ঋগ্বেদ ০৮।০৫১
ঋগ্বেদ সংহিতা ।। ৮ম মণ্ডল সূক্ত ৫১
ইন্দ্র দেবতা।

১। হে ইন্দ্র! তুমি সাম্বরুণি মনুর জন্য যেরূপে অভিযুত সোম পান করিয়াছিলে, হে মঘবা! পুষ্ট এবং শীঘ্রগামী গোবিশিষ্ট মেধ্যাতিথি ও নীপাতিথির জন্য যেরূপ সোম পান করিয়াছিলে।

২। পার্ষদ্বান ঋষি বৃদ্ধ, শয়ন প্রস্কম্বকে ঊৰ্দ্ধে স্থাপিত করিয়া উপবেশন করাইয়াছিলেন। দস্যুগণের পক্ষে বৃকস্বরূপ ঋষি তোমাকর্তৃক রক্ষিত করিয়া সহস্র গো রক্ষা করিয়াছিলে।

৩। যাঁহাকে উকথের দ্বারা লাভ করা যায়, যিনি ঋষিকর্তৃক প্রেরিত হইয়া সকলের জ্ঞাতা, রক্ষাভিলাষী, সেই ইন্দ্রের অভিমুখে সেবার্থ নূতন স্তুতি উচ্চারণ কর।

৪। উত্তম স্থানে যাহার উদ্দেশে সপ্তশীর্ষবিশিষ্ট ও স্থানত্রয়যুক্ত অৰ্চণামন্ত্র উচ্চারিত করে, তিনি এই বিশ্বভুবন শব্দযুক্ত করিয়াছেন এবং বল উৎপাদন করিয়াছেন।

৫। যিনি আমাদের ধনদাতা সেই ইন্দ্রকে আমরা আহ্বান করি, আমরা উহার নতুন অনুগ্রহ বুদ্ধি জানি, আমরা যেন গোযুক্ত গোষ্ঠে গমন করিতে পারি।

৬। হে বাসপ্রদ, স্তুতিভাক, মঘবা ইন্দ্র! তুমি দান করিব বলিয়া যাহাকে দান কর, সে ধনের পুষ্টিলাভ করে। তুমি এইরূপ, অতএব আমরা অভিযুত সোমবিশিষ্ট হইয়া তোমায় আহ্বান করিতেছি।

৭। হে ইন্দ্র! তুমি কখনও নিবৃত্ত প্রসব হও না, তুমি হব্যদায়ীর সহিত মিলিত হও। তুমি দেবতা, তোমার দান বারংবার নিকটে আসিয়া মিলিত হয়।

৮। যিনি বলপূর্বক অস্ত্র প্রয়োগ করিয়া শুষ্ণকে বিনাশ করতঃ কূপ পূর্ণ করিয়াছিলেন, যিনি ঐ দ্যুলোককে প্রথিত করতঃ স্তম্ভিত করিয়াছেন এবং যিনি পার্থিব হইয়া সমস্ত বস্তু উৎপাদন করিয়াছেন।

৯। এই সমস্ত আর্য্য ও দাসগণ(১) যাহার ধনপালক ও স্তোতা, যিনি আৰ্য শ্বেতবর্ণ পবীরুর সম্মুখে উপস্থিত হন, সেই ধনদাতা তোমার সহিত মিলিত হন।

১০। ত্বরাযুক্ত বিপ্রগণ, মধুযুক্ত ঘূতস্রাবী অৰ্চণামন্ত্র উচ্চারণ করিতেছেন, ইহার উদ্দেশে ধন প্রথিত হইতেছে, পুরুষোচিত বল প্রথিত হইয়াছে, অভিযুত সোম প্রথিত হইতেছে।

————

(১) আর্য্য ও অনার্য্যগণের উল্লেখ। অনেক অনার্য্যগণ আর্য্যদিগের দ্বারা ক্রমে বশীভূত বা শিক্ষিত হইয়া আর্য্যধর্ম ও রীতিনীতি গ্রহণ করিয়াছিল ও ইন্দ্রাদিকে স্তুতি করিত, তাহা প্রতীয়মান হইতেছে। ইহারাই প্রথম “Hinduizec Aborigines.”

Share This