আমিই কিশোর

আমিই কিশোর - কাহিনি রচনা: কাজী শাহনূর হোসেন - তিন গোয়েন্দায় রূপান্তর: শামসুদ্দীন নওয়াব। প্রথম প্রকাশ: ২০১০

০১. চোখ মেলে বিছানায় উঠে বসলাম

চোখ মেলে বিছানায় উঠে বসলাম। আড়মোড়া ভেঙে হাই তুললাম। আউ! বাঁ কাঁধ ব্যথা করছে! কাঁধ ডলে দেয়াল ঘড়ির দিকে চাইলাম। সকাল সাতটা পঁচিশ? চাচা-চাচী আমাকে ডাকেনি কেন? স্কুলে তো দেরি হয়ে যাবে আমার! বিছানা থেকে লাফিয়ে নেমে বাথরুমের দিকে এগোলাম। আয়নায় কাঁধটা দেখে নিলাম। জখমটা...

০২. হাসিতে ফেটে পড়লাম

হাসিতে ফেটে পড়লাম। ঠেকাতে পারলাম না। তোমরা সবাই মিলে মজা করছ! বললাম। কীসের মজা? প্রশ্ন করল জোয়ান। কে এ? ওর এবং অন্যদের মুখের চেহারা দেখে মনে হচ্ছে ওরা আমাকে চেনে না। মুসার দিকে ঘুরে দাঁড়ালাম। শোনো, মুসা, বাসাতেও মশকরা করে আমার বইয়ের ব্যাগ লুকিয়ে ক্লান্ত হয়েছে।...

০৩. সামান্য আতঙ্ক বোধ করলাম

এই প্রথমবারের মত সামান্য আতঙ্ক বোধ করলাম। কম্পিউটার পারফেক্ট নয়, ভুল করে, বললাম। ঘুরে তাঁর চেয়ারের কাছে এলাম। কম্পিউটার স্ক্রীনের দিকে দৃষ্টি আমার। নিজেই দেখো, বললেন মিসেস পোর্টার। এখানে K অক্ষরের মধ্যে কোথাও তোমার নাম নেই। কম্পিউটারের কথা বাদ দিন, মিসেস পোর্টার।...

০৪. আমি ওদের চাইতে সিঁড়ির কাছাকাছি

আমি ওদের চাইতে সিঁড়ির কাছাকাছি, তাই এক দৌড়ে দুটো করে ধাপ ভেঙে উঠে গেলাম। একটু পরেই মেইন ফ্লোরে ফিরে এলাম। মুহূর্তের মধ্যে সদর দরজা দিয়ে বেরিয়ে গেলাম। ফিরে এসো! আমরা তোমাকে কিছু করব না, আমরা তোমাকে সাহায্য করতে চাই! মি. লাউয়ি আমার উদ্দেশে চেঁচালেন। স্কুল...

০৫. সার্জেন্ট কলিন্স যখন নিশ্চিত হলেন

সার্জেন্ট কলিন্স যখন নিশ্চিত হলেন আমার কাছে বিপজ্জনক কোন অস্ত্র নেই, তখন আমাকে ঘুরিয়ে তার মুখোমুখি দাঁড় করালেন। সার্জেন্ট কলিন্স, এমন করছেন কেন? প্রশ্ন করলাম। আমার দিকে চাইলেন তিনি। তুমি আমার নাম জানলে কীভাবে? একদৃষ্টে তাঁর দিকে চেয়ে রইলাম। ওঁর নাম জানলাম কীভাবে! গত...

০৬. হাসপাতালে পৌঁছনোর আগ পর্যন্ত

হাসপাতালে পৌঁছনোর আগ পর্যন্ত ছুটে চললাম আমি। এখানে কয়েকটা এন্ট্রান্স। একটায় লেখা: ইমার্জেন্সি। অনুভব করলাম এটাও একটা ইমার্জেন্সি, কিন্তু জানি এখন মাথা ঠাণ্ডা রাখতে হবে। মেইন এন্ট্রান্স দিয়ে ভিতরে ঢুকলাম। ওয়েটিং এরিয়ায় বেশ কিছু মানুষ-জন বসা। জনাকয় ডাক্তার আর নার্স...

০৭. দ্রুত চিন্তা করতে হবে

দ্রুত চিন্তা করতে হবে। বিন কমবয়সী এবং চটপটে ধরনের। এবং নিঃসন্দেহে আমার চাইতে শক্তিশালী। ফাইল চাবিগুলো তুলে ধরলাম। বিন, এগুলো ধরুন! চেঁচিয়ে উঠলাম। চাবিগুলো হঠাৎই ছুঁড়ে দিলাম ভােলা এক জানালা লক্ষ্য করে। না! চিৎকার ছাড়ল বিন। জোরে চুঁড়িনি, এমনভাবে ছুঁড়েছি বিন যাতে জানালা...

০৮. সব কিছু স্বাভাবিক হয়ে এল

কী চান? কে আপনি? চেঁচিয়ে উঠলাম। এবং হঠাই সব কিছু স্বাভাবিক হয়ে এল। মেইন স্ট্রীট আবারও নিজের নির্জন রূপ ফিরে পেল। ঘুরে জানালাটার দিকে চাইলাম, আমি যেখানে মিস লিকে দেখেছি কিংবা কল্পনা করেছি। এটা নতুন এক চাইনিজ রেস্তোরা, কম দামে ভাল ফাস্ট ফুড পরিবেশনের জন্য নাম কামাতে...

০৯. কে হতে পারে

কে হতে পারে? ঘড়ির দিকে চাইলাম। দুটো বেজে পাঁচ। চাচা-চাচী হতে পারে না। তবে কি ওরা একজন এসে নিশ্চিত হতে চাইছে অচেনা ছেলেটি-আমি-এখানে নেই? পায়ের শব্দ। প্রথমে মেইন হল-এ, তারপর কিচেনে। কে যেন গুনগুন করছে। গুন-গুন? আজকে বুধবার! মিসেস ওয়েসলি প্রতি বুধবার আসে অল্প-স্বল্প...

১০. চুম্বকের টানে

চুম্বকের টানে যেন রেস্তোরার জানালায় সেঁটে গেলাম আমি। মিস লি তখনও আমার দিকে চেয়ে মুচকি হাসছেন। কী ব্যাপার! আপনি আমার কাছে কী চান? চেঁচিয়ে উঠলাম। ঘণ্টাধ্বনি সহসা থেমে গেল। পিনপতন নিস্তব্ধতা। দৃষ্টিসীমার মধ্যে কেউ নেই। তুমি কেন এখানে এসেছ তুমি জাননা, কিশোর, বললেন মিস...

১১. সোজা হয়ে বসলাম

সোজা হয়ে বসলাম। আমি আমার বিছানায়, নিজের কামরায়। কাঁধে সাঙ্ঘাতিক ব্যথা। সারা দেহ ঘামে ভিজে গেছে। ঘড়ির দিকে চাইলাম। সকাল ৭:২৫। আচমকা চাচা-চাচী হুড়মুড় করে ঘরে ঢুকল। কিশোর, কিশোর, তোর ঘুম ভেঙেছে, তুই ঠিক আছিস, আল্লাকে হাজারও শুকরিয়া! চাচী প্রায় ছুটে এসে আমাকে জড়িয়ে...