গুল-বাগিচা (১৯৩৩)

অচেনা সুরে অজানা পথিক

পিলু কাহারবা অচেনা সুরে অজানা পথিক নিতি গেয়ে যায় করুণ গীতি। শুনিয়া সে গান দুলে ওঠে প্রাণ জেগে ওঠে কোন হারানো স্মৃতি॥ ঘুরিয়া মরে উদাসী সে সুর সাঁঝের কূলে বিষাদ-বিধুর, নীড়ে যেতে হায় পাখি ফিরে চায়, আবেশে ঝিমায়...

অঝোর ধারায় বর্ষা ঝরে সঘন তিমির রাতে

মুলতান-কানাড়া মিশ্র দাদরা অঝোর ধারায় বর্ষা ঝরে সঘন তিমির রাতে। নিদ্রা নাহি তোমায় চাহি আমার নয়ন-পাতে॥ ভেজা মাটির গন্ধ সনে তোমার স্মৃতি আনে মনে, বাদলি হাওয়া লুটিয়ে কাঁদে আঁধার আঙিনাতে॥ হঠাৎ বনে আসল ফুলের বন্যা পল্লবেরই কূলে, নাগকেশরের সাথে কদম কেয়া ফুটল দুলে দুলে। নবীন...

আঁখি-বারি আঁখিতে থাক, থাক ব্যথা হৃদয়ে

ভৈরবী মিশ্র কাহারবা আঁখি-বারি আঁখিতে থাক, থাক ব্যথা হৃদয়ে। হারানো মোর বুকের প্রিয়া রইবে চোখে জল হয়ে॥ নিশি-শেষে স্বপন-প্রায় নিলে তুমি চির-বিদায়, ব্যথাও যদি না থাকে হায়, বাঁচিব গো কী লয়ে॥ ভালোবাসার অপরাধে প্রেমিক জনম জনম কাঁদে, কুসুমে কীট বাসা বাঁধে শত বাধা প্রণয়ে। আজকে...

আঁচল হংস-মিথুন আঁকা

ভৈরবী কাহারবা আঁচল হংস-মিথুন আঁকা বলাকা-পেড়ে শাড়ি দুলায়ে। চলিছে কিশোরী শ্যামা একা রুমুঝুমু বাজে নূপুর মৃদু পায়ে॥ ভয়ে ভয়ে চলে আধো-আঁধারে বিরহী বন্ধুর দূর-অভিসারে পথ কাঁদে যেয়ো না যেয়ো না যেয়ো না ওগো থামো ক্ষণেক এ...

আজি এ বাদল-দিনে কত কথা মনে পড়ে

কাজরি দাদরা আজি এ বাদল-দিনে কত কথা মনে পড়ে। হারাইয়া গেছে প্রিয়া এমনই বাদল-ঝড়ে॥ আমারই এ বুকে থাকি ঘুমাত সে ভীরু পাখি, জলদ উঠিলে ডাকি লুকাত বুকের পরে॥ মোর বুকে মুখ রাখি নিবিড় তিমির কাঁদে আমার প্রিয়ার মতো বাঁধিয়া বাহুর বাঁধে॥ কোথায় কাহার বুকে আজি সে ঘুমায় সুখে, প্রদীপ...

আজি কুসুম-দিপালি জ্বলিছে বনে

ভীমপলশ্রী-মিশ্র দাদরা আজি কুসুম-দিপালি জ্বলিছে বনে॥ হেরো ঝিমায় আকাশ চাঁদের স্বপনে॥ জ্বলে দীপ-শিখা আম-মুকুলে রাঙা পলাশে অশোকে বকুলে,- আসে সে আলোর টানে বনতল    মৌমাছে প্রজাপতি দলে দল, পুড়ে মরিতে সে রূপ-শিখাতে, প্রাণ সঁপিতে বাসন্তিকাতে    পরিমল-অঞ্জন মাখিয়া নয়নে। হেরো...

আমার দেশের মাটি

বাউল লোফা আমার দেশের মাটি ও ভাই, খাঁটি সোনার চেয়ে খাঁটি॥  এই দেশের মাটি-জলে   এই দেশেরই ফুলে ফলে   তৃষ্ণা মিটাই, মিটাই ক্ষুধা   পিয়ে এরই দুধের বাটি॥   এই মায়েরই প্রসাদ পেতে,   মন্দিরে এর এঁটো খেতে   তীর্থ করে ধন্য হতে আসে কত জাতি॥   এই দেশেরই ধুলায় পড়ি   মানিক যায় রে...

আমার বিজন ঘরে হেসে এল পথিক মুসাফির-বেশে

বারোয়াঁ-মিশ্র কাহারবা আমার বিজন ঘরে হেসে এল পথিক মুসাফির-বেশে। শরমে মরিয়া তারে শুধাই, তরুণ পথিক, কী তব চাই। সে কহে, – যা দাও লইব তাই॥ দিনু তারে খোঁপার ফুল, সে কহে, – এ নহে, করেছ ভুল। কহিনু, – ভিখারি কী তবে চাও? সে কহে, – গলার মালাটি দাও॥ বসিতে...

আমার ভাঙা নায়ের বইঠা ঠেলে

ভাটিয়ালি কাহারবা আমার ভাঙা নায়ের বইঠা ঠেলে আমি খুঁজে বেড়াই তারেই রে ভাই         যে গিয়াছে আমায় ফেলে॥ আমার, তোদের মতোই ঘর ছিল ভাই         এমনি গাঙের কূলে,   সেই ঘরেতে রূপের জোয়ার         উঠত দুলে দুলে। সেই সোনার পরি উড়ে গেছে         সোনার পাখা মেলে॥   পায়ে চলে খুঁজি...

আসিলে কে গো বিদেশি

দেশি টোড়ি মিশ্র কাহারবা আসিলে কে গো বিদেশি দাঁড়ালে মোর আঙিনাতে। আঁখিতে লয়ে আঁখি-জল লইয়া ফুল-মালা হাতে॥ জানি না চিনি না তোমায়, কেমনে ঘরে দিব ঠাঁই, অমনি আসে তো সবাই হাতে ফুল, জল নয়ন-পাতে॥ কত-সে প্রেম-পিয়াসি প্রাণ চাহিছে তোমার হাতের দান, কাঁদায়ে কত গুলিস্তান আমারে এলে...

আসে রজনি সন্ধ্যামণির প্রদীপ জ্বলে

পিলু কাহারবা আসে রজনি, সন্ধ্যামণির প্রদীপ জ্বলে। ছায়া-আঁচল-ঢাকা কাননতলে॥ তিমির দু-কূল দুলে গগনে গোধূলি-ধূসর সাঁঝ-পবনে, তারার মানিক অলকে ঝলে॥ পূজা-আরতি লয়ে চাঁদের থালায় আসিল সে অস্ত-তোরণ নিরালায়। ললাটের টিপ জ্বলে সন্ধ্যাতারা, গিরি-দরি-বনে পেরে আপনহারা, থামে ধীরে বিরহীর...

ঈদজ্জোহার চাঁদ হাসে ওই

ভৈরবী কাহারবা ঈদজ্জোহার চাঁদ হাসে ওই এল আবার দুসরা ঈদ। কোরবানি দে কোরবানি দে, শোন খোদার ফরমান তাকীদ ॥ এমনি দিনে কোরবানি দেন পুত্রে হজরত ইব্রাহিম, তেমনি তোরা খোদার রাহে আয় রে হবি কে শহিদ॥ মনের মাঝে পশু যে তোর আজকে তারে কর জবেহ পুলসরাতের পুল হতে পার নিয়ে রাখ আগাম রসিদ॥...

উম্মত আমি গুনাহ্‌গার তবু ভয় নাহি রে আমার

সিন্ধু – ভৈরবী কাহারবা উম্মত আমি গুনাহ্‌গার তবু ভয় নাহি রে আমার। আহ্‌মদ আমার নবি যিনি খোদ হবিব খোদার॥ যাঁহার উম্মত হতে চাহে সকল নবি, তাঁহারই দামন ধরি পুলসরাত হব পার॥ কাঁদিবে রোজ-হাশরে সবে যবে নফসি-য়্যা-নফসি রবে, য়্যা উম্মতি বলে একা কাঁদিবেন আমার মোখতার ॥ কাঁদিবেন সাথে...

এ কুঞ্জে পথ ভুলি কোন বুলবুলি আজ

ভৈরবী লাউনি এ কুঞ্জে পথ ভুলি কোন বুলবুলি আজ গাইতে এলে গান। বসন্ত গত মোর আজ পুস্প-বিহীন লতিকা-বিতান॥ এলে কি দলিতে আজ ধূলি-ঢাকা ফুল-সমাধি মোর, নাহি আর চৈতি হাওয়া, বহে আজি বৈশাখী তুফান॥ সাজায়ে ফুলের বাসর ছিনু তব পথ চেয়ে, সে-বাসর বাসি হল, কেঁদে নিশি হল অবসান॥ বাজে মোর...

এ কোথায় আসিলে হায়, তৃষিত ভিখারি

কাফি মিশ্র কাহারবা এ কোথায় আসিলে হায়, তৃষিত ভিখারি হায় পথভোলা পথিক হায় মৃগ মরুচারী॥ তোমার আসার পথে প্রিয় ছিলাম যবে আমার পরান পাতি সেদিন যদি আসিতে নাথ হইতে ব্যথার সাথি। ধোয়ালে নয়নজলে পা মুছাতাম আকুল কেশে আজ কেন দিবাশেষে এলে নাথ মলিন বেশে হায় বুকে লয়ে ব্যথা আসিলে...

এই দেহেরই রংমহলায়

ভৈরবী একতালা এই দেহেরই রংমহলায় খেলিছেন লীলা-বিহারী। মিথ্যা মায়া নয় এ কায়া কায়ায় হেরি ছায়া তাঁরই॥ রূপের রসিক রূপে রূপে খেলে বেড়ায় চুপে চুপে, মনের বনে বাজায় বাঁশি মন-উদাসী বনচারী॥ তার খেলাঘর তোর এ দেহ, সে তো নহে অন্য কেহ, সে যে রে তুই, – তবু মোহ ঘুচল না তোর হায়...

একলা ভাসাই গানের কমল সুরের স্রোতে

বেহাগ-মিশ্র দাদরা একলা ভাসাই গানের কমল সুরের স্রোতে। খেলার ছলে ওপার পানে এপার হতে॥ আসবে গো এ গাঙের কূলে হয়তো ভুলে আমার প্রিয়া, খোঁপায় নেবে আমার গানের কমল তুলে আমার প্রিয়া। খুঁজতে আমায় আসবে সুরের নদী-পথে॥ নাম-হারা কোন গাঁয়ে থাকে অচেনা সে না-ই জানিলাম, গান ভেসে যাক...

এল শোকের সেই মোহররম কারবালার স্মৃতি লয়ে

মর্সিয়া এল শোকের সেই মোহররম কারবালার স্মৃতি লয়ে। আজি বেতাব বিশ্ব-মুসলিম সেই শোকে রোয়ে রোয়ে॥ মনে পড়ে আসগরে আজ পিয়াসা দুধের বাচ্চায় পানি চাহিয়া পেল শাহাদত হোসেনের বক্ষে রয়ে॥ এক হাতে বিবাহের কাঙন এক হাতে কাসেমের লাশ, বেহোশ খিমাতে সকিনা অসহ বেদনা সয়ে॥ ঝরিছে আঁখিতে খুন হায়...

এসো এসো রসলোকবিহারী

ভৈরবী একতালা এসো এসো রসলোকবিহারী এসো মধুকরদল। এসো নভোচারী স্বপনকুমার এসো ধ্যান-নিরমল॥ এসো হে মরাল কমল-বিলাসী, বুলবুল পিক সুরলোকবাসী, এসো হে মরাল কমল-বিলাসী, বুলবুল পিক সুরলোকবাসী, এসো হে স্রষ্টা এসো অ-বিনাশী এসো জ্ঞান-প্রোজ্জ্বল॥ দিওয়ানা প্রেমিক এসো মুসাফির,...

এসো বঁধু ফিরে এসো, ভোলো ভোলো অভিমান

ইমন মিশ্র দাদরা এসো বঁধু ফিরে এসো, ভোলো ভোলো অভিমান। দিব ও চরণে ডারি মোর তনু-মন-প্রাণ॥ জানি আমি অপরাধী তাই দিবানিশি কাঁদি, নিমিষের অপরাধের কবে হবে অবসান॥ ফিরে গেলে দ্বারে আসি বাসি কিনা ভালোবাসি, কাঁদে আজ তব দাসী, তুমি তার হৃদে ধ্যান॥ সেদিন বালিকা-বধূ শরমে মরম-মধু...