আমার পরাণ পুতলী লইয়া নাগর করে পূজা

রাগাত্মিক ।।

আমার পরাণ,                   পুতলী লইয়া,
নাগর করে পূজা।
নাগর পরাণ,                  পুতলী আমার,
হৃদয় মাঝারে রাজা।।
আনের পরান,                  আনে করে চুরি,
তিন আনে নাহি জানে।
আগন নিগম,                  দুর্গম সুগম,
শ্রবণ নয়ন মনে।।
এই সাত নদী,                  অনন্ত অবধি,
এই সাত যে দেশে নাই।
সে দেশে তাহার,                  বসতি নগর,
এ দেশে কি মতে পাই।।
এ সব করণ,                  করে যেই জন,
সে জন মাথার মণি।
মরিলে সেজন,                  জীয়াতে পারে,
অমৃত রস আনি।।
হ্রীং সে অক্ষর,                  তাহার উপর,
নাচে এক বাজীকর।
এক কুমুদিনী,                  দুন্দুভি বাজায়,
বাঁশী জিনি তার স্বর।
দুন্দুভি বাঁশীটী,                  যখন বাজিবে,
তা শুনে মরিবে যে।
রসিক ভকত,                  ভুবনে ব্যক্ত,
সখীর সঙ্গিনী সে।।
এ সব ব্যবহার,                  দেখিব যাবার,
তাহার চরণ সার।
মন-সূতা দিয়া,                  তাহার চরণ,
গাথিয়া পরিব হার।।
বাশুলী আদেশে                  কহে চণ্ডীদাসে,
কাঁচা পাকা দুই ফল।
যে ফল লইবে,                  সে ফল পাইবে,
তেমতি তাহা বিরল।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *