ভগ্ন মন্দির

   ভাঙা দেউলের দেবতা! তব বন্দনা রচিতে, ছিন্না    বীণার তন্ত্রী বিরতা। সন্ধ্যাগগনে ঘোষে না শঙ্খ    তোমার আরতি‐বারতা। তব মন্দির স্থির গম্ভীর,    ভাঙা দেউলের দেবতা!       তব জনহীন ভবনে থেকে থেকে আসে ব্যাকুল গন্ধ    নববসন্তপবনে। যে ফুলে রচেনি পূজার অর্ঘ্য,    রাখে নি ও...

ভারতলক্ষ্মী

ভৈরবী       অয়ি ভুবনমনমোহিনী! অয়ি নির্মলসূর্যকরোজ্জ্বল ধরণী       জনকজননি‐জননী! নীলসিন্ধুজলধৌত চরণতল, অনিলবিকম্পিত শ্যামল অঞ্চল, অম্বরচুম্বিতভাল হিমাচল,       শুভ্রতুষারকিরীটিনী! প্রথম প্রভাত‐উদয় তব গগনে, প্রথম সামরব তব তপোবনে, প্রথম প্রচারিত তব বনভবনে       জ্ঞানধর্ম...

ভিক্ষায়াং নৈব নৈব চ

যে তোমারে দূরে রাখি নিত্য ঘৃণা করে,         হে মোর স্বদেশ, মোরা তারি কাছে ফিরি সম্মানের তরে         পরি তারি বেশ! বিদেশী জানে না তোরে, অনাদরে তাই         করে অপমান— মোরা তারি পিছে থাকি যোগ দিতে চাই         আপন সন্তান! তোমার যা দৈন্য, মাতঃ, তাই ভূষা মোর         কেন...

ভিখারি

ভৈরবী। একতালা           ওগো   কাঙাল, আমারে কাঙাল করেছ,                        আরো কি তোমার চাই?           ওগো   ভিখারি, আমার ভিখারি, চলেছ                        কি কাতর গান গাই’?                    প্রতিদিন প্রাতে নব নব ধনে                    তুষিব তোমারে সাধ ছিল মনে...

ভুল স্বর্গ

লোকটি নেহাত বেকার ছিল। তার কোনো কাজ ছিল না, কেবল শখ ছিল নানা রকমের। ছোটো ছোটো কাঠের চৌকোয় মাটি ঢেলে তার উপরে সে ছোটো ছোটো ঝিনুক সাজাত। দূর থেকে দেখে মনে হত যেন একটা এলোমেলো ছবি, তার মধ্যে পাখির ঝাঁক; কিম্বা এবড়ো-খেবড়ো মাঠ, সেখানে গোরু চরছে, কিম্বা উঁচুনিচু পাহাড়, তার...

ভ্রষ্ট লগ্ন

শয়নশিয়রে প্রদীপ নিবেছে সবে, জাগিয়া উঠেছি ভোরের কোকিলরবে। অলসচরণে বসি বাতায়নে এসে নূতন মালিকা পরেছি শিথিল কেশে। এমন সময়ে অরুণধূসর পথে তরুণ পথিক দেখা দিল রাজরথে। সোনার মুকুটে পড়েছে উষার আলো, মুকুতার মালা গলায় সেজেছে ভালো। শুধালো কাতরে ‘সে কোথায়’ ‘সে কোথায়’     ...