যাম-যোজনায় কড়ি মধ্যম

০১. পিউ পিউ বিরহী পাপিয়া বোলে

১ এক অহোরাত্র আট প্রহরে বা যামে বিভক্ত। অর্থাৎ প্রতি তিন ঘণ্টায় এক প্রহর বা যাম। সংগীতের স্বর সপ্তকের মধ্যে কড়ি ‘মা’ বা তীব্র মধ্যম স্বর এই যাম বা প্রহর যোজনায় সেতু স্বরূপ। প্রতি প্রহরকে এই তীব্র মধ্যম যেন আহ্বান করে আনে আগত প্রহরের সাথে বিদায় প্রহরের পরিচয় করে দেয়!...

০২. উদার প্রাতে কে উদাসী এলে

২ টোড়ি রাগিণী দ্বিতীয় প্রহরে গীত হয়। ভৈরবী আশাবরি গান্ধারী প্রভৃতি রাগিণীর পর রাগের তীব্র মধ্যম তীব্র সুরে জানিয়ে দেয় যে, দিনের দ্বিতীয় প্রহর এল। দু-একটি টোড়িতে দুই মধ্যম লাগে। শুদ্ধ টোড়ির এক ‘মা’। আরোহণের সময় এর পা পড়ে বক্র গতিতে। আরোহণের সময় ঋষভ বা রেখাবে চড়তে এ...

০৩. ভবনে আসিল অতিথি সুদূর

৩ টোড়ির পর যে সব সারং গীত হয় তার মধ্যে শুদ্ধ সারং ও গৌড় সারং ছাড়া অন্য রাগে তীব্র মধ্যম নেই। গৌড় সারংকে দিনের বেহাগও বলা হয়। দুপুর বেলায় এই রাগ গাওয়া হয়। এরও দুই ‘মা’। এর দুই ‘মা’-র উপরে সমান টান। এর চলন অত্যন্ত বাঁকা। এর খেয়াল গান গাওয়া হচ্ছে, শুনলেই এর বাঁকা...

০৪. মুকুর লয়ে কে গো বসি

৪ গৌড় সারং-এর পরে অন্য প্রহরকে পরিচয় করে দেওয়ার জন্য আসেন মুলতান রাগের তীব্র মধ্যম। মুলতান রাগের এক ‘মা’ – অর্থাৎ এতে কেবল কড়ি ‘মা’ লাগে। সকালের টোড়ি আর বিকালের মুলতান একই ঘরের ছেলে মেয়ে। শুধু চাল চলনের তফাতের জন্য দুই জনের স্বভাব দু-রকমের হয়ে গেছে। টোড়ি শুনেছেন, এখন...

০৫. বিদায়ের বেলা মোর ঘনায়ে আসে

৫ বিকালের মুলতানির পর পিলু ভীমপলশ্রী প্রভৃতি রাগিণীতে আর ‘কড়ি মা’ নেই। সান্ধ্য প্রহর যেই এল, অমনি কড়ি ‘মা’ আনলেন ‘পুরবি’কে ধরে। পুরবি এল কাঁদতে কাঁদতে। দুই ‘মা’-র গলা জড়িয়ে এর কান্না অতি সকরুণ। পুরবি–তেতালা বিদায়ের বেলা মোর ঘনায়ে আসে। দিনের চিতা জ্বলে অস্ত-আকাশে॥ দিন...

০৬. বিরহী বেণুকা কেন বাজে সখী ছায়ানটে

৬ ছায়ানট–তেতালা বিরহী বেণুকা কেন বাজে সখী ছায়ানটে। উথলি উঠিল বারি শীর্ণা যমুনা তটে॥ নীরব কুঞ্জে কুহু গেয়ে ওঠে মুহু মুহু আঁধার মধু বনে বকুল চম্পা ফোটে॥ সহসা সরসা হল বিরস বৃন্দাবন চন্দ্রা-যামিনী হাসে খুলি মেঘ-গুণ্ঠন। সে এলে তারে নিরখি পরান কি রবে সখী? আবেশে অঙ্গ মম থরথর...

০৭. নিশি নিঝুম, ঘুম নাহি আসে

৭ ছায়ানটের পর আসে নিঝুম নিশি। বিহগ যখন ঘুমায় বেহাগ তখন জাগে। শুদ্ধ মধ্যমই এর আসল মা। কড়ি ‘মা’ এর সৎমা। দুই মধ্যমে এর যে অপরূপ শ্রী ফুটে উঠে তার বুঝি তুলনা নেই। বেহাগ–তেতালা নিশি নিঝুম, ঘুম নাহি আসে। হে প্রিয় কোথা তুমি দূর প্রবাসে॥ বিহগী ঘুমায় বিহগ-কোলে ঘুমায়েছে ফুল...

০৮. পর জনমে যদি আসি এ ধরায়

৮ বেহাগের পর নিশীথের তৃতীয় প্রহরে কড়ি মধ্যম ধরে আনে চঞ্চল ‘পরজ’কে। এর মান অত্যন্ত প্রবল – অর্থাৎ কড়ি মধ্যম ও নিখাদে এর অত্যন্ত প্রীতি। এর তীব্র নিখাদ ও মধ্যম ঘুমন্তের ঘুম ভেঙে দেয়। এর বিরহ যেন বিলাস। বসন্তের সাথে এর অত্যন্ত প্রীতি। পরজ–তেতালা পর জনমে যদি আসি এ ধরায়...