চারিদিকে শক্র

চারিদিকে শক্র। দুইখণ্ড একত্রে। চারিদিকে শক্র – পার্ট ১ – মাসুদ রানা। কাজী আনোয়ার হোসেন। প্রথম প্রকাশ : ডিসেম্বর, ১৯৮৫। চারিদিকে শত্রু – পার্ট ২- মাসুদ রানা। কাজী আনোয়ার হোসেন। প্রথম প্রকাশ: ফেব্রুয়ারি, ১৯৮৬

১.০১ কাঁচা-পাকা ভুরু কুঁচকে আছে

কাঁচা-পাকা ভুরু কুঁচকে আছে। কপালের পাশে একটা রগ তিরতির করে কেঁপে উঠল। গভীর মনোযোগের সাথে একটা ফাইল দেখছেন বাংলাদেশ কাউন্টার ইন্টেলিজেন্সের সুযোগ্য। কর্ণধার মেজর জেনারেল (অবসরপ্রাপ্ত) রাহাত খান। কনফিডেনশিয়াল রিপোর্ট পার্ট ওয়ান মিকোয়ান প্রজেক্ট মস্কো থেকে ছয়শো মাইল দূরে...

১.০২ তিন মাস পর

তিন মাস পর। চেরেমেতেইভো এয়ারপোর্ট। মস্কো। ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের যাত্রীবাহী বিএসি-ওয়ান ওয়ান ওয়ানএর আরোহীরা টারমাক ধরে এগোল। মেঘলা আকাশ, ঝড়ো বাতাস বইছে। লৌহযবনিকার অভ্যন্তরে কিসের যেন ভয়ভয় রহস্য। এক লাইনে এগোচ্ছে আরোহীরা, সবার পিছু পিছু আসছে। অস্থির প্রকৃতির এক যুবক। বাতাস...

১.০৩ পাভোলেতস মেট্রো স্টেশন

পাভোলেতস মেট্রো স্টেশন মুগ্ধ করল রানাকে। এত সুন্দর স্টেশন ইউরোপ বা আমেরিকাতেও দেখেনি ও। এটার নক্সা করা হয়েছে মিউজিয়ামের ঢঙে, আর্কিটেক্টরা আধুনিক স্থাপত্যশিল্পের। সমস্ত কৌশল আর উৎকর্ষ যেন অকুণ্ঠচিত্তে ব্যবহার করেছে। প্রায় গোটা স্টেশনই কাঁচ দিয়ে ঘেরা, প্ল্যাটফর্মের ধারে...

১.০৪ ঘটাং করে ভ্যানের দরজা খুলে

ঘটাং করে ভ্যানের দরজা খুলে ভেতরে ঢুকল জসেস্কু, ঘুম ভেঙে গেল রানার। ক্যাব-এর ঠিক পিছনে, একটা মোটা কম্বলের ওপর শুয়ে আছে ও। উঠে বসে হাই তুলল, আড়মোড়া ভাঙল, তারপর হাতের উল্টো পিঠ দিয়ে খুব করে রগড়াল চোখ দুটো। ভ্যানটা রয়েছে একটা ওয়্যারহাউসের ভেতর, এটা মস্কোর স্যানিটারী...

১.০৫ টেবিলের ওপর দুটো জুতো

টেবিলের ওপর দুটো জুতো। চেয়ারে হেলান দিয়ে বসে অনেকক্ষণ ধরে সেগুলোর দিকে তাকিয়ে আছে তরুণ পুলিস। ইন্সপেক্টর বাজারনিক, তবলায় মৃদু টোকা দেয়ার ঢঙে চেয়ারের হাতলে আঙুলের বাড়ি মারছে সে। আবার টেবিলের দিকে ঝুঁকল বাজারনিক, একটা জুতো তুলে নিয়ে সাদা লেবেলটার ওপর চোখ রাখল। লেবেলে...

১.০৬ রানাকে যতই দেখছে নেসতর কোইভিসতু

রানাকে যতই দেখছে নেসতর কোইভিসতু ততই অবাক হচ্ছে। এক আধবার খুঁত খুঁত করছে মনটা। পিটি ডাভ সম্পর্কে যা বলা হয়েছে তাকে, তার অনেক কিছুই মিলছে না। টুপোলেভ এভিনিউয়ে তার বাড়িতে রানার আসার পর থেকেই ওর ওপর সারাক্ষণ চোখ রাখছে কোইভিসতু। গোসল সেরে খানিক বিশ্রাম, তারপর খেতে বসল...

১.০৭ পিটি ডাভকে জীবনে এই প্রথম

পিটি ডাভকে জীবনে এই প্রথম আর শেষবার দেখছে সলভিনা। তার চোখে পিটি একজন অসমসাহসী বীর, দেশকে ভালবেসে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়তে এসেছে। বাবার অত্যাগের সাথে। পিটির অত্যাগের পার্থক্যটুকু পরিষ্কার দেখতে পায় সে-বাবা প্রতিশোধ নিতে চাইছেন বলে অত্যাগের জন্যে প্রস্তুত হয়েছেন, কিন্তু...

১.০৮ পঞ্চাশ গজ বাকি থাকতেই

পঞ্চাশ গজ বাকি থাকতেই সার্চলাইট খুঁজে নিল ওকে, স্থির হলো ওর ওপর। সাদা, চোখ ধাধানো আলোর একটা টানেল, তার ভেতর দিয়ে হাঁটতে হলো ওকে। গেটের কাছে এক দল গার্ড, অটোমেটিক রাইফেলগুলো ওর দিকে তাক করা। ওয়াচটাওয়ার থেকেও গার্ডরা অপলক চোখে দেখছে ওকে। স্বাভাবিক থাকার চেষ্টা করল রানা,...

১.০৯ চোখের সামনে সোনালি রিস্ট-ওয়াচ

চোখের সামনে সোনালি রিস্ট-ওয়াচ তুলল কর্নেল সাসকিন। রাত চারটে। মেইন হ্যাঙ্গারের খোলা দরজার ওপর দাঁড়িয়ে রয়েছে। সে, নিরাপত্তা প্রহরী, বিজ্ঞানী আর টেকনিশিয়ানদের কর্মব্যস্ততা লক্ষ করছে। খানিক আগেও গার্ডরা হাসাহাসি আর গল্প করছিল, ঘুরে বেড়াচ্ছিল এদিক ওদিক। কিন্তু তাকে দেখার...

১.১০ সোনালি হাতঘড়ি দেখল কর্নেল সাসকিন

সোনালি হাতঘড়ি দেখল কর্নেল সাসকিন। ছটা সাত। এইমাত্র একটা খবর পেয়েছে সে-এক ধরনের দুঃসংবাদই বলা যায়-একটা টপোলেভ টিইউ-ওয়ানফোরফোর এয়ারলাইনার ফার্স্ট সেক্রেটারি, কে.জি.বি. চীফ, সোভিয়েত প্রতিরক্ষা মন্ত্রী, সোভিয়েত এয়ারফোর্স মার্শাল এবং অন্যান্য উচ্চপদস্থ অফিসারকে নিয়ে মস্কো...

২.১ এক হ্যাঙ্গারে কি হচ্ছে ও জানে না

এক হ্যাঙ্গারে কি হচ্ছে ও জানে না। দোতলায়, পাইলটদের রেস্ট রুমে আধঘণ্টা হলো পায়চারি করছে মাসুদ রানা। কারও সাহায্য ছাড়া লে. কর্নেল বেনিনের প্রেশার স্যুটটা পরতে গলদঘর্ম হতে হয়েছে ওকে। লেসগুলো ঠিকমত বাঁধতে হিমশিম খেয়ে গিয়েছিল ও। জি-ফোর্সের সর্বনাশা বিপদ থেকে এই লেসিং-ই...

২.২ ব্যর্থতার গ্লানিতে নত হয়ে আছে মাথা

ব্যর্থতার গ্লানিতে নত হয়ে আছে মাথা, প্যাসেঞ্জার গ্যাংওয়ে ধরে টুপোলেভ টি-ইউ ওয়ান-ফোর ফোর-এ উঠে এল কর্নেল সাসকিন। টুপোলেভ টি-ইউ ওয়ান ফোর-ফোর ফার্স্ট সেক্রেটারির ব্যক্তিগত বাহন। মার্কিন প্রেসিডেন্টের ব্যক্তিগত প্লেন এয়ারফোর্স ওয়ান-এর সাথে এটার কোন অমিল নেই, দুটো প্লেন...

২.৩ কনটিনজেন্সি রিফুয়েলিং পয়েন্টগুলো

কনটিনজেন্সি রিফুয়েলিং পয়েন্টগুলোকে অ্যালার্ট থাকতে বলুন! সি. আই.এ. চীফ রবার্ট মরগ্যান নির্দেশ দিলেন। একটা স্ক্র্যাম্বলার সেটের সাহায্যে এয়ার কমোডর কাপলানের সাথে কথা বলছেন। তিনি। এইমাত্র এয়ার কমোডর তাঁকে খবর দিয়েছেন, চারদিক থেকে যে-সব রিপোর্ট আসছে তাতে প্রায় নিঃসন্দেহে...

২.৪ আর সাত সেকেন্ড পর সংঘর্ষ

আর সাত সেকেন্ড পর সংঘর্ষ। কমলা রঙের ফোঁটা তিনটে থেকে চোখ সরিয়ে নিল রানা। রাডার স্ক্রীনে আরও একটা সবুজ ব্লিপ দেখা যাচ্ছে, ব্যাজারের অস্তিত্ব প্রকাশ করছে ওটা। আর মাত্র কয়েক মাইল দূরে রিকনিস্যাত্ প্লেনটা, ওর নিচের দিকে, দ্রুত একপাশে সরে যাচ্ছে। একই স্ক্রীনে মিগ-৩১-এর...

২.৫ টার্গেট আর পঁচিশ সেকেন্ডের পথ

টার্গেট আর পঁচিশ সেকেন্ডের পথ। ঠাণ্ডা মাথায় পরিস্থিতিটা বুঝতে চেষ্টা করল রানা। পিক-আপ রিড-আউট থেকে জানা গেল, সরাসরি মিসাইল ক্রুজারের পিছন থেকে সিগন্যাল পাঠানো হচ্ছে। ফুয়েল গজে চোখ বুলিয়ে বুঝল, ঘুরপথে যাবার ঝুঁকি নেয়া চলে না। কাজেই মিসাইল ক্রুজারের ভয়াবহ-ফায়ার পাওয়ার...

২.৬ একটা ট্রান্সমিটার থেকে পাঠানো সিগন্যাল

একটা ট্রান্সমিটার থেকে পাঠানো সিগন্যাল রিসিভ করছে পিকআপ। ট্রান্সমিটারটা এখনও নব্বই মাইল দূরে। ওখানে পৌঁছুতে হবে রানাকে। কিন্তু ফুয়েল গজ শূন্য হয়ে গেছে। আকাশের অনেক ওপরে উঠে যাওয়া ছাড়া আর কোন উপায় দেখছে না রানা। ইমার্জেন্সী ট্যাংকে কতটুকু ফুয়েল আছে ও জানে না, কিন্তু...

২.৭ কি ঘটেছে বুঝতে পারল রানা

কি ঘটেছে বুঝতে পারল রানা। টেমপারেচার হঠাৎ করে নেমে যাওয়ায় শিশির বিন্দুগুলো তুষার কণা হয়ে গেছে। মেরু প্রদেশে আবহাওয়ার এই আকস্মিক পরিবর্তন অপ্রত্যাশিত নয়। নিরেট বরফের ওপর তুষার জমে আছে, তাতে বাধা পেয়ে দ্রুত কমে আসছে এয়ারকিঙের গতি। কিন্তু কোথায় যাচ্ছে ও, জানার উপায় নেই।...

২.৮ দৃঢ় মনোবল নিয়ে ফার্স্ট সেক্রেটারির সামনে

দৃঢ় মনোবল নিয়ে ফার্স্ট সেক্রেটারির সামনে দাঁড়ালেন এয়ার মার্শাল ঝঝেনিৎসিন। অনেকক্ষণ ধরে ভোগাবার পর ধারণাটা তার মাথায় ধরা দিয়েছে। এখন তিনি জানেন, পিটি ডাভের জন্যে রিফুয়েলিঙের কি ব্যবস্থা করা হয়েছে। যদিও ধারণাটা তিনি খোলসা করে সরাসরি বলবেন না। কোন অবস্থাতেই ফার্স্ট...

২.৯ প্রথমেই সন্দেহ জাগল

প্রথমেই সন্দেহ জাগল, স্যাবোটাজ? প্লেনটাকে অচল করে রেখেছে কেউ? কি হলো? জানতে চাইল জেমসন। আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে। সে। থ্রটল টেনে নিল রানা, আবার ব্রেক অ্যাপ্লাই করল। স্যাবোটাজের সম্ভাবনা উড়িয়ে দেয়নি, রাশিয়ানদের দোসর কেউ থাকতেও পারে আমেরিকান সাবমেরিনে, কিন্তু আরেকটা আশঙ্কার...