বুখারি হাদিস নং ১৬৬১ – রাসূলে করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কতবার উমরা করেছেন।

হাদীস নং ১৬৬১ কুতাইবা রহ………..মুজাহিদ রহ. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি এবং উরওয়া ইবনে যুবাইর রহ. মসজিদে প্রবেশ করে দেখতে… Read more বুখারি হাদিস নং ১৬৬১ – রাসূলে করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কতবার উমরা করেছেন।

বুখারি হাদিস নং ১৫৫৯ – আরাফায় খুতবা সংক্ষিপ্ত করা।

হাদীস নং ১৫৫৯ আবদুল্লাহ ইবনে মাসলামা রহ……….সালিম ইবনে আবদুল্লাহ রহ. থেকে বর্ণিত যে, (খলীফা) আবদুল মালিক ইবনে মারওয়ান হাজ্জাজকে লিখে… Read more বুখারি হাদিস নং ১৫৫৯ – আরাফায় খুতবা সংক্ষিপ্ত করা।

বুখারি হাদিস নং ১৪২৬ – মহান আল্লাহর বাণী : তারা তোমার নিকট আসবে পায়ে হেটে ও সর্বপ্রকার ক্ষীণকায় উটগুলোর পিঠে, তারা আসবে দূর-দূরান্তর পথ অতিক্রম করে যাতে তারা তাদের কল্যাণময় উপস্থিত হতে পারে।

হাদীস নং ১৪২৬ আহমদ ইবনে ঈসা রহ……..ইবনে উমর রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি দেখেছি, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪২৬ – মহান আল্লাহর বাণী : তারা তোমার নিকট আসবে পায়ে হেটে ও সর্বপ্রকার ক্ষীণকায় উটগুলোর পিঠে, তারা আসবে দূর-দূরান্তর পথ অতিক্রম করে যাতে তারা তাদের কল্যাণময় উপস্থিত হতে পারে।

বুখারি হাদিস নং ১৪২৮ – উটের হাওদায় আরোহণ করে হজ্জে গমন।

হাদীস নং ১৪২৮ আমর ইবনে আলী রহ……….আয়িশা রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি বললাম, ইয়া রাসূলাল্লাহ ! আপনারা উমরা করলেন,… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪২৮ – উটের হাওদায় আরোহণ করে হজ্জে গমন।

বুখারি হাদিস নং ১৪২৯ – হজ্জে মাবরূর -এর ফজিলত।

হাদীস নং ১৪২৯ আবদুল আযীয ইবনে আবদুল্লাহ রহ……….আবু হুরায়রা রা. থেকে বর্ণিত যে, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-কে জিজ্ঞাসা করা… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪২৯ – হজ্জে মাবরূর -এর ফজিলত।

বুখারি হাদিস নং ১৪৩০ – হজ্জে মাবরূর -এর ফজিলত।

হাদীস নং ১৪৩০ আবদুর রহমান ইবনে মুবারক রহ………উম্মুল মু’মিনীন আয়িশা রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, ইয়া রাসূলাল্লাহ ! জিহাদকে আমরা… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৩০ – হজ্জে মাবরূর -এর ফজিলত।

বুখারি হাদিস নং ১৪৩২ – হজ্জ ও উমরার মীকাত নির্ধারণ।

হাদীস নং ১৪৩২ মালিক ইবনে ইসমাঈল রহ………যায়েদ ইবনে জুবাইর রহ. থেকে বর্ণিত, তিনি আবদুল্লাহ ইবনে উমর রা.-এর কাছে তাঁর অবস্থান… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৩২ – হজ্জ ও উমরার মীকাত নির্ধারণ।

বুখারি হাদিস নং ১৪৩৩ – মহান আল্লাহর বাণী : তোমরা পাথেয়র ব্যবস্থা কর। আত্মসংযম ই শ্রেষ্ঠ পাথেয়।

হাদীস নং ১৪৩৩ ইয়াহইয়া ইবনে বিশর রহ………..ইবনে আব্বাস রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, ইয়ামানের অধিবাসীগণ হজ্জে গমনকালে পাথেয় সংগে নিয়ে… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৩৩ – মহান আল্লাহর বাণী : তোমরা পাথেয়র ব্যবস্থা কর। আত্মসংযম ই শ্রেষ্ঠ পাথেয়।

বুখারি হাদিস নং ১৪৩৪ – মক্কাবাসীদের জন্য হজ্জ ও উমরার ইহরাম বাঁধার স্থান।

হাদীস নং ১৪৩৪ মূসা ইবনে ইসমাঈল রহ……….ইবনে আব্বাস রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইহরাম বাঁধার… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৩৪ – মক্কাবাসীদের জন্য হজ্জ ও উমরার ইহরাম বাঁধার স্থান।

বুখারি হাদিস নং ১৪৩৫ – মদীনাবাসীদের মীকাত ও তারা যুল-হুলায়ফা পৌছার পূর্বে ইহরাম বাঁধবে না।

হাদীস নং ১৪৩৫ আবদুল্লাহ ইবনে ইউসুফ রহ………ইবনে উমর রা. থেকে বর্ণিত, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন : মদীনাবাসীগণ যুল-হুলাইফা… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৩৫ – মদীনাবাসীদের মীকাত ও তারা যুল-হুলায়ফা পৌছার পূর্বে ইহরাম বাঁধবে না।

বুখারি হাদিস নং ১৪৩৭ – নজদবাসীদের ইহরাম বাঁধার স্থান।

হাদীস নং ১৪৩৭ আলী ও আহমদ রহ………..আবদুল্লাহ রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মীকাতের সীমা নির্ধারিত… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৩৭ – নজদবাসীদের ইহরাম বাঁধার স্থান।

বুখারি হাদিস নং ১৪৩৮ – মীকাতের ভিতরের অধিবাসীদের ইহরাম বাঁধার স্থান।

হাদীস নং ১৪৩৮ কুতাইবা রহ……….ইবনে আব্বাস রা. থেকে বর্ণিত, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মদীনাবাসীদের জন্য মীকাত নির্ধারণ করেন যুল-হুলাইফা,… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৩৮ – মীকাতের ভিতরের অধিবাসীদের ইহরাম বাঁধার স্থান।

বুখারি হাদিস নং ১৪৩৯ – ইয়ামানবাসীদের ইহরাম বাঁধার স্থান।

হাদীস নং ১৪৩৯ মুআল্লা ইবনে আসাদ রহ………..ইবনে আব্বাস রা. থেকে বর্ণিত যে, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মদীনাবাসীদের জন্য মীকাত… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৩৯ – ইয়ামানবাসীদের ইহরাম বাঁধার স্থান।

বুখারি হাদিস নং ১৪৪০ – যাতু’ইরক ইরাকবাসীদের মীকাত।

হাদীস নং ১৪৪০ আলী ইবনে মুসলিম রহ…………আবদুল্লাহ ইবনে উমর রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, যখন এ শহর দুটি (কুফা ও… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৪০ – যাতু’ইরক ইরাকবাসীদের মীকাত।

বুখারি হাদিস নং ১৪৪১ – যুল-হুলাইফায় সালাত।

হাদীস নং ১৪৪১ আবদুল্লাহ ইবনে ইউসুফ রহ………আবদুল্লাহ ইবেন উমর রা. থেকে বর্ণিত যে, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যুল-হুলাইফার বাতহা… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৪১ – যুল-হুলাইফায় সালাত।

বুখারি হাদিস নং ১৪৪২ – “শাজারা”-এর রাস্তা দিয়ে নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর গমন।

হাদীস নং ১৪৪২ ইবরাহীম ইবনে মুনযির রহ………..আবদুল্লাহ ইবনে উমর রা. থেকে বর্ণিত যে, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম (হজ্জের সফরে)… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৪২ – “শাজারা”-এর রাস্তা দিয়ে নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর গমন।

বুখারি হাদিস নং ১৪৪৩ – নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর বাণী : আকীক বরকতময় উপত্যকা।

হাদীস নং ১৪৪৩ হুমায়দী রহ……….উমর রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আকীক উপত্যকায় অবস্থানকালে আমি নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-কে বলতে… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৪৩ – নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর বাণী : আকীক বরকতময় উপত্যকা।

বুখারি হাদিস নং ১৪৪৫ – কাপড়ে খালুক লেগে থাকলে তিনবার ধোয়া।

হাদীস নং ১৪৪৫ মুহাম্মদ ……..সাফওয়ান ইবনে ইয়ালা রহ. থেকে বর্ণিত যে, ইয়ালা রা. উমর রা. -কে বললেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৪৫ – কাপড়ে খালুক লেগে থাকলে তিনবার ধোয়া।

বুখারি হাদিস নং ১৪৪৬ – ইহরাম বাঁধাকালে সুগন্ধি ব্যবহার ও কি প্রকার কাপড় পরে ইহরাম বাঁধবে এবং চুল দাঁড়ি আচঁড়াবে ও তেল লাগাবে।

হাদীস নং ১৪৪৬ মুহাম্মদ ইবনে ইউসুফ রহ……….সাঈদ ইবনে জুবাইর রহ. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, ইবনে উমর রা .(ইহরাম বাঁধা অবস্থায়)… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৪৬ – ইহরাম বাঁধাকালে সুগন্ধি ব্যবহার ও কি প্রকার কাপড় পরে ইহরাম বাঁধবে এবং চুল দাঁড়ি আচঁড়াবে ও তেল লাগাবে।

বুখারি হাদিস নং ১৪৪৮ – যে চুলে আঠালো দ্রব্য লাগিয়ে ইহরাম বাঁধে।

হাদীস নং ১৪৪৮ আসবাগ রহ………আবদুল্লাহ ইবনে উমর রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-কে চুলে আঠালো… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৪৮ – যে চুলে আঠালো দ্রব্য লাগিয়ে ইহরাম বাঁধে।

বুখারি হাদিস নং ১৪৪৯ – যুল-হুলাইফার মসজিদের নিকট থেকে ইহরাম বাঁধা।

হাদীস নং ১৪৪৯ আলী ইবনে আবদুল্লাহ ও আবদুল্লাহ ইবনে মাসলামা রহ………ইবনে উমর রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৪৯ – যুল-হুলাইফার মসজিদের নিকট থেকে ইহরাম বাঁধা।

বুখারি হাদিস নং ১৪৫০ – মুহরিম ব্যক্তি যে প্রকার কাপড় পরবে না।

হাদীস নং ১৪৫০ আবদুল্লাহ ইবনে ইউসুফ রহ……….আবদুল্লাহ ইবনে উমর রা. থেকে বর্ণিত যে, এক ব্যক্তি বললেন, ইয়া রাসূলাল্লাহ ! মুহরিম… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৫০ – মুহরিম ব্যক্তি যে প্রকার কাপড় পরবে না।

বুখারি হাদিস নং ১৪৫১ – হজ্জের সফরে বাহনে একাকী আরোহণ করা ও অপরের সাথে আরোহণ করা।

হাদীস নং ১৪৫১ আবদুল্লাহ ইবনে মুহাম্মদ রহ…….ইবনে আব্বাস রা. থেকে বর্ণিত যে, আরাফা থেকে মযদালিফা পর্যন্ত একই বাহনে নবী করীম… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৫১ – হজ্জের সফরে বাহনে একাকী আরোহণ করা ও অপরের সাথে আরোহণ করা।

বুখারি হাদিস নং ১৪৫২ – মুহরিম ব্যক্তি কি প্রকার কাপড়, চাদর ও লুঙ্গি পরবে।

হাদীস নং ১৪৫২ মুহাম্মদ ইবনে আবু বকর মুকাদ্দামী রহ……….আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৫২ – মুহরিম ব্যক্তি কি প্রকার কাপড়, চাদর ও লুঙ্গি পরবে।

বুখারি হাদিস নং ১৪৫৩ – ভোর পর্যন্ত যুল-হুলাইফায় রাত যাপন করা

হাদীস নং ১৪৫৩ আবদুল্লাহ ইবনে মুহাম্মদ রহ……….আনাস রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মদীনায় চার রাকআত… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৫৩ – ভোর পর্যন্ত যুল-হুলাইফায় রাত যাপন করা

বুখারি হাদিস নং ১৪৫৫ – উচ্চস্বরে তালবিয়া পাঠ করা।

হাদীস নং ১৪৫৫ সুলাইমান ইবনে হারব রহ……..আনাস ইবনে মালিক রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যুহরের… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৫৫ – উচ্চস্বরে তালবিয়া পাঠ করা।

বুখারি হাদিস নং ১৪৫৬ – তালবিয়া-এর শব্দসমূহ।

হাদীস নং ১৪৫৬ আবদুল্লাহ ইবনে ইউসুফ রহ………আবদুল্লাহ ইবনে উমর রা. থেকে বর্ণিত যে, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর তালবিয়া নিম্নরূপ… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৫৬ – তালবিয়া-এর শব্দসমূহ।

বুখারি হাদিস নং ১৪৫৮ – তালবিয়া পাঠ করার পূর্বে সাওয়ারীতে আরোহণকালে তাহমীদ, তাসবীহ ও তাকবীর পাঠ করা।

হাদীস নং ১৪৫৮ মূসা ইবনে ইসমাঈল রহ……….আনাস রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাদেরকে নিয়ে মদীনায়… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৫৮ – তালবিয়া পাঠ করার পূর্বে সাওয়ারীতে আরোহণকালে তাহমীদ, তাসবীহ ও তাকবীর পাঠ করা।

বুখারি হাদিস নং ১৪৫৯ – সাওয়ারী আরোহীকে নিয়ে সোজা দাঁড়িয়ে গেলে তালবিয়া পাঠ করা।

হাদীস নং ১৪৫৯ আবু আসিম রহ………..ইবনে উমর রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-কে নিয়ে তাঁর সাওয়ারী… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৫৯ – সাওয়ারী আরোহীকে নিয়ে সোজা দাঁড়িয়ে গেলে তালবিয়া পাঠ করা।

বুখারি হাদিস নং ১৪৬০ – কিবলামুখী হয়ে তালবিয়া পাঠ করা।

হাদীস নং ১৪৬০ সুলাইমান ইবনে দাউদ আবু রবী রহ……নাফি রহ. থেকে বর্নিত, তিনি বলেন, ইবনে উমর রা. মক্কা গমনের ইচ্ছা… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৬০ – কিবলামুখী হয়ে তালবিয়া পাঠ করা।

বুখারি হাদিস নং ১৪৬১ – নীচু ভূমিতে অবতরণকালে তালবিয়া পাঠ করা।

হাদীস নং ১৪৬১ মুহাম্মদ ইবনে মুসান্না রহ…….মুজাহিদ রহ. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমরা ইবনে আব্বাস রা. -এর নিকটে ছিলাম, লোকেরা… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৬১ – নীচু ভূমিতে অবতরণকালে তালবিয়া পাঠ করা।

বুখারি হাদিস নং ১৪৬২ – হায়েয ও নিফাস অবস্থায় মহিলাগণ কিরূপে ইহরাম বাঁধবে ?

হাদীস নং ১৪৬২ আবদুল্লাহ ইবনে মাসলামা রহ……….. নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর সহধর্মিণী আয়িশা রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমরা… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৬২ – হায়েয ও নিফাস অবস্থায় মহিলাগণ কিরূপে ইহরাম বাঁধবে ?

বুখারি হাদিস নং ১৪৬৩ – নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের জীবনকালে তাঁর ইহরামের অনুরূপ যিনি ইহরাম বেঁধেছেন।

হাদীস নং ১৪৬৩ মক্কী ইবনে ইবরাহীম রহ………জাবির রা. থেকে বর্ণিত যে, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আলী রা-কে ইহরাম বহাল… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৬৩ – নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের জীবনকালে তাঁর ইহরামের অনুরূপ যিনি ইহরাম বেঁধেছেন।

বুখারি হাদিস নং ১৪৬৬ – মহান আল্লাহর বাণী : “হজ্জ হয় সুবিদিত মাসগুলোতে। তারপর যে কেউ এ মাসগুলোতে হজ্জ করা স্থির করে, তার জন্য হজ্জের সময়ে স্ত্রী সম্ভোগ, অন্যায় আচরণ ও কলহ বিবাদ বিধেয় নয়”। (২ : ১৯৭)এবং “নতুন চাঁদ সম্পর্কে লোকেরা আপনাকে প্রশ্ন করে, বলুন, তা মানুষ এবং হজ্জের জন্য সময় নির্দেশ”। (২ : ১৮৯)।

হাদীস নং ১৪৬৬ মুহাম্মদ ইবনে বাশশার রহ……..আয়িশা রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, হজ্জের মাসে, হজ্জের দিনগুলোতে, হজ্জের মৌসুমে আমরা নবী… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৬৬ – মহান আল্লাহর বাণী : “হজ্জ হয় সুবিদিত মাসগুলোতে। তারপর যে কেউ এ মাসগুলোতে হজ্জ করা স্থির করে, তার জন্য হজ্জের সময়ে স্ত্রী সম্ভোগ, অন্যায় আচরণ ও কলহ বিবাদ বিধেয় নয়”। (২ : ১৯৭)এবং “নতুন চাঁদ সম্পর্কে লোকেরা আপনাকে প্রশ্ন করে, বলুন, তা মানুষ এবং হজ্জের জন্য সময় নির্দেশ”। (২ : ১৮৯)।

বুখারি হাদিস নং ১৪৬৭ – তামাত্তু, কিরান ও ইফরাদ হজ্জ করা এবং যার সাথে কুরবানীর পশু নেই তার জন্য হজ্জের ইহরাম ছেড়ে দেওয়া।

হাদীস নং ১৪৬৭ উসমান রহ……….আয়িশা রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমরা নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর সঙ্গে বের হলাম এবং… Read more বুখারি হাদিস নং ১৪৬৭ – তামাত্তু, কিরান ও ইফরাদ হজ্জ করা এবং যার সাথে কুরবানীর পশু নেই তার জন্য হজ্জের ইহরাম ছেড়ে দেওয়া।