ঋগ্বেদ ০৮।০৭৬

ঋগ্বেদ ০৮।০৭৬
ঋগ্বেদ সংহিতা ।। ৮ম মণ্ডল সূক্ত ৭৬
ইন্দ্র দেবতা। কণ্বগোত্রীয় কুরুসুতি ঋষি।

১। এই প্রাজ্ঞ ইন্দ্রকে শত্ৰুচ্ছেদনের জন্য আহ্বান করি, তিনি স্বীয় বলে সকলের স্বামী এবং মরুৎগণবিশিষ্ট ।

২। এই ইন্দ্র মরুৎগণে মিলিত হইয়া শত সন্ধিবিশিষ্ট বজ্রদ্বারা বৃত্রের মস্তক ছেদ করিয়াছেন।

৩। ইন্দ্র বর্ধিত ও মরুৎগনে মিলিত হইয়া বৃত্রকে বিদীর্ণ করিয়াছেন এবং অন্তরীক্ষের জল অপসৃত করিয়াছেন।

৪। যিনি মরুৎগনযুক্ত হইয়া সোমপানার্থে এই স্বর্গ জয় করিয়াছেন, ইনিই সেই ইন্দ্র।

৫। ইনি মরুৎগণযুক্ত, ঋজীব, সোমবিশিষ্ট, ওজস্বী এবং মহান, আমরা স্তুতি দ্বারা তাহাকে আহবান করি।

৬। আমরা মরুৎগণযুক্ত ইন্দ্রকে এই সোমপানার্থে পুরাতন স্তোত্ৰদ্বারা আহ্বান করি।

৭। হে সেচনসমর্থ অনেকের আহূত শতক্রতু! তুমি মরুৎগণের সহিত এই যজ্ঞে সোম পান কর।

৮। হে বজ্ৰবান! তোমার এবং মরুৎগণের জন্য সোম অভিযুত হইয়াছে, উকথ মন্ত্রোচ্চারণকারী ব্যক্তিগণ অন্তরের সহিত আহ্বান করিতেছে।

৯। হে ইন্দ্র! তুমি মরুৎগণের সখা, তুমি আমাদের স্বর্গ প্রাপ্তিহেতু যজ্ঞে (১) অভিযুত সোম পান কর, এবং বলপূর্বক বজ্ৰ তীক্ষ্ণ কর।

১০। তুমি অভিষবণ ফলকে অভিযুত সোমপান করতঃ বলের সহিত উঠিয়া হনুদ্বয় কম্পিত কর। ১১। তুমি শত্রুগণকে বিনাশ কর, দ্যাবাপৃথিবী উভয়েই তোমার কল্পনা করে; তুমি সর্বদা দস্যুদিগকে বিনাশ কর।

১২। অষ্টদিক ও নবদিকব্যাপী (২) যজ্ঞস্পর্শী স্তুতিও ইন্দ্র অপেক্ষা ন্যূন। আমি সেই স্তুতি সম্পাদন করিতেছি।


(১) এইস্থানে ও অন্য অনেক স্থানে “দিবিষ্টষু” শব্দ আছে। যজ্ঞদ্বারা স্বর্গ প্রাপ্ত হওয়া যায়, এই বিশ্বাস ইহাদ্বারা প্রতীয়মান হইতেছে।

(২) চারিদিক ও চারি কোণ এবং আদিত্য লইয়া নবদিক। সায়ণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *