মবি ডিক : হারম্যান মেলভিল

মবি ডিক : হারম্যান মেলভিল (Herman Melville) রূপান্তর : খসরু চৌধুরী

০০১-১০. আমাকে আপনারা ইসমাইল বলেই ডাকুন

মবি ডিক : হারমান মেলভিল অনুবাদ/রূপান্তর : খসরু চৌধুরী তিমি শিকারে যাবে বলে ন্যানটাকেট বন্দরে এল ইসমাইল, পরিচয় হল বর্বর, নরখাদক কুইকেগের সাথে। জাহাজে নাম লেখালো ওরা, একদিন রওনা হয়ে গেল সাগরে। তখন কি ওরা জানত, সাধারণ তিমি নয়, পেকোডের ক্যাপ্টেন শিকার করতে চান মবি ডিক...

০১১-২০. ঘুম সহজে আসতে চাইল না

১১. ঘুম সহজে আসতে চাইল না। মাঝরাতে উঠে হামাগুড়ি দেয়ার ভঙ্গীতে কিছুক্ষণ থাকার পর বসলাম আমরা। চোখ খুলব কি খুলব না করতে করতে খুলেই ফেললাম শেষ পর্যন্ত। ঘরের ভেতরে গাঢ় অন্ধকার, জানালার বাইরে ঝাপসা আলোর ক্ষীণ আভাস। জেগে যখন আছিই আলো জ্বালতে আপত্তি ছিল না আমার। কিন্তু তার...

০২১-৩০. আমরা যখন জেটিতে পৌঁছুলাম

২১. আমরা যখন জেটিতে পৌঁছুলাম, তখন প্রায় ছটা বাজে। কুয়াশাচ্ছন্ন ঊষা ধূসর চাদর বিছিয়ে রেখেছে চারপাশে। ওই দেখো, কয়েকজন নাবিক দৌড়াচ্ছে, বললাম আমি কুইকেগকে, জাহাজ মনে হয় সূর্য উঠলেই ছাড়বে। চলো, চলো! থামো! একটা স্বর ভেসে এল পেছন থেকে, আমাদের দুজনের কাঁধে হাত রেখে অদ্ভুত...

০৩১-৪০. এখন দুপুর

৩১. এখন দুপুর। স্টুয়ার্ড মাথা বের করে জানাল, ডিনার রেডি। বসে বসে অক্ষাংশের চার্ট দেখছিল ক্যাপটেন আহাব। এমনই গভীর তার মানোযোগ, যেন শুনতেই পায়নি স্টুয়ার্ডের ডাক। কিন্তু না। ডেকে এসে ডিনার, মি. স্টারবাক বলেই আবার কেবিনে অদৃশ্য হয়ে গেল সে। সুলতানের পদশব্দ মিলিয়ে যেতে উঠল...

০৪১-৫০. ডেকের উল্টো পাশে

৪১. ডেকের উল্টো পাশে দাঁড়ানো ভৌতিক মূর্তিগুলো খুলতে লাগল ওখানে বাধা নৌকোটা। স্টারবোর্ড কোয়ার্টারে থাকে বলে এটাকে, ক্যাপটেনের নৌকো বলো। বের দিকে দাঁড়িয়ে থাকা মূর্তিটা কালো। লম্বা, সাদা একটা ঝকঝকে দাঁত বেরিয়ে আছে ঠোঁটের ফাঁক দিয়ে মাথায় একটা পাগতি। অন্য চারজন এতটা কালো...

০৫১-৬০. ক্রোজেটস থেকে উত্তর-পুবে যেতে

৫১. ক্রোজেটস থেকে উত্তর-পুবে যেতে যেতে আমরা এসে পড়লাম ব্রিটের বিস্তীর্ণ সব খেতে। হলুদ এই খুদে উদ্ভিদগুলো রাইট তিমির প্রধান খাদ্য। লীগের পর লীগ ব্রিট দেখে মনে হচ্ছে, পেকোড যেন ঢুকে পড়েছে পাকা সোনালি গমের খেতে। দ্বিতীয় দিন চোখে পড়ল অনেক রাইট তিমি, হাঁ করে এদিক-সেদিক...

০৬১-৭০. শেকল টেনে নাও

৬১. শেকল টেনে নাও! মড়াটা ভেসে চলে যাক! তিমি কাটার কাজ শেষ হয়ে গেছে। চামড়া ছাড়ানো মুণ্ডহীন তিমিটাকে এখন মনে হচ্ছে মার্বেল পাথরের সমাধি। ঢেউয়ে ভাসতে ভাসতে ক্রমেই দূরে সরে যেতে লাগল তিমিটা, ওটাকে ঘিরে তখনও হুল্লোড় করছে অতৃপ্ত হাঙরের পাল। নিশ্চল জাহাজ থেকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা...

০৭১-৮০. পূর্বনির্ধারিত দিন এল

৭১. পূর্বনির্ধারিত দিন এল। যথাসময়ে জাফ্রাট জাহাজের সঙ্গে দেখা হলো আমাদের। একসময়ের সবচেয়ে বিখ্যাত তিমি শিকারী জাতি ডাচ আর জার্মানরা এখন তিমি শিকার প্রায় ছেড়েই দিয়েছে। প্রশান্ত মহাসাগরে কালেভদ্রে এখন চোখে পড়ে তাদের জাহাজ। দেখা করার জন্যে খুব আগ্রহ প্রকাশ পেল...

০৮১-৯০. যে-তিমিটার জন্যে এত কাণ্ড

৮১. যে-তিমিটার জন্যে এত কাণ্ড, সেটা অবশ্য মারা পড়েছিল। যথাসময়ে সেটাকে ঝোলানো হয়েছিল পেকোডের পাশে এবং কাটাকাটিও করা হয়েছিল। তিমি মারার পর কত কাজ থাকে। অনেকে শুধু বালতি টানাটানি করে। এক বালতি পার্মাসেটিতে ভরে গেলে সেটা সরিয়ে রেখে আনতে হয় আরেকটা বালতি। পরে এই ভরা...

০৯১-১০০. খোঁজ নিয়ে দেখা গেল

৯১. খোঁজ নিয়ে দেখা গেল, তেলের পিপেগুলো যেমন রাখা ছিল তেমনি আছে। তাহলে ফুটো হয়েছে নিশ্চয় আরও ভেতরে কোথাও। পানি, রুটি, গরুর মাংস, তক্তা, হুপ ওপরে তুলতে তুলতে খালি হয়ে গেল জাহাজের পেট। এই সময় দিন রাত কাজ করতে করতে জ্বরে পড়ল আমার পুরানো বন্ধু কুইকেগ। হ্যামকে শুইয়ে দেয়া...

১০১-শেষ. পরদিন সকালে ঝড়ের বেগ

১০১. পরদিন সকালে ঝড়ের বেগ কমে এলেও সাগরে এখনও উঠছে বড় বড় ঢেউ। মেঘের ফাঁকে ফাঁকে ছুরির ফলার মত আলো ছড়াচ্ছে সূর্য। এক পাশে সরে দাঁড়িয়ে আছে আহাব, মাঝে মাঝে সূর্যের তির্যক আলোর দিকে তাকিয়ে কি যেন অনুমানের চেষ্টা করছে। হঠাৎ হালের কাছে এগিয়ে এসে জানতে চাইল আহাব, পেকোড এখন...