জ্যোতিষ-শাস্ত্র

আমি শুধু বলেছিলেম— 
    ‘কদম গাছের ডালে 
পূর্ণিমা-চাঁদ আটকা পড়ে 
    যখন সন্ধেকালে 
           তখন কি কেউ তারে 
           ধরে আনতে পারে। ' 
শুনে দাদা হেসে কেন 
          বললে আমায়, ‘ খোকা, 
          তোর মতো আর দেখি নাইকো বোকা। 
চাঁদ যে থাকে অনেক দূরে 
    কেমন করে ছুঁই; 
আমি বলি, ‘দাদা, তুমি 
    জান না কিচ্ছুই। 
মা আমাদের হাসে যখন 
    ওই জানলার ফাঁকে 
তখন তুমি বলবে কি, মা 
    অনেক দূরে থাকে। ' 
            তবু দাদা বলে আমায়, ‘খোকা, 
            তোর মতো আর দেখি নাই তো বোকা। ' 
দাদা বলে, ‘পাবি কোথায় 
       অত বড়ো ফাঁদ। ' 
  আমি বলি, ‘কেন দাদা, 
       ওই তো ছোটো চাঁদ, 
            দুটি মুঠোয় ওরে 
            আনতে পারি ধরে। ' 
  শুনে দাদা হেসে কেন 
            বললে আমায়, ‘খোকা, 
            তোর মতো আর দেখি নাই তো বোকা। 
  চাঁদ যদি এই কাছে আসত 
       দেখতে কত বড়ো। ' 
  আমি বলি, ‘কী তুমি ছাই 
       ইস্কুলে যে পড়। 
  মা আমাদের চুমো খেতে 
       মাথা করে নিচু, 
  তখন কি আর মুখটি দেখায় 
       মস্ত বড়ো কিছু। ' 
            তবু দাদা বলে আমায়, ‘খোকা, 
            তোর মতো আর দেখি নাই তো বোকা। ' 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *