লীলা

সিন্ধুভৈরবী           কেন    বাজাও কাঁকন কনকন, কত                             ছলভরে!           ওগো,  ঘরে ফিরে চলো, কনককলসে                             জল ভ’রে।           কেন   … Read more লীলা

সংকোচ

ছায়ানট যদি     বারণ কর, তবে                   গাহিব না। যদি     শরম লাগে, মুখে                   চাহিব না। যদি     বিরলে মালা গাঁথা        … Read more সংকোচ

সওগাত

পুজোর পরব কাছে। ভাণ্ডার নানা সামগ্রীতে ভরা। কত বেনারসি কাপড়, কত সোনার অলংকার; আর ভাণ্ড ভ’রে ক্ষীর দই, পাত্র ভ’রে… Read more সওগাত

সকরুণ বেণু বাজায়ে কে যায়

সকরুণ বেণু বাজায়ে কে যায় বিদেশী নায়ে,   তাহারি রাগিণী লাগিল গায়ে॥     সে সুর বাহিয়া ভেসে আসে কার   সুদূর বিরহবিধুর হিয়ার         অজানা বেদনা, সাগরবেলার   অধীর বায়ে                          বনের ছায়ে॥ তাই শুনে আজি বিজন প্রবাসে হৃদয়মাঝে   শরত্‍‌শিশিরে ভিজে ভৈরবী নীরবে বাজে।      ছবি মনে আসে আলোতে ও গীতে—  যেন জনহীন নদীপথটিতে          কে চলেছে জলে কলস ভরিতে   অলস পায়ে                          বনের ছায়ে॥  স্বরবিতান ১৩

সকরুণা

আলেয়া           সখী,    প্রতিদিন হায় এসে ফিরে যায় কে!           তারে   আমার মাথার একটি কুসুম দে।           যদি     শুধায় কে… Read more সকরুণা

সঙ্কোচের বিহ্বলতা নিজেরে অপমান

                সঙ্কোচের বিহ্বলতা নিজেরে অপমান,                 সঙ্কটের কল্পনাতে হোয়ো না ম্রিয়মাণ। মুক্ত করো ভয়,    আপনা-মাঝে শক্তি ধরো, নিজেরে করো জয়।                 দুর্বলেরে রক্ষা করো, দুর্জনেরে হানো,                 নিজেরে দীন নিঃসহায় যেন কভু না জানো। মুক্ত করো ভয়,    নিজের ‘পরে করিতে ভর না রেখো সংশয়।                 ধর্ম যবে শঙ্খরবে করিবে আহ্বান                 নীরব হয়ে নম্র হয়ে পণ করিয়ো প্রাণ। মুক্ত করো ভয়,    দুরূহ কাজে নিজেরই দিয়ো কঠিন পরিচয়॥

সতেরো বছর

আমি তার সতেরো বছরের জানা। কত আসাযাওয়া, কত দেখাদেখি, কত বলাবলি; তারই আশেপাশে কত স্বপ্ন, কত অনুমান, কত ইশারা; তারই… Read more সতেরো বছর

সমস্যাপূরণ

প্রথম পরিচ্ছেদ ঝিঁকড়াকোটার কৃষ্ণগোপাল সরকার জ্যেষ্ঠপুত্রের প্রতি জমিদারি এবং সংসারের ভার দিয়া কাশী চলিয়া গেলেন। দেশের যত অনাথ দরিদ্র লোক… Read more সমস্যাপূরণ

সমাপ্তি

প্রথম পরিচ্ছেদ অপূর্বকৃষ্ণ বি. এ. পাস করিয়া কলিকাতা হইতে দেশে ফিরিয়া আসিতেছেন। নদীটি ক্ষুদ্র। বর্ষা-অন্তে প্রায় শুকাইয়া যায়। এখন শ্রাবণের… Read more সমাপ্তি

সম্পাদক

আমার স্ত্রী-বর্তমানে প্রভা সম্বন্ধে আমার কোনো চিন্তা ছিল না। তখন প্রভা অপেক্ষা প্রভার মাতাকে লইয়া কিছু অধিক ব্যস্ত ছিলাম। তখন… Read more সম্পাদক

সাধন কি মোর আসন নেবে

          সাধন কি মোর আসন নেবে হট্টগোলের কাঁধে?           খাঁটি জিনিস হয় রে মাটি নেশার পরমাদে॥ কথায় তো শোধ হয় না দেনা,   গায়ের জোরে জোড় মেলে না—           গোলেমালে ফল কি ফলে জোড়াতাড়ার ছাঁদে?।           কে বলো তো বিধাতারে তাড়া দিয়ে ভোলায়?           সৃষ্টিকরের ধন কি মেলে জাদুকরের ঝোলায়? মস্ত-বড়োর লোভে শেষে               মস্ত ফাঁকি জোটে এসে,           ব্যস্ত-আশা জড়িয়ে পড়ে সর্বনাশার ফাঁদে॥ স্বরবিতান ৪৬

সার্থক জনম আমার

          সার্থক জনম আমার জন্মেছি এই দেশে।           সার্থক জনম, মা গো, তোমায় ভালোবেসে॥ জানি নে তোর ধনরতন   আছে কি না রানীর মতন, শুধু   জানি আমার অঙ্গ জুড়ায় তোমার ছায়ায় এসে॥ কোন্ বনেতে জানি নে ফুল   গন্ধে এমন করে আকুল,           কোন্ গগনে ওঠে রে চাঁদ এমন হাসি হেসে। আঁখি মেলে তোমার আলো   প্রথম আমার চোখ জুড়ালো,           ওই আলোতেই নয়ন রেখে মুদব নয়ন শেষে॥ ভারততীর্থ। স্বরবিতান ৪৬

সার্থকতা

            ফাল্গুনের সূর্য যবে দিল কর প্রসারিয়া সঙ্গীহীন দক্ষিণ অর্ণবে,     অতল বিরহ তার যুগযুগান্তের         উচ্ছ্বসিয়া ছুটে গেল নিত্য-অশান্তের… Read more সার্থকতা

সিদ্ধি

স্বর্গের অধিকারে মানুষ বাধা পাবে না, এই তার পণ। তাই, কঠিন সন্ধানে অমর হবার মন্ত্র সে শিখে নিয়েছে। এখন একলা… Read more সিদ্ধি