প্রলয়শিখা

খেয়ালি

খেয়ালি আয় রে পাগল আপন-বিভোল খুশির খেয়ালি হাতে নিয়ে রবাব-বেণু রঙিন পেয়ালি! ভোজপুরিদের প্রমত্ততায় মাতুক ওরা রাজার সভায় আঙিনাতে জ্বালরে তোরা অরুণ-দেয়ালি স্বপনলোকের পথিক তোরা ধরার...

চাষার গান

চাষার গান আমাদের জমির মাটি ঘরের বেটি, সমান রে ভাই। কে রাবণ করে হরণ দেখব রে তাই॥ আমাদের ঘরের বেটির কেশের মুঠি ধরে নে যায় সাগরপারে, দিয়ে হাত মাথায় শুধু ঘরে বসে রইব না রে। যে লাঙল ফলা দিয়ে শস্য ফলাই মরুর বুকে, আছে সে লাঙল আজও রুখব তাতেই রাজার সেপাই॥ পাঁচনির আশীর্বাদে...

নব-ভারতের হলদিঘাট

নব-ভারতের হলদিঘাট বালাশোর – বুড়িবালামের তীর – নব-ভারতের হলদিঘাট, উদয়-গোধূলি-রঙে রাঙা হয়ে উঠেছিল যথা অস্তপাট। আ-নীল গগন-গম্বুজ-ছোঁয়া কাঁপিয়া উঠিল নীল অচল, অস্তরবিরে ঝুঁটি ধরে আনে মধ্য গগনে কোন পাগল! আপন বুকের রক্তঝলকে পাংশু রবিরে করে লোহিত, বিমনানে বিমানে বাজে...

নমস্কার

নমস্কার তোমারে নমস্কার – যাহার উদয়-আশায় জাগিছে রাতের অন্ধকার। বিহগ-কণ্ঠে জাগে অকারণ পুলক আশায় যার স্তব্ধ পাখায় লাগে গতিবেগ চপল দুর্নিবার। ঘুম ভেঙে যায় নয়নসীমায় লাগিয়া যার আভাস কমলের বুকে অজানিতে জাগে মধুর গন্ধবাস। জাগে সহস্র শিশির-মুকুরে সহস্র মুখ যার না-আসা দিনের...

পূজা অভিনয়

পূজা অভিনয় মানুষের পদ-পূত মাটি দিয়া দেবতা রচিছে পূজারিদল। সে দেবতা গেল স্বর্গে, মানুষ রহিল আঁকড়ি মর্ত্যতল। দেবতারে যারা করেছে সৃজন, সৃজিতে পারে না আপনারে, আসে না শক্তি, পায় না আশিস, ব্যর্থ সে পূজা বারে বারে। মাটির প্রতিমা মাটিই রহিল, হায় কারে দিবে শক্তিবর, দেবতার বর...

প্রলয়শিখা

প্রলয়শিখা বিশ্ব জুড়িয়া প্রলয়-নাচন লেগেছে ওই নাচে নটনাথ কাল-ভৈরব তাথই থই। সে নৃত্যবেগে ললাট-অগ্নি প্রলয়-শিখ ছড়ায়ে পড়িল হেরো রে আজিকে দিগ্‌বিদিক । সহস্র-ফণা বাসুকির সম বহ্নি সে শ্বসিয়া ফিরিছে, জরজর ধরা সেই বিষে। নবীন রুদ্র আমাদের তনুমনে জাগে সে প্রলয়শিখা...

বিংশ শতাব্দী

বিংশ শতাব্দী হইল প্রভাত বিংশ শতাব্দীর, নব-চেতনায় জাগো, জাগো, ওঠো বীর! নব ধ্যান নব ধারণায় জাগো নব প্রাণ নব প্রেরণায় জাগো, সকল কালের উচ্চে তোলো গো শির, সর্ব-বন্ধ-মুক্ত জাগো গে বীর! নূতন কন্ঠে গাহো নূতনের জয়, আমরা ছাড়ায়ে উঠেছি সর্বভয়! সর্বকালের সব মোহ টুটি বালারুণ-সম...

বৈতালিক

বৈতালিক অসুরের খল-কোলাহলে এসো সুরের বৈতালিক! বেতালের যতি-ভঙ্গে তোমার নৃত্য ছন্দ দিক। অকুণ্ঠিত ও-কন্ঠে তোমার আনো উদাত্ত বাণী, সুরের সভায় রাত্রিপারের উষসীরে আনো টানি। তোমার কন্ঠ বিহগ-কণ্ঠে ছড়াক দিগ্‌বিদিক॥ তন্দ্রা-অলস নয়নে বুলাও জাগর-সুরের স্পর্শ, গত নিশীথের মুকুলে...

