নৌকাযাত্রা

মধু মাঝির ওই যে নৌকোখানা 
  বাঁধা আছে রাজগঞ্জের ঘাটে , 
কারো কোনো কাজে লাগছে না তো , 
  বোঝাই করা আছে কেবল পাটে । 
আমায় যদি দেয় তারা নৌকাটি 
আমি তবে একশোটা দাঁড় আঁটি , 
পাল তুলে দিই চারটে পাঁচটা ছটা — 
  মিথ্যে ঘুরে বেড়াই নাকো হাটে । 
       আমি কেবল যাই একটিবার 
       সাত সমুদ্র তেরো নদীর পার । 
  
       তখন তুমি কেঁদো না মা , যেন 
  বসে বসে একলা ঘরের কোণে — 
       আমি তো মা , যাচ্ছি নেকো চলে 
  রামের মতো চোদ্দ বছর বনে । 
আমি যাব রাজপুত্রু হয়ে 
নৌকো - ভরা সোনামানিক বয়ে , 
আশুকে আর শ্যামকে নেব সাথে , 
  আমরা শুধু যাব মা তিন জনে । 
      আমি কেবল যাব একটিবার 
      সাত সমুদ্র তেরো নদীর পার । 
  
    ভোরের বেলা দেব নৌকো ছেড়ে , 
    দেখতে দেখতে কোথায় যাব ভেসে । 
    দুপুরবেলা তুমি পুকুর - ঘাটে , 
     আমরা তখন নতুন রাজার দেশে । 
পেরিয়ে যাব তির্‌পুর্নির ঘাট , 
পেরিয়ে যাব তেপান্তরের মাঠ , 
ফিরে আসতে সন্ধে হয়ে যাবে , 
          গল্প বলব তোমার কোলে এসে । 
     আমি কেবল যাব একটিবার 
     সাত সমুদ্র তেরো নদীর পার । 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *