এক ভদ্রলোক বিদেশ থেকে উন্নত প্রজাতির একটি কুকুর কিনে বাড়িতে আনলেন। কুকুরটির বৈশিষ্ট্য হল যে, সে শুধু তার প্রভু বা মালিকের গায়ের গন্ধ শুঁকেই তার পরিবার বা আত্মীয়স্বজনদের নির্ভুলভাবে চিনে নিতে পারে।
তো একদিন ভদ্রলোক কুকুরটিকে নিজের গায়ের গন্ধ শুঁকিয়ে বললেন, যা, স্কুল থেকে আমার ছেলে দুটোকে নিয়ে আয়।
কুকুর তো মালিকের গায়ের গন্ধ শুঁকে ছেলেদের আনতে গেল, কিন্তু ঘন্টাখানেক পরেও তার ফিরে আসার আর নাম নেই। ভদ্রলোক চিন্তায় পড়ে গেলেন। ওনার স্ত্রী তো কান্নাকাটি শুরু করে দিলেন। আরও বেশ কিছুক্ষণ কেটে যাওয়ার পরেও ওরা না ফিরতে, ভদ্রলোক তার স্ত্রী কে নিয়ে বেরিয়ে পড়লেন।
রাস্তায় কিছুটা যাওয়ার পর ওরা দেখতে পেলেন, কুকুরটি ফিরছে। কিন্তু এ কী, কুকুরটার সঙ্গে পাঁচটি ছেলে ! দুজন ভদ্রলোকটির প্রতিবেশীর ছেলে, একজন বাড়ির পরিচারিকার ছেলে, একজন ওনার সম্পর্কে এক শালীর ছেলে এবং একজন ওনার অফিসের সেক্রেটারির ছেলে।
ভদ্রমহিলা তো এই দেখে তেলেবেগুনে জ্বলে উঠে বললেন, এই তবে তোমার কীর্তি ? এইসব গুলো তোমার পাপের প্রোডাক্ট ?
ভদ্রলোক ততোধিক ক্ষিপ্ত হয়ে বললেন, ওসব ছাড়। আমি যে দুটোকে নিজের ছেলে বলে জানি, সেদুটো গেল কোথায়?
Share This