অধ্যায় ১৬ : দাওয়াতের সংক্ষিপ্ত কোর্স

অতপর আমি আন্দোলনের প্রসারকল্পে আপনাদেরকে কয়েকটি পরামর্শ দিতে চাই। এ পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন সম্পর্ক পূর্ণাঙ্গ অথচ সংক্ষিপ্ত একটি পাঠ্য তালিকা রচিত হয়েছে। এর সাহায্য আপনারা সহজে কাজ করতে পারেন। এতদিন জামায়াতের কর্মীদের একটি বিশেষ সমস্যা ছিলো যে, জামায়াতের পুস্তাকাদি সাংখ্যায় যথেষ্ট ছিলো না বলে সকল লোককে তা পড়ানো অত্যন্ত অসুবিধাজনক ছিলো। এছাড়া আর একটি অসুবিধা ছিলো যে, জামায়াতের পুস্তকাদির মধ্যে থেকে কোন কোন পুস্তক অধ্যয়ন করার পর একজন লোক জামায়াতে শরীক হওয়ার মতো যোগ্যতা অর্জন করতে পারবে-এটা নির্ধারণ করা। কিন্তু আমাদের কয়েকটি জরুরী পুস্তক প্রকাশের ফলে এ অসুবিধা দূরীভূত হয়েছে।

১. বাংলাদেশ ও জামায়াতে ইসলামী
২. জামায়াতে ইসলামীর বৈশিষ্ট্য
৩. ইসলামী দাওয়াত ও কর্মনীতি
৪. মুসলমানদের অতীত বর্তমান ও ভবিষ্যত কর্মসূচী
৫. জামায়াতে ইসলামীর কার্যবিবরণী
৬. জামায়াতে ইসলামীর ইতিহাস
৭. ইসলামী বিপ্লবের ৭ দফা গণদাবী

কেউ যদি উক্ত পুস্তিকাসমূহ অধ্যয়ন করে, তাকে জামায়াতে শামিল হওয়ার ব্যাপারে তার মর্যীর উপরেই ছেড়ে দিন।
জামায়াতে শরীক হওয়ার পর তাকে অবশ্যই জামায়াতের ও যাবতীয় পুস্তিকাদি পাঠের পরামর্শ দিবেন। কারণ, এছাড়া তার চিন্তাধার ও নৈতিক চরিত্র উত্তমরূপে গঠিত হবে না এবং ইসলামী দৃষ্টিভংগীতে দৈনন্দিন জীবনের বিভিন্নমুখী সমস্যার সঠিক সমাধান কি হওয়া উচিত সে বিষয়ে স্পষ্ট ধারণা লাভ করতে পারবে না। তবে জামায়াতে শরীক হওয়ার পূর্বে সমস্ত পুস্তক পাঠ করা কারো পক্ষে জরুরী নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *