সামবেদ ০১।০২

সামবেদ
পুর্বার্চিকঃ ছন্দ আর্চিকঃ

প্রথম অধ্যায়ঃ
আগ্নেয় কাণ্ডঃ অগ্নিস্তুতি

দ্বিতীয় খণ্ড : মন্ত্র সংখ্যা ১০ ॥
মন্ত্রের দেবতা অগ্নি ॥ মন্ত্রের ছন্দ গায়ত্রী ॥
মন্ত্রের ঋষিঃ ১ আয়ুঙ্ ক্ষ্বাহি, বিরূপা আঙ্গিরস,
২ বামদেব গৌতম,
৩।৮।৯ প্রয়োগ ভার্গব,
৮ মধুচ্ছন্দা বৈশ্বামিত্র,
৫।৭ শূ্নঃশেপ আজীগর্তি,
৬ মেধাতিথি কান্ব,
১০ বৎস কান্ব॥

মন্ত্র : (১১) নমস্তে অগ্ন ওজসে গৃণন্তি দেব কৃষ্টয়ঃ। অমৈরমিত্রমর্দয় ॥১॥
অর্থঃ- (১১) হে অগ্নি, মানুষেরা ওজঃশক্তির জন্য নত হয়ে তোমার স্তব করে। হে দেব, বলপ্রভাবে অমিত্রকে (=শত্রুকে) পীড়িত কর॥

মন্ত্র : (১২) দূতং বো বিশ্ববেদসং হব্যবাহমমর্ত্যম্। যজিষ্ঠমৃঞ্জসে গিরা ॥২॥
অর্থঃ- (১২) হে জনগণ, তোমাদের মঙ্গলের জন্য দেবদূত বিশ্বধন হব্যবাহী অমৃত যাজ্ঞিকশ্রেষ্ঠ অগ্নিকে স্তবের দ্বারা শোভিত কর॥

মন্ত্র : (১৩) উপ ত্বা জাময়ো গিরো দেদিশতীর্হবিষ্কৃতঃ। বায়োরনীকে অস্থিরন্ ॥৩॥
অর্থ : (১৩) হে অগ্নি, যজ্ঞনিস্পাদকের বারবার উচ্চারিত দীপ্ত স্তবমালা তোমাকে প্রাপ্ত হবার জন্য মুখ্যপ্রাণ বায়ুর নিকটে অবস্থান করে॥

মন্ত্র : (১৪) উপ ত্বাগ্নে দিবে দিবে দোষাবস্তর্ধিয়া বয়ম্। নমো ভরন্ত এমসি ॥৪॥
অর্থঃ- (১৪) হে তমোনাশক অগ্নি, প্রতিদিন আমরা প্রজ্ঞাদ্বারা নত হয়ে নমস্কার করতে করতে তোমাকেই কাছে পাই॥

মন্ত্র : (১৫) জরাবোধ তদ্বিবিড্ ঢি বিশেবিশে যজ্ঞিয়ায়। স্তোমং রুদ্রায় দৃশীকম্ ॥৫॥
অর্থঃ- (১৫) হে স্তুতিদ্বারা প্রবুদ্ধ অগ্নি, ভিন্ন ভিন্ন মানুষের প্রয়োজনে যজ্ঞযোগ্য রুদ্রের উদ্দেশ্যে যে অলোকসামান্য স্ত্রোত্র তা তুমিই জান॥

মন্ত্র : (১৬) প্রতি ত্যং চারুমধ্বরং গোপীথায় প্র হূয়সে। মরুদ্যভিরগ্ন আ গহি ॥৬॥
অর্থ : (১৬) আমাদের রক্ষণের জন্য যে শোভন যজ্ঞে তুমি আহূত হও সেখানে তুমি হে অগ্নি, সকল প্রাণশক্তির সঙ্গে এস॥

মন্ত্র: (১৭) অশ্বং ন ত্বা বারবন্তং বন্দধ্যা অগ্নিং নমোভিঃ। সম্রাজন্তমদ্বরাণাম্ ॥৭॥
অর্থ : (১৭) সকল যজ্ঞের সম্রাট্ অশ্বপুচ্ছের মত শিখাবিশিষ্ট অগ্নি তোমাকে নমস্কারের দ্বারা বন্দনা করতে প্রবৃত্ত হই॥

মন্ত্র : (১৮) ঔর্বভৃণ্ডবচ্ছুচিমপ্নবানবদা হুবে। অগ্নিং সমুদ্রবাসসম্॥৮॥
অর্থ : (১৮) পৃথিবীজাত অগ্নিশিখাসম্ভূত রূপবানের ন্যায় অন্তরিক্ষে নিবাসকারী শুচি অগ্নিকে সকল দিক্ হতে আহ্বান করি॥

মন্ত্র : (১৯) অগ্নিমিন্ধানো মনসা ধিয়ং সচেত মর্ত্যঃ। অগ্নিমিন্ধে বিবস্বভিঃ ॥৯॥
অর্থ: (১৯) মর্ত্যের মানুষ অগ্নিকে প্রজ্বলিত করে মনের সহায়তায় কর্মে মিলিত হয়; জ্ঞানের দ্বারাও অগ্নিদেবকে প্রজ্বালিত করে॥

মন্ত্র : (২০) আদিৎ প্রত্নস্য রেতসো জ্যোতিঃ পশ্যন্তি বাসরম্। পরো যদিধ্যতে দিবি ॥১০॥
অর্থ : (২০) ঊর্ধ্বে দ্যুলোকে যা দীপ্তিলাভ করে তা স্বর্গীয় বারি হতে জ্যোতি আহরণ করে দিনের আলো দেখে॥

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *