পূজা

অকারণে অকালে মোর পড়ল যখন ডাক

অকারণে অকালে মোর পড়ল যখন ডাক তখন আমি ছিলেম শয়ন পাতি। বিশ্ব তখন তারার আলোয় দাঁড়ায়ে নির্বাক, ধরায় তখন তিমিরগহন রাতি। ঘরের লোকে কেঁদে কইল মোরে, "আঁধারে পথ চিনবে কেমন ক'রে?' আমি কইনু, "চলব আমি নিজের আলো ধরে, হাতে আমার এই-যে আছে বাতি।' বাতি যতই উচ্চ শিখায় জ্বলে আপন তেজে...

অগ্নিবীণা বাজাও তুমি কেমন ক’রে

অগ্নিবীণা বাজাও তুমি কেমন ক'রে! আকাশ কাঁপে তারার আলোর গানের ঘোরে ॥ তেমনি ক'রে আপন হাতে ছুঁলে আমার বেদনাতে, নূতন সৃষ্টি জাগল বুঝি জীবন-'পরে ॥ বাজে ব'লেই বাজাও তুমি সেই গরবে, ওগো প্রভু, আমার প্রাণে সকল সবে। বিষম তোমার বহ্নিঘাতে বারে বারে আমার রাতে জ্বালিয়ে দিলে নূতন...

অচেনাকে ভয় কী আমার ওরে

অচেনাকে ভয় কী আমার ওরে ? অচেনাকেই চিনে চিনে উঠবে জীবন ভরে॥ জানি জানি আমার চেনা কোনো কালেই ফুরাবে না, চিহ্নহারা পথে আমায় টানবে অচিন ডোরে॥ ছিল আমার মা অচেনা, নিল আমায় কোলে। সকল প্রেমই অচেনা গো, তাই তো হৃদয় দোলে। অচেনা এই ভুবন-মাঝে কত সুরেই হৃদয় বাজে– অচেনা এই জীবন আমার,...

অনিমেষ আঁখি সেই কে দেখেছে

অনিমেষ আঁখি সেই কে দেখেছে যে আঁখি জগতপানে চেয়ে রয়েছে॥ রবি শশী গ্রহ তারা হয় নাকো দিশাহারা, সেই আঁখি ’পরে তারা আঁখি রেখেছে॥ তরাসে আঁধারে কেন কাঁদিয়া বেড়াই, হৃদয়-আকাশ-পানে কেন না তাকাই ? ধ্রুবজ্যোতি সে নয়ন জাগে সেথা অনুক্ষণ, সংসারের মেঘে বুঝি দৃষ্টি...

অনেক দিনের শূন্যতা মোর ভরতে হবে

অনেক দিনের শূন্যতা মোর ভরতে হবে মৌনবীণার তন্ত্র আমার জাগাও সুধারবে ॥ বসন্তসমীরে তোমার ফুল-ফুটানো বাণী দিক পরানে আনি-- ডাকো তোমার নিখিল-উৎসবে ॥ মিলনশতদলে তোমার প্রেমের অরূপ মূর্তি দেখাও ভুবনতলে। সবার সাথে মিলাও আমায়, ভুলাও অহঙ্কার, খুলাও রুদ্ধদ্বার পূর্ণ করো...

অনেক দিয়েছ নাথ

অনেক দিয়েছ নাথ, আমায় অনেক দিয়েছ নাথ, আমার বাসনা তবু পুরিল না-- দীনদশা ঘুচিল না, অশ্রুবারি মুছিল না, গভীর প্রাণের তৃষা মিটিল না, মিটিল না ॥ দিয়েছ জীবন মন, প্রাণপ্রিয় পরিজন, সুধাস্নিগ্ধ সমীরণ, নীলকান্ত অম্বর, শ্যামশোভা ধরণী। এত যদি দিলে, সখা, আরো দিতে হবে হে-- তোমারে না...

অন্তর মম বিকশিত করো অন্তরতর হে

অন্তর মম বিকশিত করো অন্তরতর হে-- নির্মল করো, উজ্জ্বল করো, সুন্দর করো হে ॥ জাগ্রত করো, উদ্যত করো, নির্ভয় করো হে। মঙ্গল করো, নিরলস নিঃসংশয় করো হে ॥ যুক্ত করো হে সবার সঙ্গে, মুক্ত করো হে বন্ধ। সঞ্চার করো সকল কর্মে শান্ত তোমার ছন্দ। চরণপদ্মে মম চিত নিষ্পন্দিত করো হে।...

অন্তরে জাগিছ অন্তরযামী

অন্তরে জাগিছ অন্তরযামী। তবু সদা দূরে ভ্রমিতেছি আমি ॥ সংসার সুখ করেছি বরণ, তবু তুমি মম জীবনস্বামী ॥ না জানিয়া পথ ভ্রমিতেছি পথে আপন গরবে অসীম জগতে। তবু স্নেহনেত্র জাগে ধ্রুবতারা, তব শুভ আশিস আসিছে নামি...

অন্ধকারের উৎস-হতে উৎসারিত আলো

অন্ধকারের উৎস-হতে উৎসারিত আলো সেই তো তোমার আলো! সকল দ্বন্দ্ববিরোধ-মাঝে জাগ্রত যে ভালো সেই তো তোমার ভালো ॥ পথের ধুলায় বক্ষ পেতে রয়েছে যেই গেহ সেই তো তোমার গেহ। সমরঘাতে অমর করে রুদ্রনিঠুর স্নেহ সেই তো তোমার স্নেহ ॥ সব ফুরালে বাকি রহে অদৃশ্য যেই দান সেই তো তোমার দান।...

অন্ধকারের মাঝে আমায় ধরেছ দুই হাতে

অন্ধকারের মাঝে আমায় ধরেছ দুই হাতে। কখন্‌ তুমি এলে, হে নাথ, মৃদু চরণপাতে?। ভেবেছিলেম, জীবনস্বামী, তোমায় বুঝি হারাই আমি-- আমায় তুমি হারাবে না বুঝেছি আজ রাতে ॥ যে নিথীথে আপন হাতে নিবিয়ে দিলেম আলো তারি মাঝে তুমি তোমার ধ্রুবতারা জ্বালো। তোমার পথে চলা যখন ঘুচে গেল, দেখি তখন...

অন্ধজনে দেহো আলো

অন্ধজনে দেহো আলো, মৃতজনে দেহো প্রাণ-- তুমি করুণামৃতসিন্ধু করো করুণাকণা দান ॥ শুষ্ক হৃদয় মম কঠিন পাষাণসম, প্রেমসলিলধারে সিঞ্চহ শুষ্ক নয়ান ॥ যে তোমারে ডাকে না হে তারে তুমি ডাকো-ডাকো। তোমা হতে দূরে যে যায় তারে তুমি রাখো রাখো। তৃষিত যেজন ফিরে তব সুধাসাগরতীরে জুড়াও তাহারে...

অমন আড়াল দিয়ে লুকিয়ে গেলে চলবে না

অমন আড়াল দিয়ে লুকিয়ে গেলে চলবে না। এবার হৃদয়-মাঝে লুকিয়ে বোসো, কেউ জানবে না, কেউ বলবে না। বিশ্বে তোমার লুকোচুরি, দেশ-বিদেশে কতই ঘুরি, এবার বলো, আমার মনের কোণে দেবে ধরা, ছলবে না॥ জানি আমার কঠিন হৃদয় চরণ রাখার যোগ্য সে নয়-- সখা, তোমার হাওয়া লাগলে হিয়ায় তবু কি প্রাণ গলবে...

অমল কমল সহজে জলের কোলে আনন্দে রহে ফুটিয়া

অমল কমল সহজে জলের কোলে আনন্দে রহে ফুটিয়া, ফিরে না সে কভু "আলয় কোথায়' ব'লে ধুলায় ধুলায় লুটিয়া ॥ তেমনি সহজে আনন্দে হরষিত তোমার মাঝারে রব নিমগ্নচিত, পূজাশতদল আপনি সে বিকশিত সব সংশয় টুটিয়া ॥ কোথা আছ তুমি পথ না খুঁজিব কভু, শুধাব না কোনো পথিকে-- তোমারি মাঝারে ভ্রমিব ফিরিব...

অমৃতের সাগরে আমি যাব যাব রে

অমৃতের সাগরে আমি যাব যাব রে, তৃষ্ণা জ্বলিছে মোর প্রাণে ॥ কোথা পথ বলো হে বলো, ব্যথার ব্যথী হে-- কোথা হতে কলধ্বনি আসিছে কানে...

অরূপ বীণা রূপের আড়ালে লুকিয়ে বাজে

অরূপ বীণা রূপের আড়ালে লুকিয়ে বাজে, সে বীণা আজি উঠিল বাজি' হৃদয়মাঝে॥ ভুবন আমার ভরিল সুরে, ভেদ ঘুচে যায় নিকটে দূরে, সেই রাগিণী লেগেছে আমার সকল কাজে॥ হাতে পাওয়ার চোখে চাওয়ার সকল বাঁধন, গেল কেটে আজ সফল হল সকল কাঁদন। সুরের রসে হারিয়ে যাওয়া সেই তো দেখা সেই তো পাওয়া, বিরহ...

অরূপ, তোমার বাণী

অরূপ, তোমার বাণী অঙ্গে আমার চিত্তে আমার মুক্তি দিক্‌ সে আনি ॥ নিত্যকালের উৎসব তব বিশ্বের দীপালিকা-- আমি শুধু তারি মাটির প্রদীপ, জ্বালাও তাহার শিখা নির্বাণহীন আলোকদীপ্ত তোমার ইচ্ছাখানি ॥ যেমন তোমার বসন্তবায় গীতলেখা যায় লিখে বর্ণে বর্ণে পুষ্পে পর্ণে বনে বনে দিকে দিকে...

অল্প লইয়া থাকি, তাই মোর যাহা যায় তাহা যায়

অল্প লইয়া থাকি, তাই মোর যাহা যায় তাহা যায়। কণাটুকু যদি হারায় তা লয়ে প্রাণ করে ‘হায় হায়’॥ নদীতটসম কেবলই বৃথাই প্রবাহ আঁকড়ি রাখিবারে চাই, একে একে বুকে আঘাত করিয়া ঢেউগুলি কোথা ধায়॥ যাহা যায় আর যাহা-কিছু থাকে সব যদি দিই সঁপিয়া তোমাকে তবে নাহি ক্ষয়, সবই জেগে রয় তব মহা...

অশ্রুনদীর সুদূর পারে ঘাট দেখা যায় তোমার দ্বারে

অশ্রুনদীর সুদূর পারে ঘাট দেখা যায় তোমার দ্বারে॥ নিজের হাতে নিজে বাঁধা ঘরে আধা বাইরে আধা– এবার ভাসাই সন্ধ্যাহাওয়ায় আপনারে॥ কাটল বেলা হাটের দিনে লোকের কথার বোঝা কিনে। কথার সে ভার নামা রে মন, নীরব হয়ে শোন্‌ দেখি শোন্‌ পারের হাওয়ায় গান বাজে কোন্‌ বীণার...

অসীম আকাশে অগণ্য কিরণ, কত গ্রহ উপগ্রহ

অসীম আকাশে অগণ্য কিরণ, কত গ্রহ উপগ্রহ কত চন্দ্র তপন ফিরিছে বিচিত্র আলোক জ্বালায়ে-- তুমি কোথায়, তুমি কোথায়?। হায় সকলই অন্ধকার-- চন্দ্র, সূর্য, সকল কিরণ, আঁধার নিখিল বিশ্বজগত। তোমার প্রকাশ হৃদয়মাঝে সুন্দর মোর নাথ-- মধুর প্রেম-আলোকে তোমারি মাধুরী তোমারে প্রকাশে...

অসীম কালসাগরে ভুবন ভেসে চলেছে

অসীম কালসাগরে ভুবন ভেসে চলেছে। অমৃতভবন কোথা আছে তাহা কে জানে ॥ হেরো আপন হৃদয়মাঝে ডুবিয়ে, একি শোভা! অমৃতময় দেবতা সতত বিরাজে এই মন্দিরে, এই সুধানিকেতনে...