সামবেদীয়  কুমারস্য পৌষ্টিক কৰ্ম্ম

অনুবাদ–সন্তান জন্মগ্রহণের পর সম্বৎসর পর্যন্ত মাসে মাসে জন্মতিথিতে অথবা পূর্ণিমাতে প্রাতঃকালে পিতা কৃতস্নান হইয়া “ওঁ অদ্যেত্যাদি অমুকগোত্র” ইত্যাদি মূলের লিখিত মন্ত্রে সঙ্কল্প করিয়া বরদ নামা অগ্নি স্থাপন পূর্বক বিরূপাক্ষজপান্তা কুশণ্ডিকা সমাপন করত প্রকৃত-কৰ্ম্মারম্ভে প্রাদেশপ্রমাণ ঘৃতাক্ত সমিধ্‌ ভূষ্ণীভাবে অগ্নিতে আহুতি দিয়া মহাব্যাহৃতি-হোম করিবে। তৎপরে “ওঁ ইন্দ্রাগ্নীভ্যাং স্বাহা” ও দ্যাবাপৃথিবীভ্যাং স্বাহা” “ওঁ বিশ্বেতভা দেবেভ্যঃ স্বাহা” এই তিন মন্ত্রে তিনটী আহুতি দিতে হয়। অনন্তর নামকরণোক্তক্ৰমবিপর্য্যয়ানুসারে জন্মতিথি-দেবতার উদ্দেশে এবং নক্ষত্র-দেবতার উদ্দেশে হোম করিবে। প্রথমে তিথিদেবতায়ৈ বলিয়া পরে তিথয়ে উচ্চারণ পূৰ্ব্বক হোম করিতে হয় এবং প্রথমে নক্ষত্র-দেবতার হোম করিয়া পরে নক্ষত্রের হোম করিবে। অর্থাৎ যদি প্রতিপদে জন্ম হইয়া থাকে, তাহা হইলে “ওঁ ব্রহ্মণে স্বাহা ওঁ প্ৰতিপদে স্বাহা” এই বলিয়া এবং কৃত্তিকানক্ষত্রে জন্ম হইলে “ওঁ অগ্নয়ে স্বাহা ওঁ ক্বত্তিকাভ্যঃ স্বাহা” এই মন্ত্রে হোম করিবে। এই রূপেই আহুতি দিবে। তদনন্তর মহাব্যাহৃতি হোম করিয়া প্রাদেশপ্রমাণ ঘৃতাক্ত সমিধ তৃষ্ণাভাবে অগ্নিতে হোম করত প্রকৃত-কৰ্ম্ম সমাপন পূৰ্ব্বক সৰ্ব্বকৰ্ম্ম সাধারণ শাট্যাঙ্গন-হোমাদিবামদেব্যানান্ত উদীচ্য কৰ্ম্ম সমাধা করিবে। পরিশেষে কৰ্ম্মকারয়িত্-ব্রাহ্মণকে দক্ষিণা দিতে হয়।

ইতি সামবেদীয় পৌষ্টিক কৰ্ম্ম।

Share This