ঋগ্বেদ ০৬। ৫১
ঋগ্বেদ সংহিতা । ৬ষ্ঠ মণ্ডল । সূক্ত ৫১
নানা দেবতা। ঋজিশ্বা ঋষি।

১। সূর্য্যের প্রসিদ্ধ, প্রকাশক, মিত্র ও বরুণের প্রিয়, অপ্রতিহত, নির্ম্মল ও মনোজ্ঞ দীপ্ত প্রকাশিত হইয়া অন্তরিক্ষের ভূষণবৎ শোভা পাইতেছে।

২। যিনি তিনটা জ্ঞাতব্য ভুবন অবগত আছেন; ধিনি জ্ঞানশালী এবং দেবগণের দুর্জ্ঞেয় জন্ম বিদিত আছেন; সেই সূর্য্য মানবগণের সৎ ও অসৎ কৰ্ম্মের পরিদর্শন করিতেছেন এবং প্রভু হইয়া মনুষ্যগণের সঙ্গত মনোরথ পূর্ণ করিতেছেন।

৩। আমি যজ্ঞরক্ষক, শোভনজন্মা, অদিতি, মিত্র, বরুণ, অর্য্যমা ও ভগের স্তব করি। যাঁহাদিগের কার্য্য অপ্রতিহত, যাঁহারা অর্থসম্পন্ন ও বিশ্বের পবিত্রতাবিধায়ক, তাহাদিগের যশঃ কীৰ্ত্তন করিতেছি।

৪। হে চিংসকগণের ক্ষেপণকারী, সাধুগণের পালক, অপ্রতিহতপ্রভাব, শক্তিমান, অধীশ্বর, শোভন গৃহ প্রদাতা, নিত্যতরুণ, নিরতিশয় ঐশ্বৰ্য্যশালী, স্বর্গের নেতা অদিতিপুত্ৰগণ! আমি অদিতির শরণ লইতেছি, কারণ তিনি মদীয় পরিচর্য্যা কামনা করেন।

৫। হে জনক স্বর্গ, জননী পুথিবী, ভ্রাত অগ্নি ও বসুগণ! তোমরা আমাদিগকে সুখী কর। হে অদিতি পুত্রগণ ও অদিতি! তোমরা সমবেত হইয়া আমাদিগকে সমধিক সুখ প্রদান কর।

৬। হে বাহার্গ দেবগণ! তোমরা আমাদিগকে বৃক অথবা বৃকীর বশীভত করিও না(১)। যাহারা আমাদিগের অনিষ্ট কামনা কবে, আমাদিগকের তাহাদিগের আয়ত্ত করিও না। কারণ তোমরা আমাদিগের দেহ, বল ও বাক্যের চালকস্বরূপ।

৭। হে দেবগণ! আমরা তোমাদেরই। আমরা যেন অন্যকৃত পাপনিবন্ধন ক্লেশ অনুভব না করি। হে বসুগণ! তোমরা যাহা নিষেধ কর, আমরা যেন তাহার অনুষ্ঠান না করি। হে বিশ্ব দেবগণ তোমরা বিশ্বের অধিপতি; অতএব যাহাতে শক্র নিজ দেহের উপর অনিষ্ট উৎপাদন করে তোমরা তাহার উপায় বিধান কর।

৮। নমস্কারই সৰ্ব্বোৎকৃষ্ট, অতএব আমি নমস্কার করিতেছি। ননস্কারই স্বর্গ ও পৃথিবীকে ধারণ করিয়া রহিয়াছে, এই জন্য আমি দেবগণকে নমস্কার করিতেছি। দেবগণ নমস্কারেরই বশীভূত; আমি নমস্কারদ্বারা কৃতপাপের প্রায়শ্চিত্ত করি।

৯। হে যাগার্হ দেবগণ! আমি নমস্কারসহকারে তোমাদিগের সকলের নিকট প্রণত হইতেছি, কারণ তোমরা যজ্ঞের নেতা, বিশুদ্ধ বল সম্পন্ন, দেবযজনগৃহে অবস্থানকারী, অজেয়, বহুদশী, অধিনায়ক ও মহান।

১০। তাঁহারা প্রকৃষ্ঠরূপে দীপ্তসম্পন্ন; তাহারাই আমাদিগের সমুদয় পাপ নাশ করুন; দেব বরুণ, মিত্র ও অগ্নি শোভন বলশালী, সত্যকৰ্ম্মা ও স্তোত্রনিরত ব্যক্তিগণের প্রতি একান্ত পক্ষপাতী।

১১। ইন্দ্র, পুথিবী, পূষা, ভগ, অদিতি ও পঞ্চজন (২) আমাদিগের বাসভূমি বর্দ্ধিত করুন। তাঁহারা যেন আমাদিগের সুখদাতা, অন্নদাতা, সৎপথ প্রদর্শক, শোভন রক্ষণকারী ও আশ্রয়দাতা হন।

১১) তে দেবগণ! স্তবকারী ভরদ্বাজ গোত্রজ এই ব্যক্তি যেন সত্বর একটা স্বৰ্গীয় বসতি লাভ করে (৩), কারণ সে ব্যক্তি তোমার অনুগ্রহার্থী। হব্যদাতা ঋষি অন্যান্য যজমানের সহিত ধনাভিলাষী হইয়া দেবসমুহের স্তব করিতেছেন।

১৩। হে অগ্নি! তুমি কুটীল পাপাচারী, দুষ্টাভিপ্রায় শক্রকে দূরীভূত কর। হে সাধুগণের রক্ষক! তুমি আমাদিগকে সুখ প্রদান কর।

১৪। হে সোম! আমাদিগের এই অভিযব পাষাণ সকল তোমার সহিত মিত্রতা কামনা করিতেছে। তুমি ভোজনপটু পণিকে সংস্থার কর, কারণ সে প্রকৃতই বৃক।

১৫। হে ইন্দ্র প্রমুখ দেবগণ! তোমরা দানশীল ও দীপ্তিশালী। তোমরা পথিমধ্যে আমাদিগের রক্ষক ও সুখদাতা হও।

১৬। আমরা সুগম ও পাপরস্থিত পপে উপস্থিত হইয়াছি, যে পথে গমন করিলে লোকে শক্র পরিহার ও ধন লাভ করে।

—————

(১) অর্থাৎ দস্যু ও দস্যুপত্নী; অথবা অরণ্যকুক্কুর ও কুক্কুরী। সায়ন।
(২) মূলে “পঞ্চজনাঃ” আছে। সায়ণ এখানে “দেবমনুষ্যাণাং গন্ধর্ব্ব্যপ্সরসামিত্যাদি” অর্থ করিয়াছেন।
(৩) মূলে “____ দিব্যং” আছে। অর্থ দীপ্তমান গৃহও হইতে পারে।

Share This