ঋগ্বেদ ০৮।০৭৭

ঋগ্বেদ ০৮।০৭৭
ঋগ্বেদ সংহিতা ।। ৮ম মণ্ডল সূক্ত ৭৭
ইন্দ্র দেবতা। কুরুসুতি ঋষি।

১। ইন্দ্র জন্মিয়াই বহু কৰ্ম্মবিশিষ্ট হইয়া মাতাকে জিজ্ঞাসা করিলেন, উগ্র কে এবং প্রসিদ্ধ কে?।

২। শবসী তৎক্ষণাৎ বলিলেন, হে পুত্র! ঔর্ণবাভ, অহীশুব প্রভৃতি অনেকে আছে, তাহাদের নিস্তার করা উচিত।

৩। বৃত্রহা ইন্দ্র তাহাদিগকে রজ্জুদ্বারা রথচক্রের অরসমূহের ন্যায়, যুগপৎ আকৰ্ষণ করিলেন এবং দস্যুগণকে হনন করিয়া প্রবৃব্ধ হইলেন।

৪। ইন্দ্র, সোমপূর্ণ ত্রিশটা কমনীয় পাত্র যুগপৎ পান করলেন(১)।

৫। ইন্দ্র মূলরহিত অন্তরীক্ষ প্রদেশে স্তুতিকারীকে বৃদ্ধি করিবার জন্য চারিদিক হইতে মেঘকে হিংসা করিলেন।

৬। এই ইন্দ্ৰ পক্ক অন্ন নির্মাণ করতঃ বিস্তৃত বাণ গ্রহণ করিয়া মেঘ সকলকে বিদ্ধ করিলেন।

৭। হে ইন্দ্র! তোমার একমাত্র বাণ শতাগ্রবিশিষ্ট এবং সহস্র পত্রবিশিষ্ট; তুমি এই বাণকেই সহায় কর।

৮। স্তুতিকারী পুরুষ এবং স্ত্রীলোকের আহারার্থ সেই বাণদ্বারা প্রভূত ধন আহরণ কর, জাতমাত্রেই প্রভূত এবং স্থির হও।

৯। হে ইন্দ্র! তুমি এই সকল অত্যন্ত প্রবৃদ্ধ ও চতুর্দিকে পরিণত পর্বত নিৰ্মাণ করিয়াছ; বুদ্ধিতে উহাদের স্থিরভাবে ধারণ কর।

১০। হে ইন্দ্র! তোমার যে সমস্ত জল আছে, বিষ্ণু তাহা প্রদান করিতেছেন। তিনি উরুগতিবিশিষ্ট ও তোমার দ্বারা প্রেরিত (২)। ইন্দ্র শত মহিষ ক্ষীর পক্ক অন্ন ও বরাহ দান করিয়াছেন (৩)।

১১। তোমার ধনুঃ বহু বাণক্ষেপী, সুনিৰ্মিত ও সুখকর, তোমার বাণ কার্যসাধন ক্রমেও স্বর্ণময়; তোমার বাহুদ্বয় রমণীয় এবং মর্মভেদী, উহার সুসংস্কৃত ও যজ্ঞবৰ্ধক।


(১) ইন্দ্র জন্মিবামাত্রেই অতিশয় শূর ও সোমপ্রিয়, তাহা এই চার ঋকে প্রদর্শিত হইল।

(২) বিষ্ণুর অর্থ ঋগ্বেদে সূর্য। সূর্যরূপ বিষ্ণু জল অর্থাৎ বৃষ্টি উৎপন্ন করেন, তিনি ইন্দ্র দ্বারা প্রেরিত এবং তিনি উরুগতিবিশিষ্ট, অর্থাৎ আকাশে ভ্রমণ করেন।

(৩) মহিষ ও বরাহ খাদ্যদ্রব্য ছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *