বুখারি হাদিস নং ১০১৯ – কসর সম্পর্কে বর্ণনা এবং কতদিন অবস্থান পর্যন্ত কসর করবে।

হাদীস নং ১০১৯ মূসা ইবনে ইসমাঈল রহ……….ইবনে আব্বাস রা, থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম একবার সফরে… Read more বুখারি হাদিস নং ১০১৯ – কসর সম্পর্কে বর্ণনা এবং কতদিন অবস্থান পর্যন্ত কসর করবে।

বুখারি হাদিস নং ১০২১ – মিনায় সালাত।

হাদীস নং ১০২১ মুসাদ্দাদ রহ………আবদুল্লাহ ইবনে উমর রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আবু বকর… Read more বুখারি হাদিস নং ১০২১ – মিনায় সালাত।

বুখারি হাদিস নং ১০২৪ – নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বিদায় হজ্জে কত দিন অবস্থান করেছিলেন ?

হাদীস নং ১০২৪ মূসা ইবনে ইসমাঈল রহ…….ইবনে আব্বাস রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এবং তাঁর… Read more বুখারি হাদিস নং ১০২৪ – নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বিদায় হজ্জে কত দিন অবস্থান করেছিলেন ?

বুখারি হাদিস নং ১০২৫ – কত দিনের সফরে সালাত কসর করবে

হাদীস নং ১০২৫ ইসহাক ইবনে ইবরাহীম রহ………….ইবনে উমর রা. থেকে বর্ণিত, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন : কোন মহিলাই… Read more বুখারি হাদিস নং ১০২৫ – কত দিনের সফরে সালাত কসর করবে

বুখারি হাদিস নং ১০২৮ – যখন নিজ আবাসস্থল থেকে বের হবে তখন থেকেই কসর করবে।

হাদীস নং ১০২৮ আবু নুআইম রহ………আনাস ইবনে মালিক রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম -এর… Read more বুখারি হাদিস নং ১০২৮ – যখন নিজ আবাসস্থল থেকে বের হবে তখন থেকেই কসর করবে।

বুখারি হাদিস নং ১০৩০ – সফরে মাগরিবের সালাত তিন রাকাআত আদায় করা।

হাদীস নং ১০৩০ আবুল ইয়ামান রহ……..আবদুল্লাহ ইবনে উমর রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম -কে… Read more বুখারি হাদিস নং ১০৩০ – সফরে মাগরিবের সালাত তিন রাকাআত আদায় করা।

বুখারি হাদিস নং ১০৩১ – সাওয়ারীর উপর সাওয়ারী যে দিকে মুখ করে সেদিকে ফিরে নফল সালাত আদায় করা।

হাদীস নং ১০৩১ আলী ইবনে আবদুল্লাহ রহ……….আমির রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম -কে দেখেছি,… Read more বুখারি হাদিস নং ১০৩১ – সাওয়ারীর উপর সাওয়ারী যে দিকে মুখ করে সেদিকে ফিরে নফল সালাত আদায় করা।

বুখারি হাদিস নং ১০৩৪ – জন্তুর উপর ইশারায় সালাত আদায় করা।

হাদীস নং ১০৩৪ মূসা ইবনে ইসমাঈল রহ………আবদুল্লাহ ইবনে দীনার রহ. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আবদুল্লাহ ইবনে উমর রা. সফরে সাওয়ারী… Read more বুখারি হাদিস নং ১০৩৪ – জন্তুর উপর ইশারায় সালাত আদায় করা।

বুখারি হাদিস নং ১০৩৫ – ফরয সালাতের জন্য সাওয়ারী থেকে অবতরণ করা।

হাদীস নং ১০৩৫ ইয়াহইয়া ইবনে বুকাইর রহ………আমির ইবনে রাবীআ রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম… Read more বুখারি হাদিস নং ১০৩৫ – ফরয সালাতের জন্য সাওয়ারী থেকে অবতরণ করা।

বুখারি হাদিস নং ১০৩৭ – গাধার উপর নফল সালাত আদায় করা।

হাদীস নং ১০৩৭ আহমদ ইবনে সাঈদ রহ………আনাস ইবনে সীরীন রহ. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আনাস ইবনে মালিক রা. যখন শাম… Read more বুখারি হাদিস নং ১০৩৭ – গাধার উপর নফল সালাত আদায় করা।

বুখারি হাদিস নং ১০৩৮ – সফরকালে ফরয সালাতের আগে ও পরে নফল সালাত আদায় না করা।

হাদীস নং ১০৩৮ ইয়াহইয়া ইবনে সুলাইমান রহ………হাফস ইবনে আসিম রা. থেকে বর্ণিত যে, ইবনে উমর রা. একবার সফর করেন এবং… Read more বুখারি হাদিস নং ১০৩৮ – সফরকালে ফরয সালাতের আগে ও পরে নফল সালাত আদায় না করা।

বুখারি হাদিস নং ১০৩৯ – সফরকালে ফরয সালাতের আগে ও পরে নফল সালাত আদায় না করা।

হাদীস নং ১০৩৯ মুসাদ্দাদ রহ………হাফস ইবনে আসিম রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, ইবনে উমর রা. -কে বলতে শুনেছি যে, আমি… Read more বুখারি হাদিস নং ১০৩৯ – সফরকালে ফরয সালাতের আগে ও পরে নফল সালাত আদায় না করা।

বুখারি হাদিস নং ১০৪০ – সফরে ফরয সালাতের আগে ও পরে নফল আদায় করা। সফরে নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ফজরের দু’রাকাআত (সুন্নাত) আদায় করেছেন ।

হাদীস নং ১০৪০ হাফস ইবনে উমর রহ………..ইবনে আবু লায়লা রহ. থেকে বর্ণিত, উম্মে হানী রা. ব্যতীত অন্য কেউ নবী করীম… Read more বুখারি হাদিস নং ১০৪০ – সফরে ফরয সালাতের আগে ও পরে নফল আদায় করা। সফরে নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ফজরের দু’রাকাআত (সুন্নাত) আদায় করেছেন ।

বুখারি হাদিস নং ১০৪২ – সফরে মাগরিব ও ইশার সালাত একত্রে আদায় করা।

হাদীস নং ১০৪২ আলী ইবনে আবদুল্লাহ রহ……….ইবনে উমর রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যখন দ্রুত… Read more বুখারি হাদিস নং ১০৪২ – সফরে মাগরিব ও ইশার সালাত একত্রে আদায় করা।

বুখারি হাদিস নং ১০৪৩ – মাগরিব ও ইশা একত্রে আদায় করলে আযান দিবে, না ইকামত ?

হাদীস নং ১০৪৩ আবুল ইয়ামান রহ………আবদুল্লাহ ইবনে উমর রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম -কে… Read more বুখারি হাদিস নং ১০৪৩ – মাগরিব ও ইশা একত্রে আদায় করলে আযান দিবে, না ইকামত ?

বুখারি হাদিস নং ১০৪৫ – সূর্য ঢলে পড়ার আগে সফরে রওয়ানা হলে যুহরের সালাত আসরের সময় পর্যন্ত বিলম্বিত করা।

হাদীস নং ১০৪৫ হাসসান ওয়াসেতী রহ……….আনাস ইবনে মালিক রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সূর্য ঢলে… Read more বুখারি হাদিস নং ১০৪৫ – সূর্য ঢলে পড়ার আগে সফরে রওয়ানা হলে যুহরের সালাত আসরের সময় পর্যন্ত বিলম্বিত করা।

বুখারি হাদিস নং ১০৪৬ – সূর্য ঢলে পড়ার পর সফর শুরু করলে যুহরের সলাত আদায় করে সাওয়ারীতে আরোহণ করা।

হাদীস নং ১০৪৬ কুতাইবা ইবনে সাঈদ রহ……….আনাস ইবনে মালিক রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সূর্য… Read more বুখারি হাদিস নং ১০৪৬ – সূর্য ঢলে পড়ার পর সফর শুরু করলে যুহরের সলাত আদায় করে সাওয়ারীতে আরোহণ করা।

বুখারি হাদিস নং ১০৪৭ – উপবিষ্ট ব্যক্তির সালাত ।

হাদীস নং ১০৪৭ কুতাইবা ইবনে সাঈদ রহ………আয়িশা রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাঁর ঘরে সালাত… Read more বুখারি হাদিস নং ১০৪৭ – উপবিষ্ট ব্যক্তির সালাত ।

বুখারি হাদিস নং ১০৫০ – উপবিষ্ট ব্যক্তির ইশারায় সালাত আদায়।

হাদীস নং ১০৫০ আবু মামার রহ……ইমরান ইবনে হুসাইন রা. থেকে বর্ণিত, তিনি ছিলেন অর্শরোগী, তিনি বলেন, আমি নবী করীম সাল্লাল্লাহু… Read more বুখারি হাদিস নং ১০৫০ – উপবিষ্ট ব্যক্তির ইশারায় সালাত আদায়।

বুখারি হাদিস নং ১০৫১ – বসে সালাত আদায় করতে না পারলে কাত হয়ে শুয়ে সালাত আদায় করবে।

হাদীস নং ১০৫১ আবদান রহ………ইমরান ইবনে হুসাইন রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমার অর্শরোগ ছিল। তাই নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি… Read more বুখারি হাদিস নং ১০৫১ – বসে সালাত আদায় করতে না পারলে কাত হয়ে শুয়ে সালাত আদায় করবে।

বুখারি হাদিস নং ১০৫২ – বসে সালাত আদায় করা অবস্থায় সুস্থ হয়ে গেলে কিংবা একটু হালকাবোধ করলে, বাকী সালাত (দাঁড়িয়ে) পূর্ণভাবে আদায় করবে।

হাদীস নং ১০৫২ আবদুল্লাহ ইবনে ইউসুফ রহ……..উম্মুল মু’মিনীন আয়িশা রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম -কে… Read more বুখারি হাদিস নং ১০৫২ – বসে সালাত আদায় করা অবস্থায় সুস্থ হয়ে গেলে কিংবা একটু হালকাবোধ করলে, বাকী সালাত (দাঁড়িয়ে) পূর্ণভাবে আদায় করবে।