বড়দিনের ছুটি

বড়দিনের ছুটি - তিন গোয়েন্দা সিরিজ। সেবা প্রকাশনী। প্রথম প্রকাশ: ২০০০

০১. টেলিফোনে কথা বলছেন রবিনের আম্মা

টেলিফোনে কথা বলছেন রবিনের আম্মা মিসেস মিলফোর্ড। কিশোরের চাচীর সঙ্গে। এবারকার বড়দিনে বড় করে একটা পার্টি দিতে চান কয়েক জন বান্ধবী মিলে। হ্যাঁ হ্যাঁ, শখানেক মাংসের বড়া হলেই চলবে, মেরিচাচীকে বললেন মিসেস মিলফোর্ড।মুসার আম্মাকে বলেছি অ্যাপল পাই আর কেক আনতে। মুরগী-টুরগী আর...

০২. সেদিন বিকেলে কিশোরদের বাগানে

সেদিন বিকেলে কিশোরদের বাগানের ছাউনিতে জমায়েত হলো সবাই। কিশোর, মুসা, রবিন, ফারিহা টিটু তো রয়েছেই-দলে নতুন যুক্ত হয়েছে আরও তিনজন: বব, অনিতা ও ডলি। গ্ৰীনহিলস স্কুলে পড়ে। মুসা আর রবিনের বন্ধু। গোয়েন্দাগিরির বেজায় শখ। বহুদিন ধরে চাপাচাপি করছে মুসা আর, রবিনকে। ওদের অনুরোধে...

০৩. লোকটা অনেক লম্বা

লোকটা অনেক লম্বা, উত্তেজিত কষ্ঠে বলল অনিতা। মাথার হ্যাটটা চোখের ওপর নামিয়ে রেখেছিল। কোটের কলার তুলে দিয়ে চিবুক ঢেকে দিয়েছিল এমন ভাবে, যাতে তার চেহারা বোঝা না যায়। কিন্তু তার বা গালের কাটা দাগটা ঠিকই দেখে ফেলেছি আমি। বেকারিতে যা যা শুনে এসেছে, সবাইকে জানাচ্ছে সে। ছটা...

০৪. বাসে করে বিকেল চারটের সময়

বাসে করে বিকেল চারটের সময় এসে ডগলাসের ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের সামনে নামল ওরা। বড় দিনের সময় এখন, সকালে যেমন ক্রেতার ভিড় ছিল, বিকেল বেলাও একই রকম ভিড়। ওই যে ওরা!, উত্তেজিত ভঙ্গিতে দুই ফাদার ক্রিস্টমাসকে দেখাল বব। এ ভাবে চেঁচিও না, সাবধান করল কিশোর। এসো আমার সঙ্গে। সবাইকে...

০৫. মিনিট পনেরো পরে আবার

মিনিট পনেরো পরে আবার ক্রিস্টমাস গাছগুলোর পেছনে জমায়েত হলো গোয়েন্দারা। সাবধান রইল যাতে কারও চোখে না পড়ে। ওরা এখন নিশ্চিত, ফাদার ক্রিস্টমাসের ছদ্মবেশের আড়ালে লুকিয়ে আছে ভয়ানক দুজন অপরাধী। কিন্তু দুটো বড় প্রশ্নের উত্তর অজানা রয়ে গেল।এক, কি করে প্রমান করবে লোকগুলো...

০৬. ডানে যেতে হবে

ডানে যেতে হবে, রবিন বলল। ভাল করে দেখে রেখেছি আমি। তা তো বুঝলাম,  কিশোর বলল। কিন্তু দরজা তো দুটো। কোনটায় টোকা দেব? প্রথম দরজাটায় গিয়ে কান পাতল মুসা। রেডিও বাজছে, জানাল সে। পায়ের শব্দও শোনা যাচ্ছে। হঠাৎ মেয়ে মানুষের কণ্ঠ শুনতে পেল। দরজার একেবারে কাছে। চমকে গিয়ে লাফ দিয়ে...

০৭. বহুত সময় লাগিয়ে দিলে

বাপরে, বহুত সময় লাগিয়ে দিলে! তিন গোয়েন্দাকে লিফট থেকে বেরোতে দেখেই বলে উঠল বব। আমরা আর পাঁচ মিনিট দেখেই দেখতে যেতাম কি হয়েছে তোমাদের এত দেরি করলে কেন? কি বলল লোকটা জানতে চাইল ডলি। জাল পয়সাগুলো কি ওরাই বানাচ্ছে? অনিতার প্রশ্ন। অন্য লোকটার খবর কি? জিজ্ঞেস করল...

০৮. কোন ধরনের মেশিন-টেশিন হবে

কোন ধরনের মেশিন-টেশিন হবে, বব বলল অবশেষে। ফার্মের ভেতর থেকেই আসছে শব্দটা, অনিতা বলল। আমি যাচ্ছি, কিশোর বলল। দেখে আসিগে। তোমরা সব এখানেই থাক। আমি আসি, মুসা বলল। না, তুমিও থাকো। লোক তো নিশ্চয় আছে। আমাকে ধরে ফেলতে পারে। দুজন ধরা পড়ার চেয়ে একজন পড়া ভাল।কেঁপে উঠল...

০৯. ওদিকে সমস্ত রসদ শেষ করে ফেলেছে

ওদিকে সমস্ত রসদ শেষ করে ফেলেছে বব বাহিনী। খামারবাড়ির দরজার দিকে তাকিয়ে অস্থির হয়ে উঠল। বেরোচ্ছে না কেন এখনও কিশোররা? কুয়োর কাছে দাঁড়িয়ে আছে প্রহরী। এদিক ওদিক তাকাচ্ছে। ঝট করে বুদ্ধিটা উদয় হল অনিতার মাথায়। বিপজ্জনক। কিন্তু কার্যকরী বলল, যে কোন ভাবেই হোক, লোকটাকে দরজার...