০১. সাগর-সৈকত হোটেল

ঠিক সমুদ্রের উপকূল ঘেষে ‘সাগর-সৈকত’ হোটেলটি। বলতে গেলে ছোটখাটো শহরটি যেন গড়ে উঠেছে সাগরেরই কূল ঘেষে। শহরটিতে নানা শ্রেণীর স্বাস্থ্যান্বেষীদের… Read more ০১. সাগর-সৈকত হোটেল

০৩. হিরন্ময়ী দেবীই প্রথমে কথা বললেন

হিরন্ময়ী দেবীই প্রথমে কথা বললেন, সীতার কুকুর টাইগারটা অমন করে চেঁচাচ্ছে কেন? কিরীটী ততক্ষণে চেয়ার ছেড়ে উঠে দাঁড়িয়েছে। হরবিলাসবাবুর দিকে… Read more ০৩. হিরন্ময়ী দেবীই প্রথমে কথা বললেন

০৪. ভদ্রমহিলা রাণুর দিকে তাকিয়ে

এরা কে রাণু? ভদ্রমহিলা রাণুর দিকে তাকিয়ে আমাদের ইঙ্গিত করে প্রশ্ন করলেন। রাণু যেন শতদলের আকস্মিক অন্তর্ধানে কতকটা আরাম অনুভব… Read more ০৪. ভদ্রমহিলা রাণুর দিকে তাকিয়ে

০৫. শতদলবাবুর কথায় তাকিয়ে দেখলাম

শতদলবাবুর কথায় তাকিয়ে দেখলাম, সত্যিই ঘরময় ছোট-বড় কাঁচের টুকরো ইতস্তত বিক্ষিপ্ত হয়ে আছে। কিরীটী সাবধানে পা ফেলে এগুতে এগুতে বললে,… Read more ০৫. শতদলবাবুর কথায় তাকিয়ে দেখলাম

০৭. দ্বিতীয় প্রশ্ন করল কিরীটী

শতদলবাবু বাড়িতে ফিরে এসেছেন, অবিনাশ? দ্বিতীয় প্রশ্ন করল কিরীটী অবিনাশের দিকে তাকিয়ে। আজ্ঞে, কই না! দাদাবাবু তো এখনও ফেরেননি বাবু।… Read more ০৭. দ্বিতীয় প্রশ্ন করল কিরীটী

০৯. শেষ নির্দেশ

আমার আত্মীয়দের প্রতি—ইহাই আমার শেষ নির্দেশ             (৩)         সজ্ঞানে লিখিয়া যাইতেছি, রণধীর চৌধুরী আমি                  (০)         আমার যাবতীয় সম্পত্তি ও… Read more ০৯. শেষ নির্দেশ

১০. এগিয়ে আসছে ছায়া-মূর্তি দুটো

এই দিকে এগিয়ে আসছে ছায়া-মূর্তি দুটো। কাছে—আরো কাছে। ততক্ষণে তাদের অস্পষ্ট কথাবার্তার দু-একটা টুকরো টুকরো শব্দও কানে আসছে। চমকে উঠলাম… Read more ১০. এগিয়ে আসছে ছায়া-মূর্তি দুটো

১১. হাঁটতে হাঁটতে হোটেলের প্রায় কাছাকাছি

ইতিমধ্যে আমরা হাঁটতে হাঁটতে হোটেলের প্রায় কাছাকাছি এসে পড়েছিলাম। হাতঘড়ির রেডিয়ম-ডায়েলের দিকে তাকিয়ে দেখি রাত প্রায় দেড়টা। কুব্জী মন্থরা বা… Read more ১১. হাঁটতে হাঁটতে হোটেলের প্রায় কাছাকাছি

১৩. একজন সুশ্রী সুবেশা মহিলা

বাইশ-তেইশ বৎসর বয়সের একজন সুশ্রী সুবেশা মহিলা কিছু রক্তলাল গোলাপ ও এক বাক্স মিষ্টি-কড়াপাকের সন্দেশ-সঙ্গে নিয়ে শতদলবাবুর সঙ্গে দেখা করতে… Read more ১৩. একজন সুশ্রী সুবেশা মহিলা

১৫. হিরণ্ময়ী দেবীর কণ্ঠস্বর

হিরণ্ময়ী দেবীর কণ্ঠস্বরটা যেন মুহূর্তে একটা মোচড় দিয়ে আমাদের সকলের মনই তাঁর দিকে আকর্ষণ করল। তাঁর দু চোখের ব্যগ্র উৎকণ্ঠিত… Read more ১৫. হিরণ্ময়ী দেবীর কণ্ঠস্বর

১৬. দেওয়ালে টাঙানো অয়েল-পেন্টিং

আমি তাকিয়ে ছিলাম দেওয়ালে টাঙানো পাশাপাশি অয়েল-পেন্টিং দুটোর দিকে। সোমলতা আর বনলতা শিল্পী রণধীর চৌধুরীর দুই মেয়ে। টুইন যমজ বোন।… Read more ১৬. দেওয়ালে টাঙানো অয়েল-পেন্টিং

১৮. রাস্তায় পৌঁছে হনহন করে

রাস্তায় পৌঁছে হনহন করে হাঁটতে শুরু করে। আমি আর কুমারেশবাবু তাকে অনুসরণ করি। কিরীটীর শেষের কথাগুলো সমস্ত সংশয়ের অবসান ঘটিয়েছে।… Read more ১৮. রাস্তায় পৌঁছে হনহন করে

১৯. নিরালাতেই আমরা সকলে উপস্থিত ছিলাম

নিরালাতেই আমরা সকলে উপস্থিত ছিলাম—আমি, হিরণ্ময়ী দেবী, হরবিলাস, কুমারেশ, রাণু, কবিতা গুহ ও ঘোষাল। এবং ঘোষাল সাহেবের অনুরোধেই কিরীটী নিরালা… Read more ১৯. নিরালাতেই আমরা সকলে উপস্থিত ছিলাম