লীলা

    আমি      শরৎশেষের মেঘের মতো 
                    তোমার গগন - কোণে 
    সদাই            ফিরি অকারণে । 
              তুমি আমার চিরদিনের 
                    দিনমণি গো— 
              আজো তোমার কিরণপাতে 
              মিশিয়ে দিয়ে আলোর সাথে 
              দেয় নি মোরে বাষ্প ক'রে 
                    তোমার পরশনি । 
              তোমা হতে পৃথক হয়ে 
                    বৎসর মাস গনি। 
  
    ওগো ,   এমনি তোমার ইচ্ছা যদি , 
                     এমনি খেলা তব , 
    তবে             খেলাও নব নব । 
              লয়ে আমার তুচ্ছ কণিক 
                   ক্ষণিকতা গো— 
              সাজাও তারে বর্ণে বর্ণে , 
               ডুবাও তারে তোমার স্বর্ণে , 
              বায়ুর স্রোতে ভাসিয়ে তারে 
                   খেলাও যথা - তথা । 
              শূন্য আমায় নিয়ে রচ 
                   নিত্যবিচিত্রতা । 
    ওগো ,   আবার যবে ইচ্ছা হবে 
                   সাঙ্গ কোরো খেলা 
    ঘোর            নিশীথরাত্রিবেলা । 
              অশ্রুধারে ঝরে যাব 
                   অন্ধকারে গো— 
              প্রভাতকালে রবে কেবল 
              নির্মলতা শুভ্রশীতল , 
              রেখাবিহীন মুক্ত আকাশ 
                   হাসবে চারি ধারে । 
              মেঘের খেলা মিশিয়ে যাবে 
                   জ্যোতিসাগরপারে । 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *