খোঁড়া গোয়েন্দা

খোঁড়া গোয়েন্দা - তিন গোয়েন্দা সিরিজ - ভলিউম ১০ - প্রথম প্রকাশ : জুলাই, ১৯৯০ - সেবা প্রকাশনী

০১. ইস, কি বৃষ্টিরে বাবা

ইস, কি বৃষ্টিরে বাবা! বলল, রেনকোট পরা মহিলা। এক ঝলক ঝড়ো হাওয়া হয়ে গেল, উইলশায়ার বুলভারের ওপর দিয়ে। টান দিয়ে কেড়ে নিতে চাইল মহিলার ছাতা, পারল না। কিন্তু পুরোপুরি উল্টে গেল ছাতাটা, মট মট করে ভাঙল তিনচারটা শিকের জোড়া। ধেয়ে গেল বাতাস, ঝাপটা মেরে বৃষ্টি দিয়ে ভিজিয়ে দিল...

০২. অন্ধ না-ও হতে পারে

অন্ধ না-ও হতে পারে, রবিন বলল। চোখে না দেখলে এত তাড়াতাড়ি পালাল কি করে? কেউ কেউ পারে, বলল কিশোর। চোখ হারালে কানের ক্ষমতা বেড়ে যায়। প্রায় চোখওয়ালা লোকের মতই চলতে পারে তখন। চোখওয়ালাদের অন্ধকারে চলতে অসুবিধে, অন্ধের সেই অসুবিধেও নেই। পরদিন সকালে, পাশা স্যালভিজ ইয়ার্ডে...

০৩. মাথার ওপর হাত তুলল কিশোর

মাথার ওপর হাত তুলল কিশোর। ঘাড়ের কাছে শিরশির করছে। আমি…আমি…। চুপ কর, শান্তকণ্ঠে আদেশ হল। কাঠের মেঝেতে পায়ের শব্দ। চওড়া দরজায় দেখা দিলেন ধূসর চুল মানুষটা। হাতের লাঠিতে ভর দিয়ে দাঁড়িয়ে মাথা সামান্য কাত করে তাকালেন কিশোরের দিকে। ভুরু কোঁচকানো। কি হয়েছে, কিম?...

০৪. বুঝতে পারছি না কিশোর বলল

বুঝতে পারছি না! কিশোর বলল। ভিকটর সাইমনের টাকার অভাব হবার কথা নয়। তাঁর সব বই বেস্টসেলার। কিন্তু ব্যাংক ডাকাতিতে যদি জড়িতই না হবেন, প্রশ্ন তুলল রবিন। সিকিউরিটি গার্ড এখানে কেন? জানি না। বিকেলের শুরু। হেডকোয়ার্টারে আলোচনায় বসেছে তিন গোয়েন্দা। ওরা সাইপ্রেস ক্যানিয়ন...

০৫. খুব খারাপ অবস্থা আমার

খুব খারাপ অবস্থা আমার! রোজার বলল। প্রাস্টিকের টেবিলক্লথের ডিজাইনে আঙুল বোলাচ্ছে। উদ্বিগ্ন ভঙ্গিতে তাকাল তিন গোয়েন্দার দিকে। এই ডাকাতি কেসের মীমাংসা যতদিন না হবে, আমাকে কাজে যেতে মানা করে দিয়েছে ওরা। মুখ ফুটে ডাকাত বলে না, তবু বুঝতে তো পারি। আচ্ছা, তোমরাই বল, আমাকে কি...

০৬. পরদিন সকাল নটায় রকি বীচ ছাড়ল

পরদিন সকাল নটায় রকি বীচ ছাড়ল রবিন মিলফোর্ড। কোস্ট হাইওয়ে ধরে সাইকেল চালাল দক্ষিণে, সান্তা মনিকায় যাবে। থিফট অ্যাণ্ড সেভিংস কোম্পানির আশেপাশের স্টোরগুলোতে খোঁজখবর নেবে অন্ধ লোকটার, আর এসেছে কিনা জিজ্ঞেস করবে। তারপর আবার রকি বীচে ফিরে যাবে লাইব্রেরিতে, যেখানে পার্টটাইম...

০৭. মুসা নিজেই প্রস্তাব দিল

মুসা নিজেই প্রস্তাব দিল, জেটির কাছে থেকে বিলের ওপর নজর রাখবে। বলল, যদি কিছু করে, দেখতে পারব। তোমাকে চিনে ফেলেছে সে। আমাকে চেনে না, কাজেই কাছাকাছি থাকা সহজ হবে। খেয়ালই করবে না। খুব সাবধান, সতর্ক করল কিশোর। থাকব। সাইকেল নিয়ে রওনা হয়ে গেল কিশোর। রাস্তা পেরিয়ে সৈকতের দিকে...

০৮. কি যে করছে ওরা আল্লাই জানে

কি যে করছে ওরা আল্লাই জানে, মুসা বলল। তবে বাজি রেখে বলতে পারি, ফোক সং-টং সব বাজে কথা। পরদিন সকালে হেডকোয়ার্টারে মেঝেতে হাত-পা ছড়িয়ে বসে আছে ও। বাজিতে হেরেও যেতে পার, বলল কিশোর। সামনে ডেস্কের ওপর রাখা লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমস-এর একটা সংখ্যা। সাতাশ তারিখে কলিসিয়ামে সত্যিই...

০৯. পথের শেষ মাথায় পৌঁছে

পথের শেষ মাথায় পৌঁছে ডানে মোড় নিল মেয়েটা। চোখের আড়াল হয়ে গেল। দ্রুত পা চালাল কিশোর। মোড় ঘুরতেই আবার দেখল ওকে, পুরানো একটা অ্যাপার্টমেন্ট হাউসে ঢুকছে। ধীরে এগোল কিশোর। একটা সুইমিং পুলকে তিনদিক থেকে ঘিরে রেখেছে বাড়িটা। চতুর্থ দিকে সাদা রঙ করা লোহার বেড়া। মেয়েটাকে দেখা...

১০. ডেস্কের ওপাশ থেকে দুই বন্ধু

ডেস্কের ওপাশ থেকে দুই বন্ধুর দিকে তাকাল কিশোর। লাঞ্চের পর হেডকোয়ার্টারে আলোচনায় বসেছে। সিনথিয়ার সঙ্গে কি কি কথা হয়েছে, জানিয়েছে দুজনকে। ধর, কিশোর বলল। অন্ধ ভিক্ষুকটা যদি পুরুষ না হয়ে মেয়েমানুষ হয়? এক মুহূর্ত ভাবল রবিন। মাথা নাড়ল। আমার মনে হয় না। কিন্তু হতে তো পারে?...

১১. রোজারের দরজায় টোকা দিল কিশোর

আধ ঘন্টা পর রোজারের দরজায় টোকা দিল কিশোর। খুলে দিল রক রেনাল্ড। গলাবন্ধ কালো শার্ট গায়ে, চোখে সানগ্লাস। ও, তুমি, রক বলল। আমাদের মহাগোয়েন্দা। কিছু জেনে এসেছ? রোজার খুশি হবে তো? রেগে গেল কিশোর। কিছু বলল না। ঝকঝকে পরিষ্কার লিভিং রুম পেরিয়ে রান্নাঘরে এসে ঢুকল। জানালার ধারে...

১২. মাটিতে বসে আছে কিশোর

মাটিতে বসে আছে কিশোর। অল্প অল্প মাথা ঘুরছে এখনও। দৃষ্টি পরিষ্কার হতেই লোকটার ফেলে যাওয়া জিনিসটার ওপর চোখ পড়ল। ওঅর্কবেঞ্চের নিচে। প্লাস্টিকের বাক্স, একপাশে কিছু ছিদ্র। ইনটারেসটিং, বলল সে। যেন তার কথার জবাবেই দুই সুড়ঙ্গের ঢাকনা সরিয়ে উঁকি দিল মুসা। জিজ্ঞেস করল, কি...

১৩. মজার কাজ করছেন

মজার কাজ করছেন, রবিন বলল। জেটির কিনারে দাঁড়িয়ে আছে সে। শুক্রবারের সকাল। জোয়ার নেমে গেছে। বিল রয়েছে টিনার ডেকে, হুইলহাউসের দেয়াল রঙ করছে। জবাব দিল না লোকটা। এমনকি মুখ তুলেও তাকাল না। গত বছর আমাদের বাড়ি রঙ করা হয়েছিল, আবার বলল রবিন। মিস্ত্রিদের সাহায্য করেছিলাম।...

১৪. সৈকত ধরে এগিয়ে আসছে বিলের দুই বন্ধু

সৈকত ধরে এগিয়ে আসছে বিলের দুই বন্ধু। এখনও হুইলহাউস রঙ করার‍্য ব্যস্ত বিল। বিশ মিনিট আগে সব কিছু যেমন দেখে গিয়েছিল রবিন, তেমনি রয়েছে, শুধু বদলে গছে তার মন। বিপদ আসছে! হুঁশিয়ার করে দিয়েছে তাকে মিসেস নিকারো। হাইওয়ের একশো মিটার ভাটিতে একটা খুদে শপিং প্রাজা। একটা ছোট...

১৫. রাস্তার মোড়ে বসে আছে কিশোর

রাস্তার মোড়ে বসে আছে কিশোর। অ্যাপার্টমেন্ট হাউসটার দিকে চেয়ে থাকতে থাকতে ক্লান্ত, বিরক্ত হয়ে পড়েছে সে। সিনথিয়াকে গ্রাহক বানানোর চেষ্টা করেছে। আরেকবার। সকাল নটায়। আগের বার তো অন্তত কথা বলেছিল, এবার তা-ও বলল না। ফিরে এসে পথের মোড়ে বসেছে কিশোর। দেখেছে, ময়লা কতগুলো কাপড়...

১৬. ঘরের ভেতর খাবারের চমৎকার গন্ধ

ঘরের ভেতর খাবারের চমৎকার গন্ধ, বিশেষ করে পনির আর টোম্যাটো সস। অন্য সময় হলে অবশ্যই ভাল লাগত কিশোরের, এখন লাগছে না। লিভিং রুমে বসে মিসেস নিকারোর স্বপ্ন বিবরণ শুনছে। একঘেয়ে কণ্ঠে বলেই চলেছে মহিলা। ভুরু কোঁচকাল কিলোর। বাধা দিয়ে বলল, আপনার স্বপ্ন কি সব সময়ই সত্যি হয়? না,...

১৭. একছুটে নিকারোদের সীমানা পেরিয়ে

একছুটে নিকারোদের সীমানা পেরিয়ে গিয়ে হাইওয়েতে উঠল কিশোর। লুকাতে হলে, বিলের হাত থেকে বাঁচতে হলে তাড়াতাড়ি কোথাও লুকিয়ে পড়তে হবে। কিন্তু কোথায়? পথের একপাশে দাঁড়িয়ে আছে একটা গাড়ি, কোন ক্যাম্পারের হবে। পেছনের দরজা খোলা। গাড়ির গায়ে ঠেস দিয়ে দাঁড়িয়ে পাহাড়ের দিকে তাকিয়ে...

১৮. গ্যারেজ থেকে ধরাধরি করে

গ্যারেজ থেকে ধরাধরি করে একটা মই নিয়ে এল দুজনে। লাগাল রকের ঘরের জান্নালায়। জানালা খোলা, কাজেই ঢুকতে অসুবিধে হল না কিশোরের। প্রথমেই চোখ পড়ল, ড্রেসারের ওপর রাখা একটা রেকর্ডিং সিসটেমের ওপর। যন্ত্রে লাগানো টেপটা রিউণ্ড করে প্লে করল সে। এইমাত্র রোজারের সঙ্গে রান্নাঘরে বসে...

১৯. ব্যাগটা দেখে ফেলেছিলে

ব্যাগটা দেখে ফেলেছিলে, তাই না? রক বলল। আমাকে ফাঁকি দিতে চেয়েছ। আপনিও ফাঁকি দিয়ে আমাদেরকে এখানে নিয়ে এসেছেন, বলল কিশোর। তাকে আর মুসাকেও চেয়ারে বসানো হয়েছে। বেঁধেছে বিলের রুমমেট, তার নাম এতক্ষণে জানা হয়ে গেছে ওদের, পিনটো। রোজার কোথায়? রক জিজ্ঞেস করল। রাস্তায়? জবাব দিল...

২০. দুলে উঠল ঘরটা

দুলে উঠল ঘরটা। মেঝেতে পড়ে ল্যাম্প ভাঙল, ইলেকট্রিকের তার ছিঁড়ে গেল, ফুলিঙ্গের ফুলঝুরি ছিটাচ্ছে। আগুন যেন না ধরে! ঈশ্বর! প্রার্থনা করছে এলসি। আগুন ধরতে দিয়ো না! আরও ফুলঝুরি ছিটল কয়েক সেকেণ্ড, তীব্র নীলচে সাদা আলো ঝিলিক দিল। তারপর অন্ধকার। কাঠের গোঙানি বাড়ছে।...