অতিথি

ওই শোনো গো , অতিথ বুঝি আজ 
            এল আজ । 
ওগো বধূ , রাখো তোমার কাজ 
            রাখো কাজ । 
  
শুনছ না কি তোমার গৃহদ্বারে 
রিনিঠিনি শিকলটি কে নাড়ে , 
            এমন ভরা সাঁঝ ! 
পায়ে পায়ে বাজিয়ো নাকো মল , 
ছুটো নাকো চরণ চঞ্চল , 
            হঠাৎ পাবে লাজ । 
  
ওই শোনো গো , অতিথ এল আজ 
            এল আজ । 
ওগো বধূ , রাখো তোমার কাজ 
            রাখো কাজ । 
  
নয় গো কভু বাতাস এ নয় নয় 
            কভু নয় । 
ওগো বধূ , মিছে কিসের ভয়              
            মিছে ভয় ! 
  
আঁধার কিছু নাইকো আঙিনাতে , 
আজকে দেখো ফাগুন - পূর্ণিমাতে 
            আকাশ আলোময় । 
নাহয় তুমি মাথার ঘোমটা টানি 
হাতে নিয়ো ঘরের প্রদীপখানি , 
            যদি শঙ্কা হয় । 
  
নয় গো কভু বাতাস এ নয় নয় 
            কভু নয় । 
ওগো বধূ মিছে কিসের ভয় 
            মিছে ভয় ! 
  
নাহয় কথা কোয়ো না তার সনে 
            পান্থ - সনে । 
দাঁড়িয়ে তুমি থেকো একটি কোণে 
             দুয়ার - কোণে । 
  
প্রশ্ন যদি শুধায় কোনো - কিছু 
নীরব থেকো মুখটি করে নীচু 
            নম্র দু - নয়নে । 
কাঁকন যেন ঝংকারে না হাতে , 
পথ দেখিয়ে আনবে যবে সাথে 
            অতিথিসজ্জনে । 
  
নাহয় কথা কোয়ো না তার সনে 
            পান্থ - সনে । 
দাঁড়িয়ে তুমি থেকো একটি কোণে 
             দুয়ার - কোণে । 
  
ওগো বধূ , হয় নি তোমার কাজ         
গৃহ - কাজ ? 
ওই শোনো কে অতিথ এল আজ 
            এল আজ । 
  
সাজাও নি কি পূজারতির ডালা ? 
এখনো কি হয় নি প্রদীপ জ্বালা 
            গোষ্ঠগৃহের মাঝ ? 
অতি যত্নে সীমান্তটি চিরে 
সিঁদুর - বিন্দু আঁক নাই কি শিরে ? 
            হয় নি সন্ধ্যাসাজ ? 

ওগো বধূ , হয় নি তোমার কাজ 
             গৃহ - কাজ ? 
ওই শোনো কে অতিথ এল আজ 
            এল আজ । 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *