সোনার তরী

অক্ষমা

যেখানে এসেছি আমি , আমি সেথাকার , দরিদ্র সন্তান আমি দীন ধরণীর । জন্মাবধি যা পেয়েছি সুখদুঃখভার বহু ভাগ্য বলে তাই করিয়াছি স্থির । অসীম ঐশ্বর্যরাশি নাই তোর হাতে , হে শ্যামলা সর্বসহা জননী মৃন্ময়ী । সকলের মুখে অন্ন চাহিস জোগাতে , পারিস নে কত বার — ‘কই অন্ন কই ‘...

অচল স্মৃতি

আমার হৃদয়ভূমি-মাঝখানে জাগিয়া রয়েছে নিতি অচল ধবল শৈল-সমান একটি অচল স্মৃতি । প্রতিদিন ঘিরি ঘিরি সে নীরব হিমগিরি আমার দিবস আমার রজনী আসিছে যেতেছে ফিরি । যেখানে চরণ রেখেছে সে মোর মর্ম গভীরতম — উন্নত শির রয়েছে তুলিয়া সকল উচ্চে মম । মোর কল্পনা শত রঙিন মেঘের মতো তাহারে...

অনাদৃত

তখন তরুণ রবি প্রভাতকালে আনিছে উষার পূজা সোনার থালে । সীমাহীন নীল জল করিতেছে থলথল্‌ , রাঙা রেখা জ্বলজ্বল্‌ কিরণমালে । তখন উঠিছে রবি গগনভালে । গাঁথিতেছিলাম জাল বসিয়া তীরে । বারেক অতল-পানে চাহিনু ধীরে — শুনিনু কাহার বাণী পরান লইল টানি , যতনে সে জালখানি তুলিয়া শিরে ঘুরায়ে...

আকাশের চাঁদ

হাতে তুলে দাও আকাশের চাঁদ — এই হল তার বুলি । দিবস রজনী যেতেছে বহিয়া , কাঁদে সে দু হাত তুলি । হাসিছে আকাশ , বহিছে বাতাস , পাখিরা গাহিছে সুখে । সকালে রাখাল চলিয়াছে মাঠে , বিকালে ঘরের মুখে । বালক বালিকা ভাই বোনে মিলে খেলিছে আঙিনা-কোণে , কোলের শিশুরে হেরিয়া জননী হাসিছে...

আত্মসমর্পণ

তোমার আনন্দগানে আমি দিব সুর যাহা জানি দু-একটি প্রীতিসুমধুর অন্তরের ছন্দোগাথা ; দুঃখের ক্রন্দনে বাজিবে আমার কণ্ঠ বিষাদবিধুর তোমার কণ্ঠের সনে ; কুসুমে চন্দনে তোমারে পূজিব আমি ; পরাব সিন্দূর তোমার সীমন্তে ভালে ; বিচিত্র বন্ধনে তোমারে বাঁধিব আমি , প্রমোদসিন্ধুর তরঙ্গেতে...

কন্টকের কথা

একদা পুলকে প্রভাত-আলোকে গাহিছে পাখি , কহে কণ্টক বাঁকা কটাক্ষে কুসুমে ডাকি — তুমি তো কোমল বিলাসী কমল , দুলায় বায়ু , দিনের কিরণ ফুরাতে ফুরাতে ফুরায় আয়ু ; এ পাশে মধুপ মধুমদে ভোর , ও পাশে পবন পরিমল-চোর , বনের দুলাল , হাসি পায় তোর আদর দেখে । আহা মরি মরি কী রঙিন বেশ ,...

খেলা

হোক খেলা , এ খেলায় যোগ দিতে হবে আনন্দকল্লোলাকুল নিখিলের সনে । সব ছেড়ে মৌনী হয়ে কোথা বসে রবে আপনার অন্তরের অন্ধকার কোণে! জেনো মনে শিশু তুমি এ বিপুল ভবে অনন্ত কালের কোলে , গগনপ্রাঙ্গণে — যত জান মনে কর কিছুই জান না । বিনয়ে বিশ্বাসে প্রেমে হাতে লহ তুলি বর্ণগন্ধগীতময় যে...

গতি

জানি আমি সুখে দুঃখে হাসি ও ক্রন্দনে পরিপূর্ণ এ জীবন , কঠোর বন্ধনে ক্ষতচিহ্ন পড়ে যায় গ্রনিথতে গ্রনিথতে , জানি আমি , সংসারের সমুদ্র মনিথতে কারো ভাগ্যে সুধা ওঠে , কারো হলাহল । জানি না কেন এ সব , কোন্‌ ফলাফল আছে এই বিশ্বব্যাপী কর্মশৃঙ্খলার । জানি না কী হবে পরে , সবি...

ঝুলন

আমি পরানের সাথে খেলিব আজিকে মরণখেলা নিশীথবেলা । সঘন বরষা , গগন আঁধার , হেরো বারিধারে কাঁদে চারি ধার , ভীষণ রঙ্গে ভবতরঙ্গে ভাসাই ভেলা ; বাহির হয়েছি স্বপ্ন-শয়ন করিয়া হেলা রাত্রিবেলা । ওগো , পবনে গগনে সাগরে আজিকে কী কল্লোল , দে দোল্‌ দোল্‌ । পশ্চাৎ হতে হা হা ক ' রে হাসি...

তোমরা ও আমরা

তোমরা হাসিয়া বহিয়া চলিয়া যাও কুলুকুলুকল নদীর স্রোতের মতো। আমরা তীরেতে দাঁড়ায়ে চাহিয়া থাকি, মরমে গুমরি মরিছে কামনা কত। আপনা-আপনি কানাকানি কর সুখে, কৌতুকছটা উছসিছে চোখে মুখে, কমলচরণ পড়িছে ধরণী-মাঝে, কনকনূপুর রিনিকি ঝিনিকি বাঝে। অঙ্গে অঙ্গ বাঁধিছে রঙ্গপাশে, বাহুতে বাহুতে...

দরিদ্রা

দরিদ্রা বলিয়া তোরে বেশি ভালোবাসি হে ধরিত্রী , স্নেহ তোর বেশি ভালো লাগে— বেদনাকাতর মুখে সকরুণ হাসি , দেখে মোর মর্ম-মাঝে বড়ো ব্যথা জাগে । আপনার বক্ষ হতে রসরক্ত নিয়ে প্রাণটুকু দিয়েছিস সন্তানের দেহে , অহর্নিশি মুখে তার আছিস তাকিয়ে , অমৃত নারিস দিতে প্রাণপণ স্নেহে । কত যুগ...

দুই পাখি

খাঁচার পাখি ছিল সোনার খাঁচাটিতে বনের পাখি ছিল বনে । একদা কী করিয়া মিলন হল দোঁহে , কী ছিল বিধাতার মনে । বনের পাখি বলে , খাঁচার পাখি ভাই , বনেতে যাই দোঁহে মিলে । খাঁচার পাখি বলে — বনের পাখি , আয় খাঁচায় থাকি নিরিবিলে । ' বনের পাখি বলে — ‘ না , আমি শিকলে ধরা নাহি দিব । '...

দুর্বোধ

তুমি মোরে পার না বুঝিতে ? প্রশান্ত বিষাদভরে দুটি আঁখি প্রশ্ন ক'রে অর্থ মোর চাহিছে খুঁজিতে , চন্দ্রমা যেমন ভাবে স্থিরনতমুখে চেয়ে দেখে সমুদ্রের বুকে । কিছু আমি করি নি গোপন । যাহা আছে সব আছে তোমার আঁখির কাছে প্রসারিত অবারিত মন । দিয়েছি সমস্ত মোর করিতে ধারণা , তাই মোরে...

দেউল

রচিয়াছিনু দেউল একখানি অনেক দিনে অনেক দুখ মানি । রাখি নি তার জানালা দ্বার , সকল দিক অন্ধকার , ভূধর হতে পাষাণভার যতনে বহি আনি রচিয়াছিনু দেউল একখানি । দেবতাটিরে বসায়ে মাঝখানে ছিলাম চেয়ে তাহারি মুখপানে । বাহিরে ফেলি এ ত্রিভুবন ভুলিয়া গিয়া বিশ্বজন ধেয়ান তারি অনুক্ষণ করেছি...

নদীপথে

গগন ঢাকা ঘন মেঘে , পবন বহে খর বেগে । অশনি ঝনঝন ধ্বনিছে ঘন ঘন , নদীতে ঢেউ উঠে জেগে । পবন বহে খর বেগে । তীরেতে তরুরাজি দোলে আকুল মর্মর-রোলে । চিকুর চিকিমিকে চকিয়া দিকে দিকে তিমির চিরি যায় চলে । তীরেতে তরুরাজি দোলে । ঝরিছে বাদলের ধারা বিরাম-বিশ্রামহারা । বারেক থেমে আসে ,...

নিদ্রিতা

রাজার ছেলে ফিরেছি দেশে দেশে সাত সমুদ্র তেরো নদীর পার। যেখানে যত মধুর মুখ আছে বাকি তো কিছু রাখি নি দেখিবার। কেহ বা ডেকে কয়েছে দুটো কথা, কেহ বা চেয়ে করেছে আঁখি নত, কাহারো হাসি ছুরির মতো কাটে কাহারো হাসি আঁখিজলেরই মতো। গরবে কেহ গিয়েছে নিজ ঘর, কাঁদিয়া কেহ চেয়েছে ফিরে...

নিরুদ্দেশ যাত্রা

আর কত দূরে নিয়ে যাবে মোরে হে সুন্দরী ? বলো কোন্‌ পার ভিড়িবে তোমার সোনার তরী । যখনি শুধাই , ওগো বিদেশিনী , তুমি হাস শুধু , মধুরহাসিনী — বুঝিতে না পারি , কী জানি কী আছে তোমার মনে । নীরবে দেখাও অঙ্গুলি তুলি অকূল সিন্ধু উঠিছে আকুলি , দূরে পশ্চিমে ডুবিছে তপন গগনকোণে । কী...

পরশপাথর

খ্যাপা খুঁজে খুঁজে ফিরে পরশপাথর । মাথায় বৃহৎ জটা ধুলায় কাদায় কটা , মলিন ছায়ার মতো ক্ষীণ কলেবর । ওষ্ঠে অধরেতে চাপি অন্তরের দ্বার ঝাঁপি রাত্রিদিন তীব্র জ্বালা জ্বেলে রাখে চোখে । দুটো নেত্র সদা যেন নিশার খদ্যোত-হেন উড়ে উড়ে খোঁজে কারে নিজের আলোকে । নাহি যার চালচুলা গায়ে...

পুরস্কার

সেদিন বরষা ঝরঝর ঝরে    কহিল কবির স্ত্রী `রাশি রাশি মিল করিয়াছ জড়ো, রচিতেছ বসি পুঁথি বড়ো বড়ো, মাথার উপরে বাড়ি পড়ো-পড়ো,    তার খোঁজ রাখ কি! গাঁথিছ ছন্দ দীর্ঘ হ্রস্ব--- মাথা ও মুণ্ড, ছাই ও ভস্ম, মিলিবে কি তাহে হস্তী অশ্ব,    না মিলে শস্যকণা। অন্ন জোটে না, কথা জোটে মেলা,...

প্রতীক্ষা

ওরে মৃত্যু , জানি তুই আমার বক্ষের মাঝে বেঁধেছিস বাসা । যেখানে নির্জন কুঞ্জে ফুটে আছে যত মোর স্নেহ-ভালোবাসা , গোপন মনের আশা , জীবনের দুঃখ সুখ , মর্মের বেদনা , চিরদিবসের যত হাসি-অশ্রু-চিহ্ন-আঁকা বাসনা-সাধনা ; যেখানে নন্দন-ছায়ে নিঃশঙ্কে করিছে খেলা অন্তরের ধন , স্নেহের...