নজরুল রচনাসমগ্র । নজরুল রচনাবলী

কাজী নজরুল ইসলাম । Kazi Nazrul Islam

নজরুল রচনাসমগ্র – সাম্প্রতিক আপডেট

ওরে শুভ্রবসনা রজনীগন্ধা বনের বিধবা মেয়ে

ওরে শুভ্রবসনা রজনীগন্ধা বনের বিধবা মেয়ে, হারানো কাহারে খুঁজিস নিশীথ-- আকাশের পানে চেয়ে॥ ক্ষীণ তনু-লতা বেদনা-মলিন উদাস মূরতি ভূষণ-বিহীন, তোরে হেরি' ঝরে কুসুম অশ্রু বনের কপোল বেয়ে॥ তুই লুকায়ে কাঁদিস্ রজনী জাগিস্ সবাই ঘুমায় যবে, বিধাতারে যেন বলিস, "দেবতা, আমারে লইবে...

সেদিন অভাব ঘুচবে কি মোর

সেদিন অভাব ঘুচবে কি মোর যেদিন তুমি আমার হবে? আমার ধ্যানে আমার জ্ঞানে প্রাণ মন মোর ঘিরে রবে।। রইবে তুমি প্রিয়তম আমার দেহে আত্মা-সম, জানি না সাধ মিটবে কি-না - তেমন করেও পাব যবে।। পাওয়ার আমার শেষ হবে না পেয়েও তোমায় বক্ষতলে, সাগর মাঝে মিশে গিয়েও নদী যেমন ব’য়ে চলে। চাঁদকে...

সজল হাওয়া কেঁদে বেড়ায়

সজল হাওয়া কেঁদে বেড়ায় কাজল আকাশ ঘিরে', তুমি এস ফিরো। উঠছে কাঁদন ভাঙন-ধরা নদীর তীরে তীরে। তুমি এস ফিরে।। বন্ধু তব বিরহেরি অশ্রু ঝরে গগন ঘেরি', লুটিয়ে কাঁদে বনভূমি অশান্ত সমীরে।। আকাশ কাঁদে, আমি কাঁদি, বাতাস কেঁদে সারা; তুমি কোথায়, কোথায় তুমি পথিক পথহারা। দুয়ার খুলে...

যখন আমার কুসুম ঝরার বেলা

যখন আমার কুসুম ঝরার বেলা, তখন তুমি এলে ভাটির স্রোতে ভাসলো যখন ভেলা পারের পথিক এলে।। আঁধার যখন ছাইল বনতল পথ হারিয়ে এলে হে চঞ্চল দীপ নিভাতে এলে হে বাদল ঝড়ের পাখা মেলে।। শূন্য যখন নিবেদনের থালা তখন তুমি এলে শুকিয়ে যখন ঝরল বরণ-মালা তখন তুমি এলে।। নিরশ্রু এই নয়ন-পাতে শেষ...

মালা গাঁথা শেষ না হতে তুমি এলে ঘরে

মালা গাঁথা শেষ না হতে তুমি এলে ঘরে, শূন্য হাতে তোমায় বরণ করব কেমন ক'রে? লজ্জা পাবার অবসর মোর দিলে না হে চঞ্চল, চোর, সজ্জা-বিহীন মলিন তনু দেখলে নয়ন ভরে।। বিফল মালার ফুলগুলি হায় কোথায় এখন রাখি, ক্ষণিক দাঁড়াও, ঐ কুসুমে (তোমার) চরণ দু'টি ঢাকি। (তোমার) চরণ দুটি ঢাকি। আকুল...

বরণ করে নিও না গো আমারে নিয় হরণ করে

(মিশ্র) গান্ধারী-ত্রিতাল বরণ করে নিও না গো (আমারে) নিয় হরণ করে। ভীরু আমায় জয় কর গো তোমার মনের জোরে।। পরাণ ব্যাকুল তোমার তরে চরণ শুধু বারণ করে। লুকিয়ে থাকি তোমার আশায় রঙিন বসন পরে।। লজ্জা আমার ননদিনী লতিকার-ই-প্রায় যখনই যাই শ্যামের কাছে দাঁড়িয়ে আছে ঠায়। চাইতে নারি চোখে...

পাতা 1/29412345...102030...শেষ »

নজরুল রচনাবলী - সূচীপত্র