ঋগ্বেদ ১০।০০২

ঋগ্বেদ ১০।০০২
ঋগ্বেদ সংহিতা।। ১০ম মণ্ডল।। সূক্ত ২
ঋষি ও দেবতা পূর্ববৎ

১। হে যুবা পুরুষ! যজ্ঞের অভিলাষী দেবতাদিগকে সন্তুষ্ট কর। হে ঋতুর অধিপতি। কোন সময় যজ্ঞ করতে হয়, তাহা তুমি জান, অত এ সময় বুঝিয়া যজ্ঞ কর। দেবলোকে যাহারা পুরোহিতের কাৰ্য্য করেন, তাঁহাদিগের সহিত একত্র হইয়া যজ্ঞ কর; কেননা তুমি কর্তাদিগের মধ্যে শ্রেষ্ট।

২। হে অগ্নি! তুমিই হোতা, তুমিই পোতা, আর তুমি মেধাবী, সত্যনিষ্ট এবং লোকদিগকে ধন দান করিয়া থাক। এস আমরা যজ্ঞের দ্রব্য সমস্ত দেবতাদিগের উদ্দেশে নিবেদন করিয়া দিই। পূজনীয় অগ্নিদেব দেবতাদিগকে অর্চনা করুন।

৩। যেন আমরা দেবগের পথে অগ্রসর হইতে সমর্থ হই, যেন যজ্ঞানুষ্ঠান উত্তমরূপে সম্পন্ন করতে সমর্থ হই। অগ্নিই যজ্ঞের বিষয় জানেন, তিনিই যজ্ঞ করুন। তিনি হোতা, তিনি ও সম্পন্ন করেন, যজ্ঞের কাল নিরূপণ করেন।

৪। হে দেবতাবর্গ! আমরা নিতান্ত অজ্ঞান; তোমাদের অবিদিত কিছুই নাই; যদি আমরা তোমাদিগের কোন কাৰ্য্য নষ্ট করি, অর্থাৎ উত্তমরূপে সম্পন্ন না করি, তবে যে যে সময়ে অগ্নি দেবার্চনা করিয়া থাকেন, সেই সেই সময়ে তিনি আমাদিগের সমস্ত ক্রটি পূর্ণ করিয়া দিন।

৫। মনুষ্যগণ দুৰ্বল, ইহাদিগের মন অপরিণত, অতএব যজ্ঞের যে যে অনুষ্ঠান ইহাদিগের স্মরণ না হয়, অগ্নি যেন যথা সময়ে যজ্ঞ করিয়া সেই সমস্ত পূরণ করেন; কারণ তিনি হোতা, তিনি যজ্ঞ উত্তম জানেন, তাহার তুল্য যাজ্ঞিক কেহ নাই।

৬। হে অগ্নি! তুমি সর্বপ্রার যজ্ঞানুষ্ঠানের বিচিত্র পতাকা স্বরূপ। এতাদৃশ তোমাকে তোমার জন্মদাতা উৎপাদন করিয়াছেন। সেই তুমি এই স্থানে এস, এস্থানে যজ্ঞের অধ্যক্ষগণ অছেন। এস্থানে স্মৃতি পাঠ হইতেছে। এই সমস্ত সৰ্বজনহিতকর চমৎকার অন্ন দেবতাদিগের উদ্দেশে নিবেদন কর।

৭। দ্যাবাপৃথিবী হইতে তোমার জন্ম, জল হইতে তুমি জন্মিয়াছ, যিনি উত্তম নিৰ্মাণ করিতে পারেন, সেই ত্বষ্টা তোমাকে জন্ম দিয়াছে। পিতৃলোকে যাইবার কোন পথ, তাহা তুমি জান; অতএব তুমি এরূপ ঔজ্জ্বল্য ধারণ কর, যাহাতে ঐ পথ আলোকময় হইয়া উঠে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *