মুক্তিপাশ

    ওগো ,    নিশীথে কখন এসেছিলে তুমি 
                 কখন যে গেছ বিহানে 
    তাহা          কে জানে । 
    আমি    চরণশবদ পাই নি শুনিতে 
                   ছিলেম কিসের ধেয়ানে 
    তাহা           কে জানে । 
            রুদ্ধ আছিল আমার এ গেহ , 
            কতকাল আসে - যায় নাই কেহ , 
            তাই মনে মনে ভাবিতেছিলেম 
                   এখনো রয়েছে যামিনী— 
            যেমন বন্ধ আছিল সকলি 
                   বুঝি - বা রয়েছে তেমনি । 
                   হে মোর গোপনবিহারী , 
            ঘুমায়ে ছিলেম যখন , তুমি কি 
                   গিয়েছিলে মোরে নেহারি । 
  
    আজ    নয়ন মেলিয়া একি হেরিলাম 
                   বাধা নাই , কোনো বাধা নাই— 
    আমি           বাঁধা নাই । 
    ওগো    যে আঁধার ছিল শয়ন ঘেরিয়া 
                   আধা নাই , তার আধা নাই— 
    আমি           বাঁধা নাই । 
            তখনি উঠিয়া গেলেম ছুটিয়া , 
            দেখিনু কে মোর আগল টুটিয়া 
            ঘরে ঘরে যত দুয়ার - জানালা 
                  সকলি দিয়েছে খুলিয়া— 
            আকাশ - বাতাস ঘরে আসে মোর 
                  বিজয়পতাকা তুলিয়া 
                  হে বিজয়ী বীর অজানা , 
            কখন যে তুমি জয় করে যাও 
                  কে পায় তার ঠিকানা । 
  
    আমি    ঘরে বাঁধা ছিনু , এবার আমারে 
                  আকাশে রাখিলে ধরিয়া 
    দৃঢ়            করিয়া । 
    সব        বাঁধা খুলে দিয়ে মুক্তিবাঁধনে 
                  বাঁধিলে আমারে হরিয়া 
    দৃঢ়            করিয়া । 
           রুদ্ধদুয়ার ঘরে কতবার 
           খুঁজেছিল মন পথ পালাবার , 
           এবার তোমার আশাপথ চাহি 
                 বসে রব খোলা দুয়ারে— 
           তোমারে ধরিতে হইবে বলিয়া 
                 ধরিয়া রাখিব আমারে । 
                 হে মোর পরানবঁধু হে , 
           কখন যে তুমি দিয়ে চলে যাও 
                 পরানে পরশমধু হে । 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *