॥

মন্ত্রঃ (১২২) যদিন্দ্রাহং যথা ত্বমীশীয় বস্ব এক ইৎ। স্তোতা মে গোসখা স্যাৎ॥৮॥
অর্থ : (১২২) হে ইন্দ্র, তুমি যেমন একাই ধনের ঈশ্বর সেরূপ আমি ঐশ্বর্যযুক্ত হলে আমার ভক্ত ধনযুক্ত হোত॥

মন্ত্রঃ (১২৩) পন্যং পন্যমিৎ সোতার আ ধাবত মদ্যায়।সোমং বীরায় মুরায়॥৯॥
অর্থ : (১২৩) হে সোমপ্রস্তুতকারিগণ, এই আশ্চর্য সোমকে হর্ষ ও শৌর্যযুক্ত বীর ইন্দ্রের উদ্দেশে উৎসর্গের জন্য দ্রুত আগমন কর॥

মন্ত্রঃ (১২৪) ইদং বসো সুতমন্ধঃ পিবা সুপুর্ণমুদরম্‌ ।অনাভয়িন্‌ ররিমা তে॥১০॥
অর্থ : (১২৪) হে সর্বধন ইন্দ্র, উদরপূর্ণ ক’রে সোম পান কর; হে নির্ভীক, এ দান তোমার জন্য॥

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *