নজরুল রচনাসমগ্র । নজরুল রচনাবলী

কাজী নজরুল ইসলাম । Kazi Nazrul Islam

নজরুল রচনাসমগ্র – সাম্প্রতিক আপডেট

নদী এই মিনতি তোমার কাছে

ভাটিয়ালি – কারফা নদী এই মিনতি তোমার কাছে।  ভাসিয়া নিয়ে যাও আমারে যে দেশে মোর বন্ধু আছে॥ নদী তোমার জলের পথ ধরে সে চলে গেল একা, আমি সেই হতে তার পথ চেয়ে রই, পেলাম না আর দেখা,   ধুলার এ পথ নয় যে বন্ধু থাকবে চরণ-রেখা। আমি মীন হয়ে রহিব জলে, ছুটব ঢেউ-এর পাছে। আমি ডুবে যদি...

হায় স্মরণে আসে গো অতীতকথা

মাঢ় – পাঞ্জাবি ঠেকা হায় স্মরণে আসে গো অতীতকথা।   নয়নে জল ভরে তাই হৃদয় করে ব্যথা।  মুখ তার রহি রহি পড়ে মোর মনে॥   তার     স্মৃতি ভুলিতে চাহি যতই   সখী     মনে পড়ে তারে ততই,   সে      কাঁদায় সখি মোরে ঘুমে জাগরণে॥ তার সাথে গেছে প্রাণ, দেহ আছে পড়ে,   বাঁচার অধিক আমি সখী...

এ জনমে মোদের মিলন হবে না আর, জানি জানি

পিলু-মিশ্র – কারফা এ জনমে মোদের মিলন হবে না আর, জানি জানি। মাঝে সাগর, এপার ওপার করি মোরা কানাকানি॥ দুজনে দুকূলে থাকি কাঁদি মোরা চখাচখি, বিরহের রাত পোহায় না আর বুকে শুকায় বুকের বাণী॥ মোদের পূজা আরতি হায় চোখের জলে, গহন ব্যথায়, মোদের বুকে বীণা বাজায় বেদনারই বীণাপাণি॥...

সে চলে গেছে বলে কি গো

পাহাড়ি-মাঢ় – কারফা সে চলে গেছে বলে কি গো            স্মৃতিও তার যায় ভোলা।    (হায়)   মনে হলে তার কথা আজও         মর্মে যে মোর দেয় দোলা॥   ওই প্রতিটি ধুলিকণায় আছে তার ছোঁয়া লেগে হেথায়, আজও তাহারই আসার আশায়   রাখি     মোর ঘরের সব দ্বার খোলা॥ হেথা সে এসেছিল যবে ঘর ভরেছিল...

ঢের কেঁদেছি ঢের সেধেছি

আশা – কারফা   ঢের কেঁদেছি ঢের সেধেছি,            আর পারিনে, যেতে দে তায়।   গলল না যে চোখের জলে            গলবে কি সে মুখের কথায়॥   যে চলে যায় হৃদয় দলে   নাই কিছু তার হৃদয় বলে, তারে মিছে অভিমানের ছলে            ডাকতে আরও বাজে ব্যথায়॥   বঁধুর চলে যাওয়ার পরে   কাঁদব লো...

বিরহের নিশি কিছুতে আর

সাহানা – একতালা বিরহের নিশি কিছুতে আর চাহে না পোহাতে ওগো প্রিয়। জাগরণে দেখা দিলে না নাথ স্বপনে আসিয়া দেখা দিয়ো॥ হেরিব কবে সে মোহন রূপ, শুকায়েছে মালা, পুড়েছে ধূপ, নিভে যদি যায় জীবন-দীপ তুমি এসে নাথ নিভাইয়ো॥ তব আশা-পথ চাহি বৃথায় দিবস মাস বরষ যায়, এ জনমে যদি ভুলিলে হায়...

নজরুল রচনাবলী - সূচীপত্র