গীতি-শতদল (১৯৩৪)

অবুঝ মোর আঁখি-বারি

তিলক-কামোদ – ঠুংরি অবুঝ মোর আঁখি-বারি আমি রোধিতে নারি॥ গলেছে যে নদীজল কে তারে রোধিবে বল, পাষাণের সে নারায়ণ তবু সে...

অসুর-বাড়ির ফেরত এ মা

ভৈরবী একতালা অসুর-বাড়ির ফেরত এ মা শ্বশুরবাড়ির ফেরত নয়। দশভুজার করিস পূজা ভুলরূপে সব জগৎময়॥ নয় গৌরী নয় এ উমা মেনকা যার খেত চুমা, রুদ্রাণী এ, এ যে ভূমা, এক সাথে এ ভয়-অভয়॥ অসুর দানব করল শাসন এইরূপে মা বারে বারে রাবণ-বধের বর দিল মা এইরূপে রাম-অবতারে। দেব-সেনানী পুত্রে লয়ে...

আঁখি ঘুম-ঘুম নিশীথ নিঝুম ঘুমে ঝিমায়

ভৈরবী তালফেরতা আঁখি ঘুম-ঘুম নিশীথ নিঝুম ঘুমে ঝিমায়। বাহুর ফাঁদে স্বপন-চাঁদে বাঁধিতে চায়॥ আমি কার লাগি একা নিশি জাগি বিরহ-ব্যথায়। কোথায় কাহার বুকে বঁধু ঘুমায়। কাঁদি চাতকিনি বারি-তৃষায়। কুসুমগন্ধ আজি যেন বিষমাখা হায়॥ কেন এ ব্যথা এ আকুলতা পরের লাগি এ পরান পুড়ে, মরুভূমিতে...

আজ লাচনের লেগেছে যে গাঁদি গো

পল্লি নৃত্যের গান আজ লাচনের লেগেছে যে গাঁদি গো আজ লাচনের লেগেছে গাঁদি। আমার কোমর কাঁকাল ভেঙে গেছে লেচে লেচে ও দাদি। আজ লাচনের লেগেছে গাঁদি॥ মাদলের বোল : হুর্‌র্ হুর্‌রে দাদা, দাদারে দাদা! তিন দাদা পুত নাতিন নাচে দাদারে দাদা! নাতিন নাচে পুতিন নাচে সতিন নাচে শ্যাওড়া...

আজও ফোটেনি কুঞ্জে মম কুসুম

জংলা খেমটা আজও ফোটেনি কুঞ্জে মম কুসুম ভোমরাকে যেতে বল। সখী গুঞ্জরি ফেরে কেন কুঞ্জে বৃথাই এত ছল॥ কত কী শুনিয়ে যায় গুনগুনিয়ে হায় – পাতার ঝরোকায় ঘোরে সে অবিরল॥ আমার প্রাণের ভিতর কেন ওঠায় সে ঝড়, তারে ফেরালে ফেরে না হাসে কেবল, সে ফিরিয়া গেলে চোখে আসে জল। এ কী হল দায় আঁখি...

আজকে হোরি ও নাগরী

হোরি দাদরা আজকে হোরি, ও নাগরী ওগো গিন্নি ও ললিতে॥ ফাগের রাঙা জল ভরে দাও ফরসি হুঁকোর পিচকিরিতে॥ গাজর বিট আর লাল বেগুনে রাঁধবে শালগম তেলে নুনে, রাঙা দেখে লঙ্কা দিয়ো লাল নটে আর ফুল-কারিতে॥ গাইব গান দোল পৃর্ণিমাতে মালোয়ারি জ্বর আসলে রাতে, তুমি দোহার ধরবে সাথে, গিঁটে বাতের...

আজি নন্দদুলালের সাথে

খাম্বাজ-কাফি হোরি কাহারবা আজি নন্দদুলালের সাথে খেলে ব্রজনারী হোরি। কুঙ্কুম আবির হাতে দেখো, খেলে শ্যামল খেলে গোরী॥ থালে রাঙা ফাগ নয়নে রাঙা রাগ, ঝরিছে রাঙা সোহাগ রাঙা পিচকারি ভরি॥ পলাশে শিমুলে ডালিম ফুলে রঙনে অশোকে মরি মরি। ফাগ-আবির ঝরে তরুলতা-চরাচরে, খেলে কিশোর কিশোরী॥...

আজি প্রথম মাধবী ফুটিল কুঞ্জে 

কীর্তন আজি প্রথম মাধবী ফুটিল কুঞ্জে          মাধব এল না সই। এই যৌবন-বনমালা কারে দিব           মোর বনমালী বই॥   সারা নিশি জেগে বৃথাই নিরালা   গাঁথিলাম নব মালতীর মালা,  অনাদরে হায় সে মালা শুকায়           দেখিয়া কেমনে রই॥   মম অনুরাগ-চন্দন ঘষে,   লাজ ভুলে সাঁঝ হতে আছি...

আজি মিলন-বাসর প্রিয়া

দ্বৈত গান পুরুষ॥ আজি মিলন-বাসর প্রিয়া        হেরো    মধুমাধবী নিশা। স্ত্রী॥ কত    জনম-অভিসার শেষে        প্রিয়     পেয়েছি তব দিশা॥ পু॥ সহকার-তরু হেরো দোলে        মালতী লতায় লয়ে বুকে, স্ত্রী॥ মাধবী-কাঁকন পরি        দেওদার তরু দোলে সুখে। উভয়ে॥ হায় প্রাণ কানায় কানায় আজি...

আনন্দ-দুলালি ব্রজবালার সনে

হোরি কাহারবা আনন্দ-দুলালি ব্রজবালার সনে নন্দদুলাল খেলে হোলি! রঙের মাতন লেগে যেন শ্যামল মেঘে খেলিছে রাঙা বিজলি॥ রাঙা মুঠি-ভরা রাঙা আবির-রেণু রাঙিল পীত-ধড়া শিখী-পাখা বেণু রাঙিল শাড়ি কাঁচলি॥ লচকিয়া আসে মুচকিয়া হাসে মারে আবির পিচকারি, চাঁদের হাট তোরা দেখে যা রে দেখে যা...

আবু আর হাবু দুই ভায়ে ভায়ে সদাই ভীষণ দ্বন্দ্ব

আবু আর হাবু দুই ভায়ে ভায়ে সদাই ভীষণ দ্বন্দ্ব। বোঝালে বোঝে না, এক ভাই কানা আর এক ভাই অন্ধ॥ হাবু বলে, ‘আবু, বিশ্রী দেখায় শিগগির চাঁছো দাড়ি!’ আবু বলে, ‘দাদা, পেঁয়াজের ঝাড় ওই টিকি কাটো তাড়াতাড়ি!’ টিকি ও দাড়িতে চুলোচুলি বাধে ট্রাম বাস হয় বন্ধ॥ হাবু বলে, ‘আবু, তোর কী...

আমার নয়নে কৃষ্ণ নয়নতারা

সিন্ধু মিশ্র কাহারবা আমার নয়নে কৃষ্ণ নয়নতারা হৃদয়ে মোর রাধা-প্যারি। আমার প্রেম প্রীতি ভালোবাসা শ্যাম-সোহাগি গোপনারী॥ আমার স্নেহে জাগে সদা পিতা নন্দ মা যশোদা, ভক্তি আমার শ্রীদাম সুদাম, আঁখিজল যমুনাবারি॥ আমার সুখের কদমশাখায় কিশোর হরি বংশী বাজায়, আমার দুখের তমালছায়ায়...

আমার-দেওয়া ব্যথা ভোলো

জৌনপুরী-টোড়ি একতালা আমার-দেওয়া ব্যথা ভোলো আজ যে যাবার সময় হল॥ নিববে যখন আমার বাতি আসবে তোমার নূতন সাথি, আমার কথা তারে বোলো॥ ব্যথা দেওয়ার কী যে ব্যথা জানি আমি, জানে দেবতা। জানিলে না কী অভিমান করেছে হায় আমায় পাষাণ, দাও যেতে দাও, দুয়ার...

আমি যেদিন রইব না গো লইব চির-বিদায়

আশাবরি লাউনি আমি যেদিন রইব না গো লইব চির-বিদায় চিরতরে স্মৃতি আমার জানি মুছে যাবে হায়॥ আরশিতে তার ছায়া পড়ে রয় যবে সে সুমুখে, সে যবে যায় দূরে চলে অমনি ছবি মিলায়॥ এই ধরণির খেলাঘরে মনে রাখে কে কারে, দুলে সাগর চাঁদ-সো্হাগে মরু মরে পিপাসায়॥ রবি যবে ওঠে নভে চাঁদে কে মনে রাখে...

উচাটন মন ঘরে রয় না পিয়া মোর

গারা খাম্বাজ দাদরা উচাটন মন ঘরে রয় না পিয়া মোর। ডাকে পথে বাঁকা তব নয়না পিয়া মোর॥ ত্যজিয়া লোক-লাজ সুখ-সাধ গৃহ-কাজ – নিজ গৃহে বনবাস সয় না পিয়া মোর॥ লইয়া স্মৃতির লেখা কত আর কাঁদি একা, ফুল গেলে কাঁটা কেন যায় না পিয়া...

এ কোথায় আসিলে হায়

কাফি-মিশ্র কাহারবা এ কোথায় আসিলে হায়, তৃষিত ভিখারি। হায়, পথ-ভোলা পথিক, হায়, মৃগ মরুচারী॥ মোর ব্যথায় চরণ ফেলে চির-দেবতা কি এলে, হায়, শুকায়েছে যবে মোর নয়নে নয়ন-বারি॥ তোমার আসার পথে প্রিয় ছিলাম যবে পরান পাতি, সেদিন যদি আসিতে নাথ হইতে ব্যথার ব্যথী। ধোয়ায়ে নয়ন-জলে পা...

এ ঘোর শ্রাবণ-নিশি কাটে কেমনে

কাজরি কাহারবা এ ঘোর শ্রাবণ-নিশি কাটে কেমনে। হায়, রহি রহি সেই পড়িছে মনে॥ বিজলিতে সেই আঁখি চমকিছে থাকি থাকি, শিহরিত এমনই সে বাহু-বাঁধনে॥ কদম-কেশরে ঝরে তারই স্মৃতি, ঝরঝর বারি যেন তারই গীতি। হায় অভিমানী হায় পথচারী, ফিরে এসো ফিরে এসো তব ভবনে॥ শনশন বহে বায় সে কোথায় সে কোথায়...

একে একে সব মেরেছিস জাতটা শুধু ছিল বাকি

একে একে সব মেরেছিস জাতটা শুধু ছিল বাকি। টিকি ধরে টানিস তোরা, তারেও এবার মারবি নাকি॥ ভাতের হাঁড়ি হুঁকোর জলে কোনোরূপে শাস্ত্র-বুড়ো জাত বাঁচিয়ে লুকিয়ে আছে, তারেও বাবা দিসনে হুড়ো। এক কোণে সে পড়ে আছে ছোঁয়াছুঁয়ির কাঁথা ঢাকি॥ জবু-থবু জাতকে নিয়ে এ তো দেখি বিষম ঠ্যাঁটা পথ চলতে...

এল ফুলের মহলে ভোমরা গুনগুনিয়ে

সিন্ধু মিশ্র খেমটা এল ফুলের মহলে ভোমরা গুনগুনিয়ে। ও-সে কুঁড়ির কানে কানে কী কথা যায় শুনিয়ে॥ জামের ডালে কোকিল কৌতুহলে, আড়ি পাতি ডাকে কূ কূ বলে হাওয়ায় ঝরা পাতার নূপুর বাজে রুনুঝুনিয়ে॥ ‘ধীরে সখা ধীরে’ – কয় লতা দুলে, ‘জাগিয়ো না কুঁড়িরে, কাঁচা ঘুমে তুলে, – গেয়ো না গুন গুন...

এলে কে গো চিরসাথি অবেলাতে

বেহাগ-খাম্বাজ দাদরা এলে কে গো চিরসাথি অবেলাতে। যবে ঝুরিছে সন্ধ্যামণি আঙিনাতে॥ রোদের দাহে এলে স্নিগ্ধ-বাস ফুলরেণু নিঝুম প্রাণে এলে বাজায়ে ব্যাকুল বেণু, চাঁদের তিলক এলে আঁধার রাতে॥ ফুল ঝরার বেলা এলে কি শেষ অতিথি, কাঁদে হা হা স্বরে রিক্ত কানন-বীথি। এলে কোন মরুভূমে পিয়াসি...