সনেট-পঞ্চাশৎ (১৯১৩) (কাব্যগ্রন্থ)

সনেট-পঞ্চাশৎ (১৯১৩) - কাব্যগ্রন্থ - প্রমথ চৌধুরী। ফাল্গুন, ১৯১৩। কলিকাতা ১৩ নং শিবনারায়ণ দাসের লেনস্থিত সিদ্ধেশ্বর মেসিন প্রেস হইতে শ্ৰীঅবিনাশচন্দ্র মণ্ডল দ্বারা মুদ্রিত ও প্রকাশিত।মূল্য আট আনা।

BERNARD SHAW

BERNARD SHAW সভ্যতার প্রিয়শত্রু, বার্ণার্ড্‌ শ, সমাজের তুমি দেখ শৃঙ্খল আচার, শিকল-বিকল-মন মানুষ নাচার, তব শাস্ত্র শুনে তাই তারা হয় থ! মানুষেতে ভালবাসে হ য ব র ল, তারি লাগি সয় তারা শত অত্যাচার। স্পষ্ট বাক্যে প্রাণ পায়, যে করে বিচার,— অন্যের পায়ের নীচে পড়ে’ যায়...

অন্বেষণ

অন্বেষণ আজিও জানিনে আমি হেথায় কি চাই! কখনো রূপেতে খুঁজি নয়ন উৎসব, পিপাসা মিটাতে চাই ফুলের আসব, কভু বসি যোগাসনে, অঙ্গে মেখে ছাই॥ কখনো বিজ্ঞানে করি প্রকৃতি যাচাই, খুঁজি তারে যার গর্ভে জগৎ প্রসব, পূজা করি নির্ব্বিচারে শিব কি কেশব,— আজিও জানিনে আমি তাহে কিবা পাই॥ রূপের...

অপরাহ্ন

অপরাহ্ন গোলাপ, গোলাপ, শুধু গোলাপের রাশি! গোলাপের রং ছিল অনন্ত আকাশে, গোলাপের গন্ধ ছিল ধরাতে বাতাসে, নারীর অধরে ছিল গোলাপের হাসি॥ রং এবে গেছে জ্বলে’, গন্ধ হ’ল বাসি। শুখানো পাতার রাশি ওড়ে চারিপাশে, বসন্ত নিদাঘে পুড়ে ছাই হ’য়ে আসে, পৃথিবীতে মনে হয় হয়েছি প্রবাসী॥...

আত্মকথা

আত্মকথা কবিতা আমার জানি, যেমন শঙ্কুর, দু’দিনে সবাই যাবে বেবাক্‌ ভুলিয়ে! কল্পনা রাখিনে আমি আকাশে তুলিয়ে,— নহি কবি ধূমপায়ী, নলে ত্ৰিবঙ্কুর॥ হৃদয়ে জন্মিলে মোর ভাবের অঙ্কুর, ওঠে না তাহার ফুল শূন্যেতে দুলিয়ে। প্রিয়া মোর নারী শুধু, থাকেনা ঝুলিয়ে,...

আত্মপ্রকাশ

আত্মপ্রকাশ প্রকৃতিরই অংশে গড়া আমাদের মন। বিশ্বছবি দেখি স্পষ্ট রহিয়াছে আঁকা, বিশ্বের হৃদয় কিন্তু বিশ্বদেহে ঢাকা, আভাসে প্রকাশ তার, আসল গোপন॥ সবারই অন্তরে আছে গুপ্ত নিকেতন, মনোপাখী সুপ্ত যাহে, গুটাইয়া পাখা। সে নিদ্রা যোগীরা জানে পূর্ণ জেগে থাকা,— খুলে বলা বৃথা...

উপদেশ

উপদেশ প্রিয় কবি হ’তে চাও, লেখো ভালবাসা, যা’ পড়ে’ গলিয়া যাবে পাঠকের মন। তার লাগি চাই কিন্তু দু’টি আয়োজন,— জোর-করা ভাব, আর ধার-করা ভাষা! বড় কবি কিম্বা হ’তে যদি তব আশা, ভাবুক বলিবে তোমা জন-সাধারণ, শেখো যদি সমাজের, করি প্রাণপণ,— দরকারি ভাব, আর সরকারি ভাষা! যত যাবে...

একদিন

একদিন একদিন একা বসি, শিরে রাখি কর, একমনে করি যবে কবিতা বয়ন, শব্দের কুসুম করি স্মৃতিতে চয়ন,— সহসা ফুলের গন্ধে ভরে’ গেল ঘর। তখন ছিল না কিছু ইন্দ্রিয়গোচর, সুপ্ত ভাব, ত্যজি মোর হৃদয়-শয়ন, উঠেছিল সেই ক্ষণে মেলিয়া নয়ন,— ফুলের নিঃশ্বাস প’ল চুলের উপর॥ লিখিয়াছি সবে যবে...

করবী

করবী সুপ্ত গন্ধ, গুপ্ত বর্ণ তোমার, করবি! শক্তি-বীজ-মন্ত্র আমি দিয়া তব কানে, সৌরভ জাগাতে চাহি প্রণয়ের টানে, গৌরবে তোমায় করি ফুলের ভারবি! তরুণ অরুণ রাগে রঞ্জিত ভৈরবী, জীবনের পূর্ব্বরাগ আছে তার গানে। সেই রাগ পূর্ণ হয় সারঙ্গের তানে, আলিঙ্গন করে যবে মধ্যাহ্নের রবি॥...

কাঁঠালী চাঁপা

কাঁঠালী চাঁপা গড়নে গহনা বটে, রঙেতে সবুজ,— ফুলের সবর্ণ নহ, বর্ণচোরা চাঁপা! বৃথা তব গন্ধভারে গর্ব্বভরে কাঁপা, ফিরেও চাহে না তোমা নয়ন অবুঝ॥ নেত্রধৰ্ম্ম খুঁজে ফেরা গোলাপ, অম্বুজ। উপেক্ষিতা আছ তুমি, হয়ে পাতা-চাপা। তোমার কাঁঠালী গন্ধ নাহি রহে ছাপা,— ছুটে আসে, ভেদ করি...

কাঠ-মল্লিকা

কাঠ-মল্লিকা তুমি নহ রক্তজবা অথবা পলাশ, আগুন জ্বালিয়ে বন আলো করে যারা, —যে দিব্য অনলে পুড়ে কাম অঙ্গহারা, যে আলো ধরায় করে নকল-কৈলাস! তুমি নহ মানবের নয়ন-বিলাস, রতি-ভর তনু তব হিম-বিন্দু পারা,— গন্ধ তব ভেদ করি শ্যামপত্র-কারা, মুক্ত হ’য়ে ব্যক্ত করে মন-অভিলাষ॥ গুপ্ত...

গোলাপ

গোলাপ রূপে গন্ধে মানি তুমি জগতে অতুল, পূজায় লাগে না কিন্তু, অনাৰ্য্য গোলাপ! দেমাকে দেবতাসনে করোনা আলাপ,— ফুলের নবাব তুমি, নবাবের ফুল! ইরাণের ভগ্নোদ্যানে বসি বুলবুল, স্মরিয়া স্মরিয়া তোমা করিছে বিলাপ। তুমি কিন্তু রমণীর কেশের কলাপ আলো করে’ বসো, কিম্বা কর্ণে হও দুল॥...

জয়দেব

জয়দেব ললিত লবঙ্গলতা তুলায় পবনে। বর্ণে গন্ধে মাখামাখি, বসন্তে অনঙ্গে। নূপুর-ঝঙ্কারে আর গীতের তরঙ্গে, ইন্দ্রিয় অবশ হয় তব কুঞ্জবনে॥ উন্মদ মদনরাগ জাগালে যৌবনে, রতিমন্ত্র কবিগুরু দীক্ষা দিলে বঙ্গে। রণক্ষত-চিহ্ণ তাই অবলার অঙ্গে, পৌরুষের পরিচয় আশ্লেষে চুম্বনে॥ পাণির...

তাজমহল

তাজমহল সাজাহাঁর শুভ্রকীৰ্ত্তি, অটল সুন্দর! অক্ষুণ্ণ অজর দেহ মৰ্ম্মরে রচিত, নীলা পান্না পোখ্‌রাজে অন্তর খচিত। তুমি হাস, কোথা আজ দারা সেকন্দর? সকলি সদর তব, নাহিক অন্দর, ব্যক্ত রূপ স্তরে স্তরে রয়েছে সঞ্চিত। প্রেমের রহস্যে কিন্তু একান্ত বঞ্চিত, ছায়ামায়াশূন্য তব...

ধরণী

ধরণী কে বলে পৃথিবী এবে হয়েছে প্রাচীন? আজিও বসন্তে এসে কোকিল পাপিয়া মুক্তকণ্ঠে তারস্বরে ডাকে “পিয়া” “পিয়া”,— বাৰ্দ্ধক্যের পক্ষে সেত নহে সমীচীন! বাৰ্দ্ধক্যের স্বপ্ন দেখে যত অৰ্ব্বাচীন, যৌবন যাহার রাখে ভয়েতে চাপিয়া। হ্যা দেখ, প্রাণের টানে উঠেছে কাঁপিয়া, চিরকেলে...

ধুতুরার ফুল

ধুতুরার ফুল ভাল আমি নাহি বাসি নামজাদা ফুল,— নারীর আদর পেয়ে যারা হয় ধন্য, ফুলের বাজারে যারা হইয়াছে পণ্য, কবিরা যাদের নিয়ে করে হুলস্থূল। বিলাসীর কিন্তু যারা অতি চক্ষুশূল, রূপে গন্ধে ফুল মাঝে যাহারা নগণ্য, বসন্ত কি কন্দর্পের যারা নয় সৈন্য, যার দিকে কভু নাহি ঝোঁকে...

পত্রলেখা

পত্রলেখা অষ্টাদশ বর্ষ দেশে অাছ পত্ৰলেখা! শুক-মুখে শুনিয়াছি তোমার সন্দেশ। তাম্বুল-করঙ্ক করে, রক্ত পট্টবেশ, প্ৰগল্‌ভ বচন, রাজ-অন্তঃপুরে শেখা॥ কাব্য-রাজ্যে তব সনে নিমেষের দেখা। সুবর্ণ-মেখলাস্পর্শী মুক্ত তব কেশ,— অশ্বপৃষ্ঠে রাজপুত্র যায় দূর দেশ, অঙ্কে তার আঁকা তুমি...

পাষাণী

পাষাণী কত না ক’রেছি আমি তোমায় আদর, চঞ্চল হয়নি তব নয়ন-কুরঙ্গ। সুবর্ণ কঠিন তব হৃদয়-নারঙ্গ, খোলনি সরিয়ে কভু বুকের চাদর॥ যৌবনে আসেনি তব শ্রাবণ ভাদর, ছাপিয়ে ওঠেনি বুকে বাসনা-তরঙ্গ। মেঘ-রাগে বাঁধো নাই হৃদয়-সারঙ্গ, তব মন নাহি জানে বিদ্যুৎ বাদর॥ তব প্রাণে ভালবাসা...

বন্ধুর প্রতি

বন্ধুর প্রতি বড় সাধ ছিল তব, করে ধরি’ বীণ, বাজাতে অপূর্ব্ব রাগ যৌবনের সুরে, মুমূর্ষু মুমুক্ষু সবে দিয়ে যমপুরে, তব গীতমন্ত্রে ধরা করিতে নবীন! কল্পনার ছিল তব চক্ষে দূরবীণ। অসীম আকাশদেশে দূর হতে দূরে খুঁজিতে কোথায় কোন্ নব জ্যোতি স্ফুরে, যার আলো জয় করে অাঁধার প্রবীণ॥...

বসন্তসেনা

বসন্তসেনা তুমি নও রত্নাবলী, কিম্বা মালবিকা, রাজোদ্যানে বৃন্তচ্যুত শুভ্ৰ শেফালিকা। অনাঘ্ৰাত পুষ্প নও, আশ্রমবালিকা,— বিলাসের পণ্য ছিলে, ফুলের মালিকা॥ রঙ্গালয় নয় তব পুষ্পের বাটিকা, অভিনয় কর নাই প্রণয়-নাটিকা। তব আলো ঘিরে ছিল পাপ-কুজ্ঝটিকা,— ধরণী জেনেছ তুমি মৃৎ-শকটিকা!...

বাঙ্গলার যমুনা

বাঙ্গলার যমুনা তুমি নহ শ্যামা তন্বী বৃন্দাবন-পাশে, তীরে যার সারি সারি কদম্ব বকুল, কৃষ্ণ যেথা বেণুতানে মাতায় গোকুল, নৃত্য করে লীলাভরে গোপীসনে রাসে॥ উজান বহ না তুমি ঢলিয়া বিলাসে,— সুমুখে ছুটিয়া চল উদ্দাম ব্যাকুল, মাটি নিয়ে খেলা কর, ভেঙ্গে দুটি কূল, সীমায় আবদ্ধ নহ,...