হারানো তিমি

হারানো তিমি - তিন গোয়েন্দা - রকিব হাসান

০১. তিমির ফোয়ারা

ওই যে, তিমির ফোয়ারা! চেঁচিয়ে উঠল উত্তেজিত রবিন। আরে দেখছ না, ওই যে…ওইই, সাগরের দিকে হাত তুলে দেখাল সে। এইবার দেখল মুসা। ঠিকই। তীর থেকে মাইল তিন-চার দূরে ভেসে উঠেছে যেন ছোটখাট এক দ্বীপ, পানির ফোয়ারা ছিটাচ্ছে। মিনিটখানেক এদিকওদিক পানি ছিটিয়ে ডুবে গেল আবার ধূসর...

০২. হয়তো গড়িয়ে-টড়িয়ে নেমে

হয়তো গড়িয়ে-টড়িয়ে নেমে চলে গেছে সাগরে, বলল বটে মুসা, কিন্তু কথাটা সে নিজেই বিশ্বাস করতে পারছে না। অসম্ভব, রবিন বলল, যা শুকনো বালি…নাহ, ইমপসিবল। কিশোর চুপ। গর্তের আশেপাশে ঘুরছে, তীক্ষ্ণ দৃষ্টিতে কি দেখছে বালিতে। একটা ট্রাক এসেছিল, সঙ্গীদের দিকে ফিরল কিশোর, ফোর হুইল...

০৩. না হয় ধরলামই মিছে কথা

না হয় ধরলামই মিছে কথা বলেছে টিনহা, বলল মুসা, কিন্তু তাতে কি প্রমাণ হয়? শেষ বিকেল। সকালে ওশন ওয়ার থেকে রকি বীচে ফিরেই লাইব্রেরিতে কাজে চলে যায় রবিন। মুসা যায় বাড়ির লন পরিষ্কার করতে, মাকে কথা দিয়েছিল। আজ সাফ করে দেবে। ইয়ার্ডে বোরিস আর রোভারকে সাহায্য করেছে কিশোর। চাজ...

০৪. ঠিক শুনেছ তুমি

ঠিক শুনেছ তুমি? মুসাকে জিজ্ঞেস করল কিশোর। শিওর, ওই একই গলা? র‍্যঞ্চ বাড়িটা থেকে বেরিয়ে ডবল মার্চ করে পাহাড়ী পথ ধরে একটা পেট্রল স্টেশনে নেমে আসতে বিশ মিনিট লেগেছে মুসার, হেডকোয়ার্টারে ফোন করেছে। আরও বিশ মিনিটের মাথায় বোরি আর রবিনকে নিয়ে গাড়িসহ পৌঁছেছে কিশোর, তিনজনেই...

০৫. লোকটা ক্যাপটেন শ্যাটানোগা সাজতে গেল

লোকটা ক্যাপটেন শ্যাটানোগা সাজতে গেল কেন? প্রশ্ন করল মুসা। রকি বীচে ফিরে এসেছে তিন গোয়েন্দা, হেডকোয়ার্টারে বসেছে। লম্বা লোকটা আসলে কে? রবিনের প্রশ্ন। সঙ্গে সঙ্গে জবাব দিল না কিশোর। চেয়ারে হেলান দিয়ে বসেছে, চোখেমুখে বিরক্তির ছাপ। হাতের তালুর দিকে চেয়ে বলল, আমি একটা আস্ত...

০৬. সেদিন সকালে হাসপাতালে

সেদিন সকালে হাসপাতালে বাবাকে দেখে সবে ফিরে এসেছি, শুরু করল টিনহা, ওর অফিসে ফোন বাজল। ধরলাম। বিংগো উলফ। দক্ষিণ অঞ্চলের লোক, বড়ি খুব সম্ভব অ্যালাবামায়। এর আগেও দু-তিনবার দেখেছি ওকে, বাবার সঙ্গে মাছ। ধরতে গেছে। ফোনে উলফ বলল, সৈকতে আটকে পড়া একটা তিমি দেখেছে সে। বলে গেল...

০৭. নীল বনেটের, বলল কিশোর

নীল বনেটের, বলল কিশোর, এই রহস্যের সঙ্গে কি সম্পর্ক? প্রশ্নটা করেছে সে নিজেকেই। মুখ ফুটে ভাবনা বলা যেতে পারে একে। টিনহার সঙ্গে উলফের বাড়ি গেছে, তার পরের দিনের ঘটনা। স্যালভিজ ইয়ার্ডের গেটে অপেক্ষা করতে করতে অসহিষ্ণু হয়ে উঠেছে তিন গোয়েন্দা, বা বার তাকাচ্ছে পথের দিকে।...

০৮. পথের মাঝখানে গাড়ি নিয়ে

পথের মাঝখানে গাড়ি নিয়ে এসেছে টিহা উল্টো দিক থেকে যদি কোন গাড়ি আসে এখন, মুখোমুখি সংঘর্ষে চুরমার হয়ে যাবে দুটোই। সামনে গাড়ি দেখা গেল না। ভীষণ দৈত্য মনে হচ্ছে এখন সামনের মোড়ের পাথুরে পাহাড়ী দেয়ালটাকে! ড্যাশবোর্ডে পা, আর সীটের পেছনে পিঠের চাপ দিয়ে শরীরটাকে কঠিন করে তুলেছে...

০৯. কি বুঝলি, কিশোর

কি বুঝলি, কিশোর? মেরিচাচী বললেন। পারবি? ওয়ার্কশপের কোণে রাখা পুরানো ওয়াশিং মেশিনটার দিকে তাকিয়ে আছে কিশোর। আগের দিন কিনে এনেছেন ওটা রাশেদ চাচা। এককালে বোধহয় সাদা রঙ ছিল, এখন হলদে হয়ে গেছে, জাগায় জায়গায় চলটা ওঠা। জায়গায় জায়গায় বাকাচোরা, টেপ খাওয়া। কিশোরের মনে হলো,...

১০. যা যা করতে বলা হলো

যা যা করতে বলা হলো, ঠিক তাই করল কিশোর। মঞ্চের কাছ থেকে হেঁটে চলল, যে পথে এসেছে, সেটা নয়, অন্য পথে। আরেকটা গাছের গায়ে আচযবোধ আঁকার সুযোগ খুজছে। কিন্তু পকেট থেকে চক বের করার সুযোগ নেই। অন্য কায়দার ধরেছে এখন তাকে লোকটা, ডান হাত মুচড়ে নিয়ে এসেছে পিঠের ওপর, একেবারে শোল্ডার...

১১. প্রথমে একটু দ্বিধায় পড়ে গিয়েছিলাম

প্রথমে একটু দ্বিধায় পড়ে গিয়েছিলাম, বলল রবিন। তোমার সাইকেলটা দেখলাম মঞ্চের গায়ে ঠেকা দেয়া। চকের চিহ্ন দেখে ঢুকেছি, কিন্তু কোন পথে বেরিয়েছ, তার কোন চিহ্ন নেই। মাথা নাড়ল কিশোর। যাওয়ার আগে বুদ্ধি করে তোমাদের জানিয়ে ভালই করেছি, বেঁচে গেছি, নইলে যা বিপদে পড়েছিলাম। কথা হচ্ছে...

১২. বিনকিউলার চোখে লাগিয়ে

বিনকিউলার চোখে লাগিয়ে সামনের ডেকে দাঁড়িয়ে আছে কিশোর। তিন মাইল দূরে তীরের দিকে নজর। জাহাজটা নড়ছে, টাওয়ার দুটোও সরছে। আরও একশো গজ-হিসেব করল সে, তারপরই এক লাইনে এসে যাবে দুটো। হুইল ধরে রয়েছে উলফ। গতি কমান, নির্দেশ দিল কিশোর। হ্যাঁ, এই গতি স্থির রাখুন। একে অন্যের দিকে...

১৩. এত নিচে নামা সম্ভব না

এত নিচে নামা সম্ভব না,ককপিটে উলফের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে আছে টিনহা। ওই বোট পর্যন্ত যেতে পারব না। তাহলে? যা বলছি, শুনুন। রোভারকে দিয়ে কাজ করাতে হলে ফালতু একটা কথা বলবেন না। যা যা জিজ্ঞেস করব, বলবেন। সব ইনফরমেশন চাই। ওকে? টিনহার চোখে চোখে চেয়ে রইল উলফ, লোকটার দৃষ্টিতে আগুন...

১৪. ওভার অ্যাণ্ড আউট

শুনেছি, কিশোর। ওভার অ্যাণ্ড আউট! ওয়াকি টকির সুইচ অফ করে পাশের পাথরের ওপর রেখে দিল রবিন। এখান থেকে উলফের বোট দেখা যাচ্ছে না। কতদূরে আছে, তা-ও বোঝার উপায় নেই। তবে তিমির শ্রবণশক্তি খুবই তীক্ষ্ণ, এটা জানা আছে, জেনেছে বই। পড়ে। সাধারণ দৃষ্টিতে তিমির কান চোখে পড়ে না, কাছে...

১৫. হাতের ওয়াটারপ্রুফ ঘড়ি

হাতের ওয়াটারপ্রুফ ঘড়ির দিকে তাকাল রবিন। পঁচিশ মিনিট। পঁচিশ মিনিট ধরে রোভারের গান বাজাচ্ছে সে। আর পাঁচ মিনিট পরেই শেষ হয়ে যাবে ফিতে, আবার শুরুতে পেঁচিয়ে এনে তারপর প্লে করতে হবে। পানিতে নেমে উবু হয়ে পানির নিচে ধরে রেখেছে বাক্সটা। একবার এপায়ের ওপর ভর রাখছে, একবার ও-পায়ের...

১৬. ওই, চেঁচাল উলফ

ওই, চেঁচাল উলফ, ওই জানোয়ারটা। জানোয়ারকে বলল জান-ওয়ার। চোখ থেকে বিনকিউলার সরিয়ে কিশোরকে বলল সে, ঠিকই আন্দাজ করেছ। ব্যাটা ওখানেই ফিরে গেছে। তাড়াতাড়ি ককপিটে এসে কিশোরকে সরিয়ে হুইল ধরল। টিনহাও দেখেছে রোভারকে। রেলিঙে বুকে দাঁড়িয়েছে সে। ডাকল, রোভার। এই রোভার! ডাক শুনে সঙ্গে...

১৭. সহজেই নীল বনেটকে ধরে

সহজেই নীল বনেটকে ধরে ফেলেছে পুলিশ, বিখ্যাত চিত্রপরিচালক ডেভিস ক্রিস্টোফারের অফিসে তার বিশাল টেবিলের সামনে বসে কাছে কিশোর। ওর ঝরঝরে লিমোসিনে করে মেকসিকো পালাচ্ছিল। পথে খারাপ হয়ে যায় গাড়ি। স্যান ডিয়েগোর কাছে। পুলিশের কাছে সব বলে দিয়েছে ও। চেয়ারে হেলান দিলেন মিস্টার...