বাউল গান

আমি কে চিনবি যদি জ্বাল ঘরে জ্ঞানের বাতি

আমি কে চিনবি যদি জ্বাল ঘরে জ্ঞানের বাতি। ঘরে আলো হবে আঁধার যাবে, দেখবি স্পষ্ট স্বরূপ জ্যোতি।। ব্যঞ্জনবর্ণ দেহের মাঝে, স্বরবর্ণ কে বিরাজে। একই পরমাতা এই যে এই দেহে স্থিতি আমি ভিন্ন নাই আর অন্য, আমি ভিন্ন নাই রে গতি। ভেবে দেখ সোহং সত্য, মাঝেতে অহংও সত্য। জীবাত্মা...

আমি গান গাইতে জানিনা (গানে মিলে প্রাণের সন্ধান)

গানে মিলে প্রাণের সন্ধান, সেই গান গাওয়া হলনা আমি গান গাইতে জানিনা ।। জানিনা ভাব-ক্রান্তি গাইতে পারিনা সেই গান যেই গান গাইলে মিলে আঁধারে আলোর সন্ধান গাইলেন লালন, রাধা রমণ, হাসন রাজা দেওয়ানা আমি গান গাইতে জানিনা ।। বাউল মুকুন্দ দাস গেয়েছেন দেশেরই গান বিদ্রোহী নজরুলের...

আমি জানছিলাম নি ঐ রঙ্গে দিন যাবে

আমি জানছিলাম নি ঐ রঙ্গে দিন যাবে রে সুজন নাইয়া পার করো দুঃখিনী রাধারে তুমি তো সুজন নাইয়া আমি তো গোয়ালের মাইয়ারে ওরে নাইয়া… তুমি নষ্ট করলা দুধের ভাণ্ড চইয়ারে পার করো দুঃখিনী রাধারে কুক্ষণে বাড়াইলাম পাও খেয়া ঘাটে নাই মোর নাও রে ওরে নাইয়া… আমার খেওয়ানিরে...

আমি জানিতে চাই দয়াল

আমি জানিতে চাই দয়াল তোমার আসল নামটি কি আমরা বহুনামে ধরাধামে কত রকমে ডাকি কেউ তোমায় বলে ভগবান আর গড কেউ করে আহ্বান কেউ খোদা কেউ জিহুদা কেউ কয় পাপীয়ান গাইলাম জনম ভরে মুখস্থ গান মুখ বুলা টিয়াপাখী সর্বশাস্ত্রে শুনিতে যে পাই দয়াল তোমার নাকি মাতাপিতা নাই তবে তোমার নামকরন কে...

আমি তো আসল বিলাতি

আমি তো আসল বিলাতি, আমি নয় কোন অন্য জাতি। বিলাত সেই গঞ্চজাতে, ছিলাম আমি জাতে জাতে আসি আহাদত সেফাতে ভুলি এস্কে মাতি। সুমিষ্ট নিয়ামত খেতে, বিলাত হতে আসি ভারতে। আসি সুয়েজ খালের পথে, আফগানে করে স্থিতি। পাঞ্জাবের রাজধানী লাহাের, সেথায় এসে সে শহর ফলে ফুলে শোভে শহর, করেছিলাম...

আমি তোমার কাঙ্গালী গো সুন্দরী রাধা

আমি তোমার কাঙ্গালী গো সুন্দরী রাধা, আমি তোমার কাঙ্গালী গো | তোমার লাগিয়া কন্দিয়া ফিরে, হাছন রাজা কাঙ্গালী গো || তোমার প্রেমে হাছন রাজার, মনে হুতাশন | একবার আসি হৃদকমলে, করয়ে আসন || আইস আউস প্রাণ প্রিয়সী ধরি তোমার পায় | তোমায় না দেখিলে আমার, জ্বলিয়ে প্রাণ যায় || ছট্...

আমি তোমায় ডাকি গুরু হে

আমি তোমায় ডাকি গুরু হে ডাক দিলে ডাক শুনো না । সাধন-ভজন কিছুই জানি না ।। গুরু গুরু আমি তোমার অধম ভক্ত লোহা হতে অধিক শক্ত আগুন দিলে লোহা গলে গুরু আমার মন তো গলে না ।। ভাইবে রাধারমণ বলে ভবে আইলাম অকারণে আমার মনের এই বাসনা, গুরু রাঙাচরণ ছাড়ব না।।...

আমি দুগ্ধ তুমি মাখন, আমি পাথর তুমি আগুন

আমি দুগ্ধ তুমি মাখন, আমি পাথর তুমি আগুন আমি ফুল তুমি ঘ্রাণ — রাখছি জাত সিফাতে চাঁদের চাঁদনী যেমন, সূর্যের মধ্যে ধূপের কিরণ। আবের মধ্যে বিজলি গোপন, এইরূপে রয় জাত সিফাতে জাতে সিফাত সিফাতে জাত, আমি তুমি নয়কো তফাত তুমি আছ নসরের সাথ, খেতে শুতে পথে যেতে।...

আমি না লইলাম আল্লাজির নাম

আমি না লইলাম আল্লাজির নাম | না কইলাম তার কাম | বৃথা কাজে হাছন রাজায় দিন গুয়াইলাম || ভবের কাজে মত্ত হইয়া দিন গেল গইয়া | আপন কার্য না করিলাম, রহিলাম ভুলিয়া || নাম লইব নাম লইব করিয়া আয়ু হইল শেষ | এখনও না করিলাম প্রাণ বন্ধের উদ্দেশ || আশয় বিষয় পাইয়া হাছন (তুমি) কর জমিদারি...

আমি ফুল বন্ধু ফুলের ভ্রমরা

আমি ফুল, বন্ধু ফুলের ভ্রমরা। কেমন ভুলিবো আমি বাঁচি না তারে ছাড়া ॥ না আসিলে কালো ভ্রমর, কে হবে যৌবনের দোসর। ——————————- (কালনীর ঢেউ, গান সংখ্যা – আটাত্তর) শাহ আব্দুল...

আমি মরিয়া পাই যদি শ্যামের রাঙ্গা চরণ

আমি মরিয়া পাই যদি, শ্যামের রাঙ্গা চরণ | (আরে) তবে সে রঙ্গিনী রাধার সাফল্য জীবন || মরিয়া মরিয়া যদি, শ্যামের লাগাল পাই | রাঙ্গা চরণে ধরি জনম গোওয়াই || ছাড়াইলে না ছাড়িমু, ধরিমু চরণ | যাহা করে জগন্নাথ, জগত্ মোহন || হাছন রাজায় বলে জান যাইবে যখন | সে সময় দেখতে চাই যুগল...

আমি মানুষ খুঁজি

আমি মানুষ খুঁজি আমি মানুষ খুঁজি, আমি মানুষ খুঁজি তেমন মানুষ পেলে আমি তার চরণে মাথা গুঁজি।। মানুষ আছে কোটি কোটি তেমন মানুষ আছে ক’টি ফুলের মত হাসি লয়ে নিত্য ওঠে ফুটি কটিতে নাই তার মায়ার শিকল সবার কথায় রাজি।। মানব কুলে জনমিয়া মানুষ হলাম না পরিচয় ভুল হল গো, কথা...

আমি যারে বাসি ভালো সে কি রে তা জানে

আমি যারে বাসি ভালো সে কি রে তা জানে আমি যারে বাসি ভালো সে কি রে তা জানে জানলে ব্যাথা অমন করে দিত না আর প্রাণে আমি যার লাগিয়া সদাই কান্দি গো কান্না পৌঁছায় না তার কানে এই জগতে ভালোবাসা আমার হলো না ভালোবাসার বিনিময়ে মন কিছুই পেল না আমি পরকে দিয়ে ভালোবাসা রে ভুল করিলাম...

আমি রাঙাপদে বিকাইলাম রে বন্ধু

আমি রাঙাপদে বিকাইলাম রে বন্ধু ঐ রাঙ্গা চরনে । বন্ধুরে তোমার আমার সরল পিরিতি পাড়ার লোকে জানলে হবে দুর্গতি গোপনে করিও পিরিত রে বন্ধু লোকে যেন না শুনে ।। ভাইবে রাধারমণ বলে তোমার আমার সরল পিরিত থাকে যেন গোপনে গো । থাকিতে যেন ভুলিওনারে বন্ধু মইলে যেন না পাশরে...

আর কতদিন থাকবে বলো

আর কতদিন থাকবে বলো ওরে পাগল মন আমার গোণার দিন ফুরাইয়া গেলো চোখে দেখবে অন্ধকার।। যেদিন পাখি যাবে উড়ে শূন্য পিঞ্জর রবে পড়ে ডাকলে পাখি চায় না ফিরে দয়ামায়া নাইরে তার।। মন তুমি হও হুশিয়ার পাখি ধরার করো যোগাড় নিরলে বসিয়া একবার কথা কও সঙ্গে তাহার।। পাখি ধরার সন্ধান আছে যাও...

আর জ্বালা সয়না গো সরলা (আমি-তুমি দুইজন ছিলাম)

আমি-তুমি দুইজন ছিলাম, এখন আমি একেলা আর জ্বালা, আর জ্বালা সয়না গো সরলা।। দুনিয়া ঘুরিনু ঠাই, দুঃখ কইবার জায়গা নাই মনের দুঃখ কারে জানাই বসে কাঁদি নিরালা আর জ্বালা, আর জ্বালা সয়না গো সরলা।। দুঃখে আমার জীবন গড়া, সইলাম দুঃখ জনমভরা হইলাম আমি সর্বহারা এখন যে আর নাই বেলা...

আল্লা ভব সমুদ্ রে

আল্লা ভব সমুদ্ রে আল্লা ভব সমুদ্ রে তরাইয়া লও মোরে | তরান বরান চাই না আমি কেবল চাই তোরে || তরাই মার যাই কর এর লাগি কে ঝুরে | হাছন রাজার মনের সাধ দেখিত তোমারে || চিত্তে কেন তোমার লাগি সদায় ধড়ফড় করে | হাছন রাজার মনে কেবল থাকত তোর হুজুরে || না চাই ধন, না চাই জন, না চাই...
আসি বলে গেল বন্ধু আইলো না

আসি বলে গেল বন্ধু আইলো না

আসি বলে গেল বন্ধু আইলো না যাইবার কালে সোনা বন্ধ নয়ন তুলে চাইলো না আসবে বলে আসায় রইলাম আশাতে নিরাশা হইলাম বাটাতে পান সাজাই থুইলাম বন্ধু এসে খাইলো না সুজন বন্ধুরে ছাইড়া মনে বড় ব্যথা পাইয়া আমি শুধু তার গান সে আমার গান গাইলো না আব্দুল করিম চিন্তা করে এই আশাতে যাবো মরে আসে...

আয় মোহাম্মদ কামলে ওয়ালা

আয় মোহাম্মদ কামলে ওয়ালা, অায়রে আমার বুকে আয়। ডাকেরে তোর কৃতদাসে শান্তি দা মোর কলিজায়। চাঁদ সুরুজ আর গ্রহ -তারা, জীন -ইনছান আর ফেরেস্তারা দিন রজনী চাহিছে তারা, ফুল তুলে দিদে গলায়। ফকির, দরবেশ, বাদশা, অলি তুলিতে সেই ফুলের কলি, স্কন্দে নিয়া বিক্ষার ঝুলি বাস করে বৃক্ষের...

ইয়া রাছুল আল্লাহ সেই দিনে তরাইও আমারে

ইয়া রাছুল আল্লাহ সেই দিনে তরাইও আমারে। যে দিন আমার যেতে হবে, পুলছেরাত রোজ হাশরে। তোমার নামে দরুদ ভেজি, অন্ত পায়নি শরার কাজি তুমি যার উপরে রাজি সেই জন তোমার নৌকায় চড়ে দেখতে তব মুখের হাসি কত জনা জঙ্গলবাসি তুমি দেখা দিলে আসি সে জনে দেখে তোমারে। ওয়াছকরণী পাগল ছিল স্বপ্নে...