অবাক কাণ্ড

অবাক কাণ্ড - তিন গোয়েন্দা সিরিজ - ভল্যুম ১৮ (৩)

০১. ঘটনাটা কি

ঘটনাটা কি…? গাড়ির ইঞ্জিনের ওপর থেকে মুখ তুলে তাকিয়েই বলে উঠল কিশোর পাশা। সোজা হতে গিয়ে মাথা বুকে গেল পুরানো সাদা রঙের শেভি ইমপালার হুডে। মাল নিয়ে ফিরে এসেছেন রাশেদ পাশা। উদ্ভট সব জিনিস কেনায় জুড়ি নেই তার, কিন্তু এবার যেন সব কিছুকে ছাড়িয়ে গেছেন। ইয়াডের বড়...

০২. ভয়ঙ্কর মানুষটাকে দেখে

ভয়ঙ্কর মানুষটাকে দেখে আরেকটু হলেই হাত থেকে কমিকের বাক্স খসে পড়ে যাচ্ছিল কিশোরের। লাফিয়ে এলিভেটরে উঠে লোকটা বলল, সরি, চমকে দিলাম। গোয়েন্দাদেরকে একধারে সরে যেতে দেখে হাসল। কাঁধের গিঁটলি হয়ে যাওয়া একটুকরো মাংস দুই আঙুলে টিপে ধরল সে। ল্যাটেক্স সেজেছি আমি। কমিকের মাংস...

০৩. হঠাৎ এই ধোঁয়া দেখে ভয়ে চিৎকার

হঠাৎ এই ধোঁয়া দেখে ভয়ে চিৎকার করে উঠল কিছু কমিক ক্রেতা। কিন্তু এই চিৎকার কিছুই না, আসল হট্টগোল শুরু হল ধোঁয়া সরে যাওয়ার পরে। হায় হায়রে! গলা ফাটিয়ে চিৎকার করতে লাগলেন ম্যাড ডিকসন, আমার সর্বনাশ করে দিয়েছে! ডাকাতি! মাথা ঝাঁকাচ্ছেন বার বার, তাতে এলোমেলো চুল আরও ছড়িয়ে...

০৪. মাথা নিচু করে নিচের চত্বরে

মাথা নিচু করে নিচের চত্বরে পড়তে যাচ্ছে মুসা। মরিয়া হয়ে শূন্যেই শরীরটাকে বাঁকাল সে। বান মাছের মত শরীর মুচড়ে সরাসরি চত্বরে পড়া থেকে বাঁচল কোনমতে। ডাইভিং বোর্ড থেকে ঝাঁপ দিতে দিতেই এই কায়দাটা রপ্ত করেছে। সুইমিং পুলের দিকে সরে চলে এসেছে। নামছে তীব্র গতিতে। এই ডাইভ তাকে...

০৫. এসব নিয়ে কি এখানেই কথা বলতে হবে

হুফার, মরগান বললেন, এসব নিয়ে কি এখানেই কথা বলতে হবে? দরজায় দাঁড়িয়ে আছেন তিনি। অস্বস্তিতে পড়ে গেছেন, মুখ দেখেই অনুমান করা যায়। ইতিমধ্যেই লোক জমা আরম্ভ হয়েছে। কৌতূহলী চোখে তাকাচ্ছে দুজনের দিকে। জনতার ভিড়ে সামিল হলো কিশোর আর রবিন। চিৎকার করে বলছে তখন হুফার, কে জানি...

০৬. ডিকসনকে তাঁর দোকানের সামনে রেখে

ডিকসনকে তাঁর দোকানের সামনে রেখে আবার রওনা হলো তিন গোয়েন্দা। সেঞ্চুরি যাও ধরে এগোল। ড্রাইভিং হুইল ধরে বসেছে মুসা, সামনের দিকে তাকিয়ে ফোঁস করে একটা নিঃশ্বাস ফেলল। ভাবসাবে মনে হলো, আমাদেরকে তিন গোয়েন্দা না ভেবে তিন ভাঁড় ভেবেছেন ম্যাড। থ্রী স্টুজেস। এবং তাঁর সেই ভাবনাটারই...

০৭. আলিবাইগুলো সব যাচাই করে দেখতে হবে

আজ রাতেই আলিবাইগুলো সব যাচাই করে দেখতে হবে, বলল কিশোর। ব্যাংকোয়েট রুমে ঢুকেছে দুই সহকারীকে নিয়ে। ডাকাতির সময় ম্যাড ডিকসনের স্টলের কাছাকাছি ছিল এরকম কয়েকজনের সঙ্গেও কথা বলব। টাইটা সমান করতে লাগল সে। অস্বস্থি ফুটেছে চোখে। ভুরু কুঁচকে ফেলল মূসা। কাণ্ডটা কি হলো! এমন করছ...

০৮. খুলে গেল দরজা

খুলে গেল দরজা। একটা ছায়ামূর্তিকে দেখতে পেল কিশোর। আবছা আলোয় লোকটাকে চিনতে পারার আগেই পেছনে লেগে গেল পাল্লা। ঘরে ঢুকেছে লোকটা। বিছানার পাশের টেবিলের দিকে ঝটকা দিয়ে চলে গেল কিশোরের হাত, টেবিল ল্যাম্পের সুইচ টেপার জন্যে। কিন্তু অপরিচিত ঘরে তাড়াহুড়া করতে গিয়ে সব ভন্ডুল...

০৯. পরদিন সকালে তাড়াতাড়ি বিছানা ছাড়ল কিশোর

পরদিন সকালে তাড়াতাড়ি বিছানা ছাড়ল কিশোর। ভারি নিঃশ্বাস পড়ছে তখনও রবিন আর মুসার, ঘুমোচ্ছে। শব্দ করল না সে, ওদের ঘুম ভাঙাল না। ব্যাগ থেকে সাঁতারের স্যুটের একটা পাজামা বের করে পরল। গায়ে দিল একটা ঢোলা শার্ট। চাবি নিয়ে পা টিপে টিপে এগোল দরজার দিকে। পুলের কিনারে যাওয়ার...

১০. ভূতে তাড়া করেছে যেন

ভূতে তাড়া করেছে যেন, এমন তাড়াহুড়ো করে পানি থেকে উঠে এল কিশোর। তার কাণ্ড দেখে অবাক হলো মেয়েটা। পিঠ সোজা করে বসে তাকিয়ে রইল। পানিতে নড়াচড়া করছিল বলে ততটা ভাল করে মেয়েটাকে দেখতে পারেনি কিশোর। এবার দেখল। বড় বড় চোখ মেলে তার দিকে তাকিয়ে রয়েছে সে। রোদে শুকানোর পর চুলের রঙও...

১১. হুড়মুড় করে ঘরে ঢুকল কিশোর

হুড়মুড় করে ঘরে ঢুকল কিশোর। মূসা আর রবিনের ঘুম তখনও পুরোপুরি ভাঙেনি। শব্দ শুনে দুজনেই চোখ মেলে তাকাল। কিশোরের হাতের কমিকগুলো দেখে পুরো সজাগ হয়ে গেল। খাইছে! বিছানায় উঠে বসতে বসতে বলল মুসা, কোথায় পেলে? পানির কাছে। খুলে বলতে যাচ্ছিল কিশোর, তার আগেই ফোন বাজল। জ্বালাল! গিয়ে...

১২. এলিভেটরের দিকে ছুটে গেল কিশোর

এলিভেটরের দিকে ছুটে গেল কিশোর। পেছনে রবিন আর মুসা। ওরা এসে পৌঁছতে পৌঁছতে দরজা বন্ধ হয়ে গেল। মাঝপথে আটকে গেল মিরিনার চিৎকার। হাতে কমিকগুলো ধরাই রয়েছে। পাই করে ঘুরল কিশোর। ফ্যাকাসে হয়ে গেছে মুখ। দুই সহকারীকে বলল, এসো! ঘোরানো লোহার সিঁড়িটার দিকে দৌড় দিল সে। আগের রাতে এটা...

১৩. অটোগ্রাফ দেয়া

অটোগ্রাফ দেয়া? কিশোর বলল, আমি কমিক সংগ্রহ করি না, তার পরেও আমি জানি আইজাক হুফার কোন ক্রিমসন ফ্যান্টম বইতে সই করেনি। এডগার ডুফার আমাকে সমস্ত গল্প বলেছে। আমি নিজের চোখে দেখেছি, হুফার সই করেনি। তুমি ঠিকই বলেছ, ডিকসন বললেন। গোঁফের নিচে দেখা দিল এক চিলতে হাসি। তবে সে যাতে...

১৪. মিরিনার হাত ধরে টানতে টানতে

মিরিনার হাত ধরে টানতে টানতে দরজার দিকে ছুটল কিশোর। রবিন আর মুসাকে একথা জানানো দরকার। আহ, ছাড় না! হ্যাঁচকা টান দিয়ে হাতটা ছাড়িয়ে নিল মিরিনা। এই পোশাকে কনভেনশন ফ্লোরে যেতে পারব না আমি। কেউ আমাকে চিনে ফেলতে পারে। আর তাহলে আম্মা আমার… ছাল ছাড়াবে, কথাটা শেষ করে দিল...

১৫. কিশোরের হাত ধরে ফেলল মিরিনা

দাঁড়াও, কিশোরের হাত ধরে ফেলল মিরিনা। আসলে কোথায় যাচ্ছি আমরা? যেখান থেকে সমস্ত গোলমালের উৎপত্তি, জবাব দিল কিশোর। সুমাতো কমিকসের খানিক দূরে এসে দাঁড়িয়ে গেল সে। ভিড়ের জন্যে কাছে যাওয়ার উপায় নেই। গায়ে গায়ে লেগে যেন মানুষের প্রাচীর তৈরি হয়ে গেছে। ঢোকা যাবে? ভিড়ের দিকে...

১৬. মুঠো শক্ত করল কিশোর

মুঠো শক্ত করল কিশোর। লড়াই না করে কিছুতেই ধরা দেবে না। হেরে গেলে যাবে, সে পরে দেখা যাবে। কোনমতে নরিসকে কাবু করে ফেলতে পারলেই হলো, বাকি দুজন আর এগোবে না। লেজ তুলে দৌড় দেবে, বোঝাই যায়। নিজের ইচ্ছেয় আসেনি ওরা, নিশ্চয় জোর করে নিয়ে এসেছে নরিস। তবে বিশালদেহী লোকটাকে কাবু করা...

১৭. ঝটকা দিয়ে খুলে গেল গোল্ড রুমের দরজা

ঝটকা দিয়ে খুলে গেল গোল্ড রুমের দরজা। নাছোড়বান্দা কিছু কমিকের ভক্তের ওপর ছড়িয়ে পড়ল আলো। টেরই পেল না ওরা। গভীর ঘুমে অচেতন। যারা জেগে রয়েছে তারা তাকিয়ে রয়েছে পর্দার দিকে। আলো পড়তেই চিৎকার করে উঠল দুচারজন, এই, বন্ধ করো! দরজা বন্ধ কর! পর্দায় তখন মাকম্যানের রাজা গুঙের সঙ্গে...

১৮. ডাকাতির দায়ে জেলে যেতে হলো মরগানকে

ডাকাতির দায়ে জেলে যেতে হলো মরগানকে। তবে কনভেনশন টীফের জন্যে কনভেনশন থেমে থাকল না। চলল শেষ দিন পর্যন্ত, যতদিন চলার কথা। রবিবারে তো প্রচন্ড ভিড় হলো, সব চেয়ে বেশি ভিড়। সুমাতো কমিকের স্টল খালি, চুটিয়ে ব্যবসা করল অন্য স্টলগুলো। বেশি ভিড় হলো ম্যাড ডিসনের দোকানের সামনে, লোক...