নীরা তুমি…

নীরা, তুমি নিরন্নকে মুষ্টিভিক্ষা দিলে এইমাত্র
আমাকে দেবে না?
শ্মশানে ঘুমিয়ে থাকি, ছাই-ভস্ম খাই, গায়ে মাখি
নদী-সহবাসে কাটে দিন
এই নদী গৌতম বুদ্ধকে দেখেছিল
পরবর্তী বারুদের আস্তরণও গায়ে মেখেছিল
এই নদী তুমি!

বড় দেরি হয়ে গেল, আকাশে পোশাক হতে বেশি বাকি নেই
শতাব্দীর বাঁশবনে সাংঘাতিক ফুটেছে মুকুল
শোনোনি কি ঘোর দ্রিমি দ্রিমি?
জলের ভিতর থেকে সমুত্থিত জল কথা বলে
মরুভূমি মেরুভূমি পরস্পর ইশারায় ডাকে
শোনো, বুকের অলিন্দে গিয়ে শোনো
হে নিবিড় মায়াবিনী, ঝলমলে আঙুল তুলে দাও।
কাব্যে নয়, নদীর শরীরে নয়, নীরা
চশমা-খোলা মুখখানি বৃষ্টিজলে ধুয়ে
কাছাকাছি আনো
নীরা, তুমি নীরা হয়ে এসো!

One thought on “নীরা তুমি…

  1. আজ এই পৃথিবীর অন্ধকারে মানুষের হৃদয়ে বিশ্বাস

    কেবলই শিথিল হয়ে যায়; তবু তুমি

    সেই শিথিলতা নও, জানি, তবু ইতিহাসরীতিপ্রতিভার

    মুখোমুখি আবছায়া দেয়ালের মতো নীল আকাশের দিকে

    ঊর্ধ্বে উঠে যেতে চেয়ে তুমি

    আমাদের দেশে কোণো বিশ্বাসের দীর্ঘ তরু নও।

    অসাধারণ লিখুনী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *