বিচিত্র

আঁধারের লীলা আকাশে

আঁধারের লীলা আকাশে আলোকলেখায়-লেখায়, ছন্দের লীলা অচলকঠিনমৃদঙ্গে। অরূপের লীলা অগোনা রূপের রেখায় রেখায়, স্তব্ধ অতল খেলায় তরলতরঙ্গে॥ আপনারে পাওয়া আপনা-ত্যাগের গভীর লীলায়, মূর্তির লীলা মূর্তিবিহীন কঠোর শিলায়, শান্ত শিবের লীলা যে প্রলয়ভ্রূভঙ্গে। শৈলের লীলা নির্ঝরকলকলিত...

আকাশ হতে আকাশ-পথে হাজার স্রোতে

আকাশ হতে আকাশ-পথে হাজার স্রোতে ঝরছে জগৎ ঝরনাধারার মতো ॥ আমার শরীর মনের অধীর ধারা সাথে সাথে বইছে অবিরত। দুই প্রবাহের ঘাতে ঘাতে উঠতেছে গান দিনে রাতে, সেই গানে গানে আমার প্রাণে ঢেউ লেগেছে কত। আমার হৃদয়তটে চূর্ণ সে গান ছড়ায় শত শত। ওই আকাশ-ডোবা ধারার দোলায় দুলি অবিরত॥ এই...

আকাশ, তোমায় কোন্‌ রূপে মন চিনতে পারে

আকাশ, তোমায় কোন্‌ রূপে মন চিনতে পারে তাই ভাবি যে বারে বারে॥ গহন রাতের চন্দ্র তোমার মোহন ফাঁদে স্বপন দিয়ে মনকে বাঁধে, প্রভাতসূর্য শুভ্র জ্যোতির তরবারে ছিন্ন করি ফেলে তারে॥ বসন্তবায় পরান ভুলায় চুপে চুপে, বৈশাখী ঝড় গর্জি উঠে রূদ্ররূপে। শ্রাবণমেঘের নিবিড় সজল কাজল ছায়া...

আকাশে তোর তেমনি আছে ছুটি

আকাশে তোর তেমনি আছে ছুটি, অলস যেন না রয় ডানা দুটি॥ ওরে পাখি, ঘন বনের তলে বাসা তোরে ভুলিয়ে রাখে ছলে, রাত্রি তোরে মিথ্যে করে বলে-- শিথিল কভু হবে না তার মুঠি॥ জানিস নে কি কিসের আশা চেয়ে ঘুমের ঘোরে উঠিস গেয়ে গেয়ে। জানিস নে কি ভোরের আঁধার-মাঝে আলোর আশা গভীর সুরে বাজে, আলোর...

আজ তারায় তারায় দীপ্ত শিখার অগ্নি জ্বলে

আজ তারায় তারায় দীপ্ত শিখার অগ্নি জ্বলে নিদ্রাবিহীন গগনতলে॥ ওই আলোক-মাতাল স্বর্গসভার মহাঙ্গন হোথায় ছিল কোন্‌ যুগে মোর নিমন্ত্রণ-- আমার লাগল না মন লাগল না, তাই কালের সাগর পাড়ি দিয়ে এলেম চ'লে নিদ্রাবিহীন গগনতলে॥ হেথা মন্দমধুর কানাকানি জলে স্থলে শ্যামল মাটির ধরাতলে। হেথা...

আধেক ঘুমে নয়ন চুমে

আধেক ঘুমে নয়ন চুমে স্বপন দিয়ে যায়। শ্রান্ত ভালে যূথীর মালে পরশে মৃদু বায়॥ বনের ছায়া মনের সাথি, বাসনা নাহি কিছু– পথের ধারে আসন পাতি, না চাহি ফিরে পিছু– বেণুর পাতা মিশায় গাথা নীরব ভাবনায়॥ মেঘের খেলা গগনতটে অলস লিপি-লিখা, সুদূর কোন্‌ স্ময়ণপটে জাগিল মরীচিকা।...

আনন্দেরই সাগর হতে এসেছে আজ বান

আনন্দেরই সাগর হতে এসেছে আজ বান। দাঁড় ধ'রে আজ বোস্‌ রে সবাই, টান রে সবাই টান॥ বোঝা যত বোঝাই করি করব রে পার দুখের তরী, ঢেউয়ের 'পরে ধরব পাড়ি-- যায় যদি যাক প্রাণ॥ কে ডাকে রে পিছন হতে, কে করে রে মানা, ভয়ের কথা কে বলে আজ-- ভয় আছে সব জানা। কোন্‌ শাপে কোন্‌ গ্রহের দোষে সুখের...

আপন-মনে গোপন কোণে

আপন-মনে গোপন কোণে লেখাজোখার কারখানাতে দুয়ার রুধে বচন কুঁদে খেলনা আমার হয় বানাতে॥ এই জগতের সকাল সাঁজে ছুটি আমার সকল কাজে, মিলে মিলে মিলিয়ে কথা রঙে রঙে হয় মানাতে॥ কে গো আছে ভুবন-মাঝে নিত্যশিশু আনন্দেতে, ডাকে আমায় বিশ্বখেলায় খেলাঘরের জোগান দিতে। বনের হাওয়ায় সকাল-বেলা...

আমরা চাষ করি আনন্দে

আমরা চাষ করি আনন্দে। মাঠে মাঠে বেলা কাটে সকাল হতে সন্ধে॥ রৌদ্র ওঠে, বৃষ্টি পড়ে, বাঁশের বনে পাতা নড়ে, বাতাস ওঠে ভরে ভরে চষা মাটির গন্ধে॥ সবুজ প্রাণের গানের লেখা রেখায় রেখায় দেয় রে দেখা, মাতে রে কোন্‌ তরুণ কবি নৃত্যদোদুল ছন্দে। ধানের শিষে পুলক ছোটে-- সকল ধরা হেসে ওঠে...

আমরা না-গান-গাওয়ার দল রে

আমরা না-গান-গাওয়ার দল রে, আমরা না-গলা-সাধার। মোদের ভৈঁরোরাগে প্রভাতরবি রাগে মুখ-আঁধার॥ আমাদের এই অমিল-কণ্ঠ-সমবায়ের চোটে পাড়ার কুকুর সমস্বরে, ও ভাই, ভয়ে ফুক্‌রে ওঠে-- আমরা কেবল ভয়ে মরি ধূর্জটিদাদার॥ মেঘমল্লার ধরি যদি ঘটে অনাবৃষ্টি, ছাতিওয়ালার দোকান জুড়ে লাগে শনির...

আমরা খুঁজি খেলার সাথি

আমরা খুঁজি খেলার সাথি-- ভোর না হতে জাগাই তাদের ঘুমায় যারা সারা রাতি॥ আমরা ডাকি পাখির গলায়, আমরা নাচি বকুলতলায়, মন ভোলাবার মন্ত্র জানি, হাওয়াতে ফাঁদ আমরা পাতি। মরণকে তো মানি নে রে, কালের ফাঁসি ফাঁসিয়ে দিয়ে লুঠ-করা ধন নিই যে কেড়ে। আমরা তোমার মনোচোরা, ছাড়ব না গো তোমায়...

আমরা নূতন যৌবনেরই দূত

আমরা নূতন যৌবনেরই দূত। আমরা চঞ্চল, আমরা অদ্ভুত। আমরা বেড়া ভাঙি, আমরা অশোকবনের রাঙা নেশায় রাঙি, ঝঞ্ঝার বন্ধন ছিন্ন করে দিই-- আমরা বিদ্যুৎ॥ আমরা করি ভুল-- অগাধ জলে ঝাঁপ দিয়ে যুঝিয়ে পাই কূল। যেখানে ডাক পড়ে জীবন-মরণ-ঝড়ে আমরা...

আমরা লক্ষ্মীছাড়ার দল

আমরা লক্ষ্মীছাড়ার দল ভবের পদ্মপত্রে জল সদা করছি টলোমল মোদের আসা-যাওয়া শূন্য হাওয়া, নাইকো ফলাফল॥ নাহি জানি করণ-কারণ, নাহি জানি ধরণ-ধারণ॥ নাহি মানি শাসন-বারণ গো-- আমরা আপন রোখে মনের ঝোঁকে ছিঁড়েছি শিকল॥ লক্ষ্মী, তোমার বাহনগুলি ধনে পুত্রে উঠুন ফুলি, লুঠুন তোমার চরণধূলি...

আমাকে যে বাঁধবে ধরে

আমাকে যে বাঁধবে ধরে এই হবে যার সাধন, সে কি অমনি হবে। আপনাকে সে বাঁধা দিয়ে আমায় দেবে বাঁধন, সে কি অমনি হবে॥ আমাকে যে দুঃখ দিয়ে আনবে আপন বশে, সে কি অমনি হবে। তার আগে তার পাষাণ হিয়া গলবে করুণ রসে, সে কি অমনি হবে। আমাকে যে কাঁদাবে তার ভাগ্যে আছে কাঁদন, সে কি অমনি...

আমাদের ভয় কাহারে

আমাদের ভয় কাহারে। বুড়ো বুড়ো চোর ডাকাতে কী আমাদের করতে পারে। আমাদের রাস্তা সোজা, নাইকো গলি-- নাইকো ঝুলি, নাইকো থলি-- ওরা আর যা কাড়ে কাড়ুক, মোদের পাগলামি কেউ কাড়বে না রে॥ আমরা চাই নে আরাম, চাই নে বিরাম, চাই নে যে ফল, চাই নে রে নাম-- মোরা ওঠায় পড়ায় সমান নাচি, সমান খেলি...

আমাদের পাকবে না চুল গো

আমাদের পাকবে না চুল গো -- মোদের পাকবে না চুল। আমাদের ঝরবে না ফুল গো -- মোদের ঝরবে না ফুল। আমরা ঠেকব না তো কোনো শেষে, ফুরোয় না পথ কোনো দেশে রে, আমাদের ঘুচবে না ভুল গো -- মোদের ঘুচবে না ভুল। আমরা নয়ন মুদে করব না ধ্যান করব না ধ্যান। নিজের মনের কোণে খুঁজব না জ্ঞান খুঁজব...

আমাদের শান্তিনিকেতন আমাদের

আমাদের শান্তিনিকেতন আমাদের সব হতে আপন। তার আকাশ-ভরা কোলে মোদের দোলে হৃদয় দোলে, মোরা বারে বারে দেখি তারে নিত্যই নূতন॥ মোদের তরুমূলের মেলা, মোদের খোলা মাঠের খেলা, মোদের নীল গগনের সোহাগ-মাখা সকাল-সন্ধ্যাবেলা। মোদের শালের ছায়াবীথি বাজায় বনের কলগীতি, সদাই পাতার নাচে মেতে...

আমার অন্ধপ্রদীপ শূন্য-পানে চেয়ে আছে

আমার অন্ধপ্রদীপ শূন্য-পানে চেয়ে আছে, সে যে লজ্জা জানায় ব্যর্থ রাতের তারার কাছে॥ ললাটে তার পড়ুক লিখা তোমার লিখন ওগো শিখা-- বিজয়টিকা দাও গো এঁকে এই সে যাচে॥ হায় কাহার পথে বাহির হলে বিরহিণী! তোমার আলোক-ঋণে করো তুমি আমায় ঋণী। তোমার রাতে আমার রাতে এক আলোকের সূত্রে গাঁথে...

আমার ঘুর লেগেছে– তাধিন্‌ তাধিন্

আমার ঘুর লেগেছে-- তাধিন্‌ তাধিন্‌। তোমার পিছন পিছন নেচে নেচে ঘুর লেগেছে তাধিন্‌ তাধিন্‌। তোমার তালে আমার চরণ চলে, শুনতে না পাই কে কী বলে-- তাধিন্‌ তাধিন্‌। তোমার গানে আমার প্রাণে যে কোন্‌ পাগল ছিল সেই জেগেছে-- তাধিন্‌ তাধিন্‌। আমার লাজের বাঁধন সাজের বাঁধন খ'সে গেল ভজন...

আমার নাইবা হল পারে যাওয়া

আমার নাইবা হল পারে যাওয়া। যে হাওয়াতে চলত তরী অঙ্গেতে সেই লাগাই হাওয়া ॥ নেই যদি বা জমল পাড়ি ঘাট আছে তো বসতে পারি। আমার আশার তরী ডুবল যদি দেখব তোদের তরী-বাওয়া ॥ হাতের কাছে কোলের কাছে যা আছে সেই অনেক আছে। আমার সারা দিনের এই কি রে কাজ-- ওপার-পানে কেঁদে চাওয়া। কম কিছু মোর...