ঋগ্বেদ ০৮।০৬৭

ঋগ্বেদ ০৮।০৬৭
ঋগ্বেদ সংহিতা ।। ৮ম মণ্ডল সূক্ত ৬৭
আদিত্যগণ দেবতা। সমদ নামক মহামীণের পুত্র মৎস্য; মিত্র ও বরুণের পুত্র মান্য, অথবা অনেকগুলি মৎস্য জালবদ্ধ হইয়া এই স্তুতি করিয়াছিল, অতএব তাহারাই ঋষি(১)।

১। অভিমত ফল লাভার্থ, সুখপ্রদ, বলবান আদিত্যগণের নিকট রক্ষা যাচ্ঞা করিতেছি।

২। মিত্র, বরুণ, অর্য্যমা, আদিত্যগন যেহেতু দুঃসহ বলিয়া জানেন, অতএব অহন্তি পার করিয়া দিউন।

৩। আদিত্যগণের বিচিত্র স্তুতিযোগ্য ধন আছে, তাহা হব্যদায়ী যজমানের জন্য।

8। হে বরুণাদি! তোমরা মহান, হব্যদাতার প্রতি তোমাদের রক্ষা মহতী; অতএব তোমাদের রক্ষা প্রার্থনা করিতেছি।

৫। হে আদিত্যগণ! আমরা জীবিত; ইদানীং আমাদিগের অভিধাবন কর। হে আহ্বান শ্রবণকারিগণ! মৃত্যুর পূর্বে আগমন করিও।

৬। শ্রান্ত অভিষবকারীকে দাতব্য তোমাদের যে বরণীয় ধন আছে, যে গৃহ আছে, তদ্দ্বারা প্রীত করিয়া আমাদিগের প্রতি মিষ্ট কথা কও।

৭। হে দেবগণ! পাপশীলের মহাপাপ আছে, অপাপ ব্যক্তির রমণীয় সুকৃত আছে। হে পাপশূন্য আদিত্যগণ! আমাদের অভিলষিত প্রদান কর।

৮। জাল যেন আমায় বন্ধন না করে, মহাকৰ্ম্মের জন্য আমাদিগকে জাল হইতে যেন ত্যাগ করে। ইন্দ্বই বিখ্যাত এবং সকলের বশকারী।

৯। হে দেবগণ। তোমরা আমাদিগকে পরিহার কর। আমাদিগকে রক্ষা করিতে ইচ্ছা করতঃ হিংসক রিপুদিগের জালদ্বারা আমাদিগকে বাধা দিও না।

১০। হে দেবী অদিতি! তুমি মহতী, আমি অভিমত লাভের জন্য তোমার স্তব করিতেছি।

১১। হে অদিতি! সকল দিক হইতে রক্ষা কর। ক্ষীণ, উগ্রপুত্রবিশিষ্ট জলে হিংসাকারীর জাল আমাদের তনয়কে যেন হিংসা না করে।

১২। হে বিস্তীর্ণগমনবিশিষ্টা ও গুরুতরা অদিতি! তুমি পুত্রের জীবনাৰ্থ আমাদিগকে জীবিত রাখ।

১৩। সকলের শীর্ষস্থানীয়, মনুষ্যদিগের অহিংসাকারী, সুন্দর কীৰ্ত্তিযুক্ত ও দ্রোহ রহিত হইয়া যাহারা আমাদিগের কৰ্ম্ম রক্ষা করেন।

১৪। হে আদিত্যগণ! সেই তোমরা হিংসাকারীদিগের মুখ হইতে ধৃত চোরের ন্যায় আমাদিগকে রক্ষণ কর।

১৫। হে আদিত্যগণ। এই জাল আমাদের হিংসা করিতে অক্ষম হইয়া অপগত হউক। লোকের দুর্বুদ্ধিও অপগত হউক।

১৬। হে সুন্দর দানশীল আদিত্যগণ! তোমাদের আশ্রয়ে আমরা পুর্বের ন্যায় এক্ষণেও নানা ভোগ উপভোগ করিব।

১৭। হে প্রকৃষ্ট জ্ঞানযুক্ত দেবগণ! যে পাপকারী শত্রু বারম্বার আমাদের প্রতি গমন করিতেছে, আমাদের জীবনাৰ্থ তাহাদিগকে পৃথক কর।

১৮। হে আদিত্যগণ! তোমাদের অনুগ্রহে বন্ধন যেমন বৃদ্ধ পুরুষকে ত্যাগ করে, সেইরূপ যে জাল আমাদিগকে পরিত্যাগ করিতেছে, সেই জাল স্তুতিযোগ্য এবং ভজনাযোগ্য হউক।

১৯। হে আদিত্যগণ! তোমাদের ন্যায় বেগ আমাদের নাই। এই বেগ আমাদিগকে মুক্ত করিতে সমর্থ। তোমরা আমাদিগকে সুখী কর।

২০। হে আদিত্যগণ! বিবস্বানের আয়ুধ সদৃশ এই কৃত্রিম জাল পূর্বকালে এবং এই কালে জীর্ণ ব্যক্তিকে বধ করে না।

২২। হে আদিত্যগণ! দ্বেষকারিগণকে উন্মূলিত কর। পাতকগণকে বিনাশ কর। জালকে বিনাশ কর। সৰ্ব্বব্যাপী পাপকে বিনাশ কর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *