অধ্যায় ০৪ : জিহাদ ও মানব প্রেম

ইসলামী জিহাদের লক্ষ্য যেমন মহান, তেমনি তার নিয়ম পদ্ধতি, পন্থা ও কর্মসূচী, উন্নত ও পবিত্র। এ প্রসঙ্গে আল্লাহর বাণী প্রণিধান যোগ্য। আল্লাহ বলেন, এবং বাড়াবাড়ী করবে না, নিশ্চয়ই আল্লাহ সীমা লংঘনকারীদের ভালবাসেন না।

অন্যদিকে সর্বাবস্থায় ন্যায়-ইনসাফ বজায় রাখার তাগিদ দিয়েছেন আমাদের মহান প্রভু। আল্লাহ বলেন, “সাবধান! কোনো জাতি সম্প্রদায়ের প্রতি দুশমনি যেন তোমাদেরকে তাদের প্রতি ইনসাফ করা থেকে বিরত না রাখে, আদল-ইনসাফ কর, এটাই তাকওয়ার নিকটবর্তী।”

অনুরূপভাবে তিনি মুসলমানদেরকে দয়ালু ও কোমল হওয়ার জন্যে হেদায়াত দিয়েছেন। তাদেরকে জিহাদ করার জন্যে তাগিদ করেছেন, কিন্তু শর্ত এই যে, তারা আল্লাহর দেয়া সীমারেখা লংঘন করবে না, অসদাচরণ করবে না, আহতদের অঙ্গচ্ছেদ ঘটাবে না, লুটতরাজ করবে না, মহিলাদের ইজ্জত-সম্ভ্রম নস্ট করবে না এবং কাউকে অহেতুক কোনো কষ্ট দেবে না। যুদ্ধের সময়ে হোক বা শান্তির সময়ে, তাদের উন্নত চরিত্রের পরিচয় দিতে হবে।

হযরত বুরাইদা (রা) থেকে বর্নিত আছে, “নবী করীম (সা) যাদেরকে জিহাদে সৈন্যদেরকে আমীর নিযুক্ত করতেন তাদেরকে তাকওয়া অবলম্বন ও মুমিনদের প্রতি সদ্ব্যবহার তাগিদ করে নির্দেশ দিতেন, যাও আল্লাহর নামে আল্লাহর রাহে জিহাদ করো, যে আল্লাহকে অস্বীকার করে তাকে হত্যা কর। যাও যুদ্ধ করো, দেখ, খেয়ানত করবে না, ধোঁকা দেবে না, অঙ্গচ্ছেদন করবে না, শিশু হত্যা থেকে বিরত থাকবে।” –(মুসলিম)

হযরত আবু হুরাইরা (রা) হতে বর্ণিত আছে যে, “রাসূলুল্লাহ (সা) বলেছেন, তোমরা যখন লড়াই কর (দুশমনের চেহারায় আঘাত করবে না”। -(বুখারী, মুসলিম)

হযরত ইবনে মাসউদ (রা) থেকে বর্ণিত, রাসূল (সা) বলেন, মুমিন হত্যা করার সময়ও নিজের প্রবৃত্তির ঊর্ধে থাকে”। -(আবু দাউদ)

আবদুল্লাহ বিন এজিদ আনসারী থেকে বর্ণিত আছে যে, “আল্লাহর রাসূল (সা) লুটতরাজ এবং অঙ্গচ্ছেদন নিষেধ করেছেন”। -(বুখারী)

এছাড়াও নারী, শিশু, বৃদ্ধ, আহত ব্যক্তিদেরকে হত্যা, সন্যাসী, নির্জনবাসী ও সন্ধি-প্রিয়দের সাথে বিরোধ করতে কঠোরভাবে নিষেধ করা হয়েছে। এখন চিন্তা করে দেখুন আধুনিক সভ্য জগতের নিয়ম কানুন আর আল্লাহর দেয়া শরীয়াতের মধ্যে পার্থক্য কতটুকু এবং কোনটি বেশী ন্যায়ানুগ? ইসলামী আইন ছাড়া আর কোনো আইনে এমন সহানুভূতি, ভ্রাতৃত্ববোধ ও মানবতা দেখা যায় কি?

হে আল্লাহ! মুসলমানদেরকে দ্বীনি অন্তদৃষ্টি দান করুন এবং সারা দুনিয়াকে ইসলামের আলোকে সমুজ্জ্বল করে দিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *