০১. শ্রীগৌরচন্দ্র

শ্রীগৌরচন্দ্র 

সুহই

বঁধু কি আর বলিব তোরে!
অলপ বয়সে,                  পিরীতি করিয়া,
রহিতে না দিলি ঘরে।।
কামনা করিয়া,                 সাগরে মরিব,
সাধিব মনেরি সাধা।
মরিয়া হইব,                 শ্রীনন্দের নন্দন,
তোমারে করিব রাধা।।
পিরীতি করিয়া,                 ছাড়িয়া যাইব,
রহিব কদম্ব তল।
ত্রিভঙ্গ হইয়া,                 মুরলী বাজাব,
যখন যাইবে জলে।।
মুরলি শুনিয়া,                 মোহিত হইবা,
সহজ কুলের বালা।
চণ্ডীদাস কয়,                 তখনি জানিবে,
পিরীতি কেমন জ্বালা।।*

———————

*এ পদটী ভাবসম্মিলনে সন্নিবেশিত হইয়াছিল।

বেহাগ

আজু কেগো মুরলী বাজায়।
এত কভু নহে শ্যাম রায়।।
ইহার গৌর বরণে করে আলো।
চূড়াটী বাঁধিয়া কেবা দিল।।
আহার ইন্দ্র-নীল কান্তি তনু।
এত নহে নন্দ সুত কানু।।
ইহার রূপ দেখি নবীন আকৃতি।
নটবর বেশ পাইল কথি।।
বনমালা গলে দোলে ভাল।
এনা বেশ কোন্‌ দেশি ছিল।।
কে বানাইল হেন রূপ খানি।
ইহার বামে দেখি চিকন বরণী।।
নীল উজলি নীলমণি।
হবে বুঝি ইহার সুন্দরী।।
সখীগণ কএ ঠারা ঠারি।
কুঞ্জে ছিল কানু কমলিনী।
কোথায় গেল কিছুই না জানি।।
আজু কেন দেখি বিপরীত।
হবে বুঝি দোঁহার চরিত।।
চণ্ডীদাস মনে মনে হাসে
এরূপ হইবে কোন্‌ দেশে?

———————
ইহা সম্ভোগ মিলনের পদ।
কথি—কোথায়। এনা—এমন। উজলি—উজ্জ্বল। কমলিনী—শ্রীরাধিকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *