মদনভস্মের পর

পঞ্চশরে দগ্ধ করে করেছ এ কী সন্ন্যাসী—       বিশ্বময় দিয়েছ তারে ছড়ায়ে। ব্যাকুলতর বেদনা তার বাতাসে উঠে নিশ্বাসি,       অশ্রু… Read more মদনভস্মের পর

মনে রবে কি না রবে আমারে

মনে রবে কি না রবে আমারে   সে আমার মনে নাই। ক্ষণে ক্ষণে আসি তব দুয়ারে,   অকারণে গান গাই॥ চলে যায় দিন, যতখন আছি   পথে যেতে যদি আসি কাছাকাছি তোমার মুখের চকিত সুখের   হাসি দেখিতে যে চাই—           তাই   অকারণে গান গাই॥ ফাগুনের ফুল যায় ঝরিয়া   ফাগুনের অবসানে— ক্ষণিকের মুঠি দেয় ভরিয়া,   আর কিছু নাহি জানে। ফুরাইবে দিন, আলো হবে ক্ষীণ,   গান সারা হবে, থেমে যাবে বীন, যতখন থাকি ভরে দিবে নাকি   এ খেলারই ভেলাটাই—           তাই   অকারণে গান গাই॥ স্বরবিতান ২

মরণ রে তুঁহুঁ মম শ্যামসমান

         মরণ রে, তুঁহুঁ মম শ্যামসমান।     মেঘবরণ তুঝ, মেঘজটাজূট,     রক্তকমলকর, রক্ত‐অধরপুট,     তাপবিমোচন করুণ কোর তব          মৃত্যু‐অমৃত… Read more মরণ রে তুঁহুঁ মম শ্যামসমান

মরিয়া

        মেঘ কেটে গেল             আজি এ সকাল বেলায়।         হাসিমুখে এসো             অলস দিনেরি খেলায়।     আশানিরাশার সঞ্চয় যত… Read more মরিয়া

মহামায়া

প্রথম পরিচ্ছেদ মহামায়া এবং রাজীবলোচন উভয়ে নদীর ধারে একটা ভাঙা মন্দিরে সাক্ষাৎ করিল। মহামায়া কোনো কথা না বলিয়া তাহার স্বাভাবিক… Read more মহামায়া

মা কি তুই পরের দ্বারে

     মা কি তুই       পরের দ্বারে পাঠাবি তোর ঘরের ছেলে?      তারা যে         করে হেলা, মারে ঢেলা, ভিক্ষাঝুলি দেখতে পেলে॥                         করেছি      মাথা নিচু,    চলেছি   যাহার পিছু                              যদি বা     দেয় সে কিছু অবহেলে—      তবু কি          এমনি করে ফিরব ওরে আপন মায়ের প্রসাদ ফেলে?।                         কিছু মোর  নেই ক্ষমতা    সে যে ঘোর   মিথ্যে কথা,                         এখনো     হয় নি মরণ শক্তিশেলে—      আমাদের         আপন শক্তি আপন ভক্তি চরণে তোর দেব মেলে॥                         নেব গো          মেগে-পেতে   যা আছে    তোর ঘরেতে,                              দে গো তোর   আঁচল পেতে চিরকেলে— আমাদের    সেইখেনে মান,   সেইখেনে প্রাণ,   সেইখেনে দিই হৃদয় ঢেলে॥ স্বরবিতান ৪৬

মাতৃমন্দির-পুণ্য-অঙ্গন কর

মাতৃমন্দির-পুণ্য-অঙ্গন কর’ মহোজ্জ্বল আজ হে বর      -পুত্রসঙ্ঘ বিরাজ’ হে। শুভ     শঙ্খ বাজহ বাজ’ হে। ঘন      তিমিররাত্রির চির প্রতীক্ষা           পূর্ণ কর’, লহ’ জ্যোতিদীক্ষা,           যাত্রীদল সব সাজ’ হে। শুভ     শঙ্খ বাজহ বাজ’ হে। বল      জয় নরোত্তম, পুরুষসত্তম,           জয় তপস্বিরাজ হে।           জয় হে, জয় হে, জয় হে, জয় হে। এস’     বজ্রমহাসনে মাতৃ-আশীর্ভাষণে, সকল সাধক এস’ হে,   ধন্য কর’ এ দেশ হে। সকল যোগী, সকল ত্যাগী, এস’ দুঃসহদুঃখভাগী— এস’ দুর্জয়শক্তিসম্পদ মুক্তবন্ধ সমাজ হে। এস’ জ্ঞানী, এস’ কর্মী নাশ’ ভারতলাজ হে।             এস’ মঙ্গল, এস’ গৌরব,             এস’ অক্ষয়পুণ্যসৌরভ, এস’ তেজঃসূর্য উজ্জ্বল কীর্তি-অম্বর মাঝ হে বীরধর্মে পুণ্যকর্মে বিশ্বহৃদয় রাজ’ হে। শুভ     শঙ্খ বাজহ বাজ’ হে।… Read more মাতৃমন্দির-পুণ্য-অঙ্গন কর