ভার

    তুমি যত ভার দিয়েছ সে ভার 
           করিয়া দিয়েছ সোজা , 
    আমি যত ভার জমিয়ে তুলেছি 
           সকলি হয়েছে বোঝা । 
    এ বোঝা আমার নামাও বন্ধু , 
                   নামাও— 
    ভারের বেগেতে চলেছি , আমার 
           এ যাত্রা তুমি থামাও । 
    যে তোমার ভার বহে কভু তার 
           সে ভারে ঢাকে না আঁখি , 
    পথে বাহিরিলে জগৎ তারে তো 
           দেয় না কিছুই ফাঁকি । 
    অবারিত আলো ধরে আসি তার 
                   হাতে— 
    বনে পাখি গায় , নদীধারা ধায় , 
           চলে সে সবার সাথে । 
  
    তুমি কাজ দিলে কাজেরই সঙ্গে 
           দাও যে অসীম ছুটি , 
    তোমার আদেশ আবরণ হয়ে 
           আকাশ লয় না লুটি । 
           বাসনায় মোরা বিশ্বজগৎ 
                   ঢাকি— 
    তোমা - পানে চেয়ে যত করি ভোগ 
           তত আরো থাকে বাকি । 
  
    আপনি যে দুখ ডেকে আনি সে যে 
           জ্বালায় বজ্রানলে— 
    অঙ্গার করে রেখে যায় , সেথা 
           কোনো ফল নাহি ফলে । 
    তুমি যাহা দাও সে যে দুঃখের 
                   দান , 
    শ্রাবণধারায় বেদনার রসে 
           সার্থক করে প্রাণ । 
  
    যেখানে যা - কিছু পেয়েছি কেবলি 
           সকলি করেছি জমা— 
    যে দেখে সে আজ মাগে যে হিসাব , 
           কেহ নাহি করে ক্ষমা । 
    এ বোঝা আমার নামাও বন্ধু , 
                    নামাও । 
    ভারের বেগেতে ঠেলিয়া চলেছে , 
           এ যাত্রা মোর থামাও । 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *