রসমঞ্জরী

রসমঞ্জরী - কবি ভারতচন্দ্র রায় রচিত গ্রন্থ।
রসমঞ্জরী “বিবিধ অলংকার গ্রন্থের ছায়ায় বিরচিত নায়ক-নায়িকার লক্ষণ ও তৎসংক্রান্ত বিবিধ অবস্থার বর্ণনাত্মক প্রবেশিকা গ্রন্থ।” (মদনমোহন গোস্বামী, ভারতচন্দ্র, সাহিত্য অকাদেমি, নতুন দিল্লি, পৃ. ৭) সম্ভবত ১৭৪০ খ্রিষ্টাব্দে রাজা কৃষ্ণচন্দ্র রায়ের আদেশে ভানুদত্ত মিশ্রের রসমঞ্জরী, জয়দেবের রতিমঞ্জরী, রূপ গোস্বামীর উজ্জ্বল নীলমণি, বাৎস্যায়ণের কামসূত্র, বিশ্বনাথ কবিরাজের সাহিত্য দর্পণ, জ্যোতিরীশ্বর কবিশেখরাচার্যের পঞ্চসায়ক, কল্যাণমল্লের অনঙ্গরঙ্গ ইত্যাদি গ্রন্থ অবলম্বনে ভারতচন্দ্র এই গ্রন্থ রচনা করেন। (উইকি)

০০. ভূমিকা (রসমঞ্জরী)

জয় জয় রাধা শ্যাম : নিত্য নব রসধাম : নিরুপম নায়িকানায়ক। সর্ব্বসুলক্ষণধারী : সর্ব্বরসবশকারী : সর্ব্ব প্রতি প্রণয়কারক।। বীণা বেণু যন্ত্র গানে : রাগরাগিনীর তালে : বৃন্দাবনে নাটিকানাটক। গোপগোপীগণ সঙ্গে : সদা রাস রসরঙ্গে : ভারতের ভক্তিপ্রদায়ক।। রাঢ়ীয় কেশরী গ্রামী :...

০১. নায়িকা প্রকরণ

নায়িকা প্রকরণ শৃঙ্গার বীভৎস হাস্য রৌদ্র বীর ভয়। করুণা অদ্ভুত শান্তি এই রস নয়।। অদ্যরস সকল রসের মধ্যে সার। নায়িকা বর্ণিব অগ্রে তাহার আধার।। নায়িকার স্বীয়াদি ভেদ স্বীয়া পরকীয়া আর সামান্য বণিতা। অগ্রে এই তিন ভেদ পণ্ডিতবর্ণিতা।। স্বীয়া নায়িকা কেবল আপন নাথে...

০২. নায়িকা সহায়

সহচরীকথন বেশভূষা করে দেয় পরিহাস। কথা কৈতে খেতে শুনে শিখায় বিলাস।। যার কাছে বিশ্রাম বিশ্বাস কথা কয়। সহচরী সখী সেই পঞ্চ মত হয়।। সখী নিত্যসখী প্রিয়সখী প্রাণসখী। অতিপ্রিয়সখী এই পঞ্চমত সখী।। সখী আমার নিকটে রয়ে : মরম আমারে কয়ে : এমত শিখাব কথা সুধাবৃষ্টি করিবে।...

০৩. নায়ক প্রকরণ

নায়ক প্রকরণ নায়ক নায়িকা দুই শৃঙ্গারে প্রধান। নায়িকা বর্ণিনু শুন নায়ক সন্ধান।। পতি উপপতি আর বৈশিক নাগর। স্বীয়া পরকীয়া আর সামান্যার ঘর।। বেদমত বিভা করে যে জন সে পতি। উপপতি সেই যার পিরীতে বসতি।। কোনরূপে ধনলোভে হয় সংঘটন। বৈষয়িক বৈশিক নাগর সেই জন।। পতিভেদ অনুকূল...

০৪. নায়ক সহায়

নায়ক সহায় কথন পীঠমর্দ্দ বিট বলি চেটক বিদূষক। এই সব ভেদ হয় বিস্তর নায়ক।। পীঠমর্দ্দ রমণী করিলে ক্রোধ যে করে সান্ত্বনা। ধর্ম্মধী সচিব পীঠমর্দ্দ সেই জনা।। রমণীরত্ন সহে না আঁচ : টুটয়ে অগ্নি পরশে কাঁচ : করিতে মান দিবে না স্থান দিবে না স্থান। কি করে ক্ষোভ সহে আমার :...

০৫. শৃঙ্গার নিরুপণ

আদ্যরসের নিরূপণ আদ্যরসের দুই ভেদ শুনহ প্রয়োগ। প্রথমতঃ বিপ্রলম্ভ দ্বিতীয় সম্ভোগ।। বিপ্রলম্ভ বিপ্রলম্ভ চারিমত শুনহ প্রকাশ। পূর্ব্বরাগ মান প্রেম বৈচিত্ত্য প্রবাস।। পূর্ব্বরাগ অঙ্গসঙ্গ হওনের পূর্ব্ব যে লালস। তারে বলি পূর্ব্বরাগ তাহে দশ দশা।। লালস উদ্বেগ জড় কৃশ জাগরণ।...

০৬. ভাব প্রকরণ

আলম্বনাদি কথন আলম্বন বিভাবন আর উদ্দীপন। এই তিন ভাবের শুনহ বিবরণ।। আলম্বন সেই যাহে রসের আশ্রয়। নায়ক নায়িকা দুই তার বিনিময়।। নানাবিধ অনুভবে বলি বিভাবন। যাহে রস বাড়ে তাহে বলি উদ্দীপন।। উদ্দীপন গুণ স্মরা নাম লওয়া নিত্য রূপ দেখা। গীতবাদ্য শুনার আর কর্ম্ম রেখা লেখা।।...

০৭. বয়োবিভাগ

যৌবন কথন যৌবনের চারি ভেদ শুন বিবরণ। আগে বয়ঃসন্ধি পরে নবীন যৌব।। তারপরে যুবা ভাবে উন্মাদ লক্ষণ। তার পরে বৃদ্ধভাব বুঝ বিচক্ষণ।। যৌবনের সন্ধিকাল দ্বাদশ বৎসর। দশম নিয়ম কন ব্যাস মুনিবর।। যৌবন পরম ধন : স্ববশ ইন্দ্রিয়গণ : শিশু বৃদ্ধ দেখি লোক রসকথা কহে না। বালকের নাহি...

০৮. জাতিকথন

স্ত্রীজাতি কথন অতঃপর চারি জাতি বর্ণিব কামিনী। পদ্মিনী চিত্রিণী আর শঙ্খিনী হস্তিনী।। পদ্মিনী নয়নকমল : কুঞ্চিত কুন্তল : ঘন কুচস্থল মৃদু হাসিনী। ক্ষুদ্র রন্ধ্রনাসা : মৃদু মন্দ ভাষা : নৃত্য গীতে আশা সত্যবাদিনী।। দেবদ্বিজে ভক্তি : পতি অনুরক্তি : অল্প রতিভক্তি...