ভারতী – আরতি

ভারতী – আরতি গান [তিলক-কামোদ ও শুভাবতী – সাদ্রা ও গীতাঙ্গী] জয় ভারতী শ্বেতশতদলবাসিনী, বিষ্ণু-শরণ-চরণ আদি বাণী। কণ্ঠ-লীলা বাজিছে বীণা বিশ্ব ঘুরে গাহে সে সুরে জয় জয় বীণাপাণি॥ শুনি সে সুর অন্ধ নভে উদিল গ্রহ তারকা সবে, মাতিল আলো-মহোৎসবে মা বিশ্বরানি॥ আদি সৃজন-দিনে...

মণীন্দ্র-প্রয়াণ

মণীন্দ্র-প্রয়াণ দানবীর, এতদিনে নিঃশেষে করিলে নিজেরে দান। মৃত্যুরে দিলে অঞ্জলি ভরি তোমার অমৃত প্রাণ। অমৃতলোকের যাত্রী তোমরা পথ ভুলে আস, তাই তোমাদের ছুঁয়ে অমর মৃত্যু আজিও সে মরে নাই। স্বর্গলোকের ইঙ্গিত – আস ছল করে ধরাতল, তোমাদেরে চাহি ফোটে ধরণিতে ধেয়ানের শতদল।...

যতীন দাস

যতীন দাস আসিল শরৎ সৌরাশ্বিন দেবদেবী যবে ঘুমায়ে রয় পাষাণ-স্বর্গ হিমালয়-চূড়ে শুভ্র মৌলি তুষারময়। ধরার অশ্রু – সাত সাগরের লোনা জল উঠি রাত্রিদিন ধোঁয়াইয়া ওঠে স্বর্গের পানে, অভিমানে জমে হয় তু্হিন। পাষাণ স্বর্গ, পাষাণ দেবতা, কোথা দুর্গতিনাশিনী মা, বলির রক্তে রাঙিয়া উঠেছে...

যৌবন

যৌবন ওরে ও শীর্ণা নদী, দু-তীরে নিরাশা বালুচর লয়ে জাগিবি কি নিরবধি? নব-যৌবনজলতরঙ্গ জোয়ারে কি দুলিবি না? নাচিবে জোয়ারে পদ্মা গঙ্গা, তুই রবি চির-ক্ষীণা? ভরা-ভাদরের বরিষন এসে বারে বারে তোর কূলে জানাবে রে তোরে সজল মিনতি, তুই চাহিবি না ভুলে? দুই কূলে বাঁধি প্রস্তর-বাঁধ কূল...

রক্ত-তিলক

রক্ত-তিলক শত্রু-রক্তে রক্ত-তিলক পরিবে কারা? ভিড় লাগিয়াছে – ছুটে দিকে দিকে সর্বহারা। বিহগী মাতার পক্ষপুটের আড়াল ছিঁড়ে শূন্যে উড়েছে আলোক-পিয়াসি শাবক কি রে! নীড়ের বাঁধন বাঁধিয়া রাখিতে পারে না আর, গগনে গগনে শুনেছে কাহার হুহুংকার! কাঁদিতেছে বসি জনক-জননী শূন্য নীড়ে,...

রঙিন খাতা

রঙিন খাতা রেঙে উঠুক রঙিন খাতা নতুন হাতের নতুন লেখায় মুখর হউক নিথর কানন নিত্য নূতন কুহু-কেকায়। নিটোল আকাশ টোল খেয়ে যাক হাজার পাখির গানের দোলে, লেখার কুসুম ফুটে উঠুক খাতার পাতার কোলে কোলে। হাজার দেশের গানের পাখির হাজার রাঙা পালক ঝরে রচে তুলুক অমর ঝাঁপি, দুলুক বীণাপাণির...

শূদ্রের মাঝে জাগিছে রুদ্র

শূদ্রের মাঝে জাগিছে রুদ্র শূদ্রের মাঝে জাগিছে রুদ্র ব্যথা-অনিদ্র দেবতা। শুনি নির্জিত কোটি দীন-মুখে বজ্র-ঘোষ বারতা। এ কী মহা দীন রূপ ধরি ফের পথে পথে ভাঙা কুটিরে, সবারে অন্ন বিলায়ে আপনি মাগিছ ভিক্ষা-মুঠিরে॥ কৃষক হইয়া কর্ষিছ ভূমি জলে ভিজে রোদে পুড়িয়া, পরবাসে তুলি হরের...

হবে জয়

‘হবে জয়’ আবার কি আঁধি এসেছে হানিতে ফুলবনে লাঞ্ছনা? দু-হাত ভরিয়া ছিটাইছে পথে মলিন আবর্জনা? করিয়ো না ভয়, হবে হবে লয় আপনি এ উৎপাত, আঙনের দুটো খড়কুটো লয়ে লুকোবে অকস্মাৎ! উৎপাতে তার যদি সখা তব ফুলবনে ফুল ঝরে, নব-বসন্তে নব ফুলদল আসিবে কানন ভরে। অসুন্দরের প্রতীক উহারা,